jugantor
ঘুম ভাঙ্গল গেইলের

  স্পোর্টস রিপোর্টার  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

জানাই ছিল, তার ব্যাট কথা বলবেই। তিনি তো আর সবসময়ের ঘুমকাতুরে ব্যাটসম্যান নন। কাল বরিশালকে রোদেলা গল্প শোনালো তার সেই সহজাত, সপ্রতিভ টি ২০ সুলভ ব্যাটিং। তিনি ক্রিস গেইল। দুই ম্যাচে ঘুমিয়ে থাকার পর আড়মোড়া ভেঙ্গে জেগে উঠলেন। সেই জাগরণে খড়কুটোর মতো উড়ে গেল চিটাগাং ভাইকিংস। আর প্রতিপক্ষ দলগুলোকে সতর্ক বার্তা পাঠাল, প্লে-অফে তাদের জন্য কী অপেক্ষা করছে। ভাইকিংস আগেরদিন বিদায় নিয়েছিল বিপিএল থেকে। চাওয়া-পাওয়ার কিছুই ছিল না তাদের এই ম্যাচে। তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ আমির খেলেননি। এমন কমজোরি দলটাকে পেয়ে গেইল একাই ধ্বংসযজ্ঞ চালালেন। ১৩৬ তাড়া করতে নামা বরিশাল বুলস বুধবার আগামী যুদ্ধের পর্যাপ্ত রসদ পেয়ে যায় গেইলের ব্যাটে। মাত্র ৪৭ বলে অপরাজিত ৯২। এরমধ্যে ৭৮ রান এসেছে চার-ছয়ে। ৩০ বল বাকি থাকতে আট উইকেটে জিততে তাই একটুও ঘামাতে হয়নি বুলসকে। ছয়টি চার ও নয়টি ছয়ে গেইল ভালোভাবেই ফিরে পেলেন নিজেকে। নয় ম্যাচ থেকে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানেই রইল বরিশাল। দ্বিতীয় স্থানে থাকা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সেরও সমান ১২ পয়েন্ট। বরিশাল ও কুমিল্লা আজ তাদের শেষ ম্যাচ খেলবে যথাক্রমে ঢাকা ডায়নামাইটস ও সিলেট সুপার স্টারসের বিপক্ষে। মাহমুদউল্লাহ ও মাশরাফির দল আজ জিতলে রংপুর, কুমিল্লা ও বরিশাল তিন দলের পয়েন্ট হবে সমান ১৪। তাদের মধ্যে শ্রেয়তর রানরেটের ভিত্তিতে সেরা দুয়ে থাকবে প্রথম দুটি দল।

কোনো সন্দেহ নেই, কাল মিরপুর দেখেছে গেইল শো। এই ম্যাচটিকে ‘গেইল স্পেশাল’ বললেও অত্যুক্তি হবে না। ১৩তম ওভারে নিজের ৫৩তম টি ২০ ফিফটি পূর্ণ করে ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান বরিশালকে জয়ের পথে তুলে দেন। দুই ওভার পর মাহমুদউল্লাহর দল জয়ের সঙ্গে করমর্দন করে। জিততে যখন ২১ রান বাকি, গেইলের তখন আর তর সয়নি। চোখের পলকে ম্যাচটা গুটিয়ে দেন তিনি জীবন মেন্ডিসকে লং অন দিয়ে চারটি ছয় মেরে। টি ২০ বিনোদনের স্বাদ পেয়ে তৃপ্ত দর্শকরা আসন ছাড়েন খুশিমনে।

তবে রান তাড়া করতে নামা বরিশালের প্রথম ওভারে বিতর্ক খানিকটা দানা বেঁধেছিল। রনি তালুকদার এক রান নেয়ার সময় দিলশান তার সামনে এসে পড়েন। শ্রীলংকান তারকার সঙ্গে ধাক্কা খাওয়ার সময় ক্রিজ থেকে বেশ দূরে ছিলেন রনি। দিলশানের থ্রোয়ে রানআউট হন তিনি। রনি ও গেইল এ নিয়ে আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা

