jugantor
স্কয়ার হাসপাতালকে ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা
আইসিইউ সিসিইউসহ বিভিন্ন ইউনিটের লাইসেন্স নেই

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

অভিজাত ব্যক্তিদের চিকিৎসা কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত রাজধানীর পান্থপথে স্কয়ার হাসপাতালে অভিযান চালিয়েছেন র‌্যাবের মোবাইল কোর্ট। এ অভিযানে মিলেছে অবিশ্বাস্য অনেক তথ্য। অভিজাত এ হাসপাতালের আইসিইউ, সিসিইউ, এনআইসিইউ ও এইচডিইউ এবং ডায়লাইসিস ইউনিটের লাইসেন্স নেই। ব্ল্যাড ব্যাংক ও ডায়াগনস্টিক ল্যাবের লাইসেন্সের মেয়াদও ফুরিয়ে গেছে দুই বছর আগে। ফলে অবৈধভাবেই পরিচালিত হচ্ছিল নগরীর সর্ববৃহৎ এ বেসরকারি হাসপাতালটি।

র‌্যাবের মোবাইল কোর্ট তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালের ৬ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। অভিযানের নেতৃত্বে থাকা র‌্যাব-২-এর উপপরিচালক মো. দিদারুল আলম যুগান্তরকে জানিয়েছেন, লাইসেন্স না থাকার বিষয়টি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্ট দফতর বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবে। র‌্যাব জানায়, বুধবার দুপুরে স্কয়ার হাসপাতালে মোবাইল কোর্ট অভিযান চালিয়ে দেখতে পায় মেডিকেল ডিভাইস ও সার্জিক্যাল অ্যাপারেটাসের ডিআরএ ও প্রিমিসেস ড্রাগ লাইসেন্স নেই। ব্ল্যাড ব্যাংক, হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক ল্যাবের লাইসেন্সের মেয়াদও দুই বছর আগেই পার হয়ে গেছে। আইসিইউ, সিসিইউ, এনআইসিইউ ও এইচডিইউ এবং ডায়লাইসিস ইউনিটেরও লাইসেন্স নেই। এছাড়া ৩০০ বেডের অনুমতি নিয়ে ৩৬৫ বেড পরিচালনা করা হচ্ছিল। ৫ শতাংশ বেড ফ্রির নির্দেশনা থাকলেও সেটি দেয়ার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। সিটি কর্পোরেশনের লাইসেন্স না নিয়ে ফুডকোর্টে বিভিন্ন খাবার তৈরি ও বিক্রয় এবং বিএসটিআইর লাইসেন্স ছাড়া কেক উৎপাদন ও বাণিজ্যিকভাবে বিক্রয় করছিল হাসপাতালটি।



সাবমিট

স্কয়ার হাসপাতালকে ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা

আইসিইউ সিসিইউসহ বিভিন্ন ইউনিটের লাইসেন্স নেই
 যুগান্তর রিপোর্ট 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
অভিজাত ব্যক্তিদের চিকিৎসা কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত রাজধানীর পান্থপথে স্কয়ার হাসপাতালে অভিযান চালিয়েছেন র‌্যাবের মোবাইল কোর্ট। এ অভিযানে মিলেছে অবিশ্বাস্য অনেক তথ্য। অভিজাত এ হাসপাতালের আইসিইউ, সিসিইউ, এনআইসিইউ ও এইচডিইউ এবং ডায়লাইসিস ইউনিটের লাইসেন্স নেই। ব্ল্যাড ব্যাংক ও ডায়াগনস্টিক ল্যাবের লাইসেন্সের মেয়াদও ফুরিয়ে গেছে দুই বছর আগে। ফলে অবৈধভাবেই পরিচালিত হচ্ছিল নগরীর সর্ববৃহৎ এ বেসরকারি হাসপাতালটি।

র‌্যাবের মোবাইল কোর্ট তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালের ৬ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। অভিযানের নেতৃত্বে থাকা র‌্যাব-২-এর উপপরিচালক মো. দিদারুল আলম যুগান্তরকে জানিয়েছেন, লাইসেন্স না থাকার বিষয়টি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্ট দফতর বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবে। র‌্যাব জানায়, বুধবার দুপুরে স্কয়ার হাসপাতালে মোবাইল কোর্ট অভিযান চালিয়ে দেখতে পায় মেডিকেল ডিভাইস ও সার্জিক্যাল অ্যাপারেটাসের ডিআরএ ও প্রিমিসেস ড্রাগ লাইসেন্স নেই। ব্ল্যাড ব্যাংক, হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক ল্যাবের লাইসেন্সের মেয়াদও দুই বছর আগেই পার হয়ে গেছে। আইসিইউ, সিসিইউ, এনআইসিইউ ও এইচডিইউ এবং ডায়লাইসিস ইউনিটেরও লাইসেন্স নেই। এছাড়া ৩০০ বেডের অনুমতি নিয়ে ৩৬৫ বেড পরিচালনা করা হচ্ছিল। ৫ শতাংশ বেড ফ্রির নির্দেশনা থাকলেও সেটি দেয়ার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। সিটি কর্পোরেশনের লাইসেন্স না নিয়ে ফুডকোর্টে বিভিন্ন খাবার তৈরি ও বিক্রয় এবং বিএসটিআইর লাইসেন্স ছাড়া কেক উৎপাদন ও বাণিজ্যিকভাবে বিক্রয় করছিল হাসপাতালটি।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র