¦

এইমাত্র পাওয়া

  • মগবাজারে বাসায় ঢুকে চিকিৎসককে গুলি করেছে দুর্বৃত্তরা || যুবলীগ সভাপতি ওমর ফারুকের বাসায় ককটেল হামলা
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দেশের প্রাচীন স্টেডিয়াম

মনির হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে | প্রকাশ : ০২ নভেম্বর ২০১৪

নিয়াজ মোহাম্মদ স্টেডিয়াম। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার প্রধান স্টেডিয়াম ও খেলাধুলার প্রাণকেন্দ্র। ১৯৩৪ সালে তৎকালীন এসডিও নিয়াজ মোহাম্মদ খান এ স্টেডিয়ামটি প্রতিষ্ঠা করেন। দেশের প্রাচীনতম এ স্টেডিয়াম আজও আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের মর্যাদা পায়নি। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী জানান, স্টেডিয়াম উন্নয়নের নামে একসময় মাঠের বারোটা বাজানো হয়েছে। তবু আমরা আশা ছাড়ছি না। এটিকে আন্তর্জাতিক মাঠে উন্নীত করার জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এরই মধ্যে আমাদের সংসদ সদস্য মোকতাদির চৌধুরী এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে চিঠি দিয়েছেন। আমরা জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে যোগাযোগ করছি নিয়মিত। আমরা মাঠের পরিকল্পনা, ড্রইং, যাবতীয় কাগজপত্র জমা দিয়েছি। ঢাকার কাছাকাছি হওয়ায় আমরা এ সুবিধা পাওয়ার আকুল আবেদন করছি। জেলার সর্বস্তরের ক্রীড়ামোদীরাও নিয়াজ স্টেডিয়ামকে আন্তর্জাতিক খেলার মাঠ হিসেবে দেখতে চান। ব্রিটিশ আমল থেকে ফুটবল, ক্রিকেট, বক্সিং, সাঁতারে ব্যাপক সমৃদ্ধ জেলা হলেও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কয়েক বছর আগে বন্ধ্যাত্ব গেছে। ২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে সেক্রেটারি মাহবুবুল বারী চৌধুরীর নেতৃত্বে গঠিত জেলা ক্রীড়া সংস্থার নতুন কমিটি দায়িত্ব নেয়ার পর তারা জেলা ক্রীড়াঙ্গনে নাড়া দিতে সক্ষম হন। স্থানীয় সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী ও জেলা প্রশাসনের সহায়তায় এরই মধ্যে তারা সফলতা অর্জন করেছেন। গত তিন বছরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিতাস নদীতে ফিরে এসেছে ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ, নিয়াজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ফুটবল ও ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। বিভাগীয় ও জাতীয় সব ধরনের প্রতিযোগিতামূলক খেলায় অংশ নিচ্ছে জেলা ক্রীড়া সংস্থার দল। জাতীয় ফুটবল ও ক্রিকেট টিমেও সুযোগ পাচ্ছে এখানকার খেলোয়াড়রা। জেলা ক্রিকেট একাডেমিও ক্রিকেটের উন্নয়নে নিয়মিত প্রশিক্ষণের আয়োজন করে আসছে স্থানীয়ভাবে। জাতীয়মানের প্রশিক্ষক পেলে ক্রিকেট একাডেমি আরও ভালো কাজ করতে পারবে বলে জানালেন একাডেমির সাধারণ সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস শামীম। গত বছর হয়েছে জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। এ বছরও শুরু হয়েছে জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন গত দুবছর ধরে জেলা ফুটবল লীগ করে আসছে বলে জানালেন সাধারণ সম্পাদক মহিম চৌধুরী। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহায়তায় নভেম্বরে আবারও এ লীগ শুরু হবে বলেও তিনি জানান। তবে জেলার সুহিলপুর, সুলতানপুর, চান্দুরা, কুট্রাপাড়াসহ বেশ কয়েকটি মাঠে ফুটবলের মৌসুমে বড় বড় টুর্নামেন্ট, লীগ হয় বলে তিনি জানান। মাঠগুলোর সংস্কার করা গেলে নিয়াজ স্টেডিয়ামনির্ভরতা কমানো যাবে বলে জানালেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য ও ফুটবল সংগঠক মোস্তাক ভূঞা। তিনি বলেন, শহরের এই কয়েকটি মাঠকে একটু যত্ন করলে খেলাধুলা যেমন বাড়ত, তেমনি নতুন নতুন খেলোয়াড় সৃষ্টি হতো। স্টেডিয়ামটিরও সংস্কার দরকার বলে তিনি মনে করেন। স্টেডিয়ামের রাস্তাটিও সংস্কারের দাবি জানান তিনি। স্পেশাল অলিম্পিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ক্রীড়াবিদরা প্রতিটি আন্তর্জাতিক আসরেই পুরস্কার নিয়ে আসছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রতিবন্ধী আন্দোলনের পথিকৃত ব্যক্তিত্ব সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আল-মামুন সরকার বলেন, স্পেশাল অলিম্পিকে আমাদের জেলার খেলোয়াড়রা প্রতি আসরেই জাতিকে সম্মান উপহার দিচ্ছে। পৃষ্ঠপোষকতা আরও বাড়াতে পারলে সফলতা আরও বাড়বে। জেলা প্রশাসক ড. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া শিল্প, সংস্কৃতি, ক্রীড়ার পীঠস্থান। ঐতিহ্যবাহী এ জেলার ক্রীড়ার ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনার জন্য আমরা নিয়মিত খেলাধুলার আয়োজন করছি। শীতকালে তা আরও বাড়বে। ক্রীড়াঙ্গনে যেসব ছোটখাটো সমস্যা রয়েছে, তা অচিরেই কেটে যাবে।(আগামীকাল জয়পুরহাট)
খেলা পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close