বলেন। তবে শেষতক রনিকে রানআউট দেয়া হয়।

এরআগে চিটাগাংয়ের সাদামাটা ইনিংস শেষ হয় কোনো নাটকীয়তা ছাড়াই। ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক দিলশান টুর্নামেন্টে এই প্রথম তামিম ইকবালের বদলে এনামুল হকের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধন করেন। হালকা চোটের দরুন তামিম নিজেকে সরিয়ে নেন এই ম্যাচ থেকে। দিলশান ফিরে যাওয়ার আগে প্রথম উইকেটে ৫২ রান যোগ করেন। ২২ বলে তার ২৮ রানে দুটি করে চার ও ছয়। এনামুলও সমান ২৮ রান করেন। তারও দুটি করে চার ও ছয়। বল খেলেন দিলশানের থেকে চারটি কম। এবারের বিপিএলে নিজের প্রথম ম্যাচে সোহাগ গাজী তুলে নেন এনামুলের উইকেট। চার ওভারের স্পেলে যা তার একমাত্র শিকার। রান দেন ১৭। এনামুল ও দিলশানের পর উমর আকমলের ২৫ চিটাগাংয়ের ইনিংসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ।

বিপিএলের পয়েন্ট টেবিল

দল ম্যাচ জয় হার পয়েন্ট নেট রানরেট

রংপুর রাইডার্স ১০ ৭ ৩ ১৪ + ০.৬৯৩

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৯ ৬ ৩ ১২ + ০.৪৭৫

বরিশাল বুলস ৯ ৬ ৩ ১২ + ০.০৫৪

ঢাকা ডায়নামাইটস ৯ ৪ ৫ ৮ + ০.০০৭

সিলেট সুপার স্টারস ৯ ৩ ৬ ৬ - ০.৩৭৬

চিটাগাং ভাইকিংস ১০ ২ ৮ ৪ - ০.৮২৮



সাবমিট

ঘুম ভাঙ্গল গেইলের

 স্পোর্টস রিপোর্টার 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
জানাই ছিল, তার ব্যাট কথা বলবেই। তিনি তো আর সবসময়ের ঘুমকাতুরে ব্যাটসম্যান নন। কাল বরিশালকে রোদেলা গল্প শোনালো তার সেই সহজাত, সপ্রতিভ টি ২০ সুলভ ব্যাটিং। তিনি ক্রিস গেইল। দুই ম্যাচে ঘুমিয়ে থাকার পর আড়মোড়া ভেঙ্গে জেগে উঠলেন। সেই জাগরণে খড়কুটোর মতো উড়ে গেল চিটাগাং ভাইকিংস। আর প্রতিপক্ষ দলগুলোকে সতর্ক বার্তা পাঠাল, প্লে-অফে তাদের জন্য কী অপেক্ষা করছে। ভাইকিংস আগেরদিন বিদায় নিয়েছিল বিপিএল থেকে। চাওয়া-পাওয়ার কিছুই ছিল না তাদের এই ম্যাচে। তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ আমির খেলেননি। এমন কমজোরি দলটাকে পেয়ে গেইল একাই ধ্বংসযজ্ঞ চালালেন। ১৩৬ তাড়া করতে নামা বরিশাল বুলস বুধবার আগামী যুদ্ধের পর্যাপ্ত রসদ পেয়ে যায় গেইলের ব্যাটে। মাত্র ৪৭ বলে অপরাজিত ৯২। এরমধ্যে ৭৮ রান এসেছে চার-ছয়ে। ৩০ বল বাকি থাকতে আট উইকেটে জিততে তাই একটুও ঘামাতে হয়নি বুলসকে। ছয়টি চার ও নয়টি ছয়ে গেইল ভালোভাবেই ফিরে পেলেন নিজেকে। নয় ম্যাচ থেকে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানেই রইল বরিশাল। দ্বিতীয় স্থানে থাকা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সেরও সমান ১২ পয়েন্ট। বরিশাল ও কুমিল্লা আজ তাদের শেষ ম্যাচ খেলবে যথাক্রমে ঢাকা ডায়নামাইটস ও সিলেট সুপার স্টারসের বিপক্ষে। মাহমুদউল্লাহ ও মাশরাফির দল আজ জিতলে রংপুর, কুমিল্লা ও বরিশাল তিন দলের পয়েন্ট হবে সমান ১৪। তাদের মধ্যে শ্রেয়তর রানরেটের ভিত্তিতে সেরা দুয়ে থাকবে প্রথম দুটি দল।

