¦
ঢাকার জন্য তিন উল্লাস

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

টানা তৃতীয় রাউন্ডে ইনিংস ব্যবধানে জিতেছে ঢাকা বিভাগ। প্রথম রাউন্ডে ইনিংস ও ২১৪ রানে, দ্বিতীয় রাউন্ডে ইনিংস ও ২৪ রানে এবং বুধবার তৃতীয় রাউন্ডে ইনিংস ও ১৭৪ রানে। এদিকে টানা দুটি জয়ের পর তৃতীয় রাউন্ডে রংপুরের কাছে হেরেছে খুলনা। তৃতীয় রাউন্ডে রাজশাহী ও সিলেট এবং ঢাকা মেট্রো ও বরিশালের ম্যাচ ড্র হয়েছে। চতুর্থ ও শেষদিনে সেঞ্চুরি করেছেন সিলেটের রাহাতুল ফেরদৌস ও বরিশালের ফজলে রাব্বি।
টানা তৃতীয় রাউন্ডে ঝকঝকে পারফরম্যান্স ঢাকার। প্রথমে রানের পাহাড়ে উঠে ইনিংস ঘোষণা। বোলারদের দাপটে প্রতিপক্ষকে অল্প রানে অলআউট করে দেয়া, পরে বিশাল ব্যবধানে