কোনো সন্দেহ নেই, কাল মিরপুর দেখেছে গেইল শো। এই ম্যাচটিকে ‘গেইল স্পেশাল’ বললেও অত্যুক্তি হবে না। ১৩তম ওভারে নিজের ৫৩তম টি ২০ ফিফটি পূর্ণ করে ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান বরিশালকে জয়ের পথে তুলে দেন। দুই ওভার পর মাহমুদউল্লাহর দল জয়ের সঙ্গে করমর্দন করে। জিততে যখন ২১ রান বাকি, গেইলের তখন আর তর সয়নি। চোখের পলকে ম্যাচটা গুটিয়ে দেন তিনি জীবন মেন্ডিসকে লং অন দিয়ে চারটি ছয় মেরে। টি ২০ বিনোদনের স্বাদ পেয়ে তৃপ্ত দর্শকরা আসন ছাড়েন খুশিমনে।

তবে রান তাড়া করতে নামা বরিশালের প্রথম ওভারে বিতর্ক খানিকটা দানা বেঁধেছিল। রনি তালুকদার এক রান নেয়ার সময় দিলশান তার সামনে এসে পড়েন। শ্রীলংকান তারকার সঙ্গে ধাক্কা খাওয়ার সময় ক্রিজ থেকে বেশ দূরে ছিলেন রনি। দিলশানের থ্রোয়ে রানআউট হন তিনি। রনি ও গেইল এ নিয়ে আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা

বলেন। তবে শেষতক রনিকে রানআউট দেয়া হয়।

এরআগে চিটাগাংয়ের সাদামাটা ইনিংস শেষ হয় কোনো নাটকীয়তা ছাড়াই। ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক দিলশান টুর্নামেন্টে এই প্রথম তামিম ইকবালের বদলে এনামুল হকের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধন করেন। হালকা চোটের দরুন তামিম নিজেকে সরিয়ে নেন এই ম্যাচ থেকে। দিলশান ফিরে যাওয়ার আগে প্রথম উইকেটে ৫২ রান যোগ করেন। ২২ বলে তার ২৮ রানে দুটি করে চার ও ছয়। এনামুলও সমান ২৮ রান করেন। তারও দুটি করে চার ও ছয়। বল খেলেন দিলশানের থেকে চারটি কম। এবারের বিপিএলে নিজের প্রথম ম্যাচে সোহাগ গাজী তুলে নেন এনামুলের উইকেট। চার ওভারের স্পেলে যা তার একমাত্র শিকার। রান দেন ১৭। এনামুল ও দিলশানের পর উমর আকমলের ২৫ চিটাগাংয়ের ইনিংসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ।

বিপিএলের পয়েন্ট টেবিল

দল ম্যাচ জয় হার পয়েন্ট নেট রানরেট

রংপুর রাইডার্স ১০ ৭ ৩ ১৪ + ০.৬৯৩

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৯ ৬ ৩ ১২ + ০.৪৭৫

বরিশাল বুলস ৯ ৬ ৩ ১২ + ০.০৫৪

ঢাকা ডায়নামাইটস ৯ ৪ ৫ ৮ + ০.০০৭

সিলেট সুপার স্টারস ৯ ৩ ৬ ৬ - ০.৩৭৬

চিটাগাং ভাইকিংস ১০ ২ ৮ ৪ - ০.৮২৮



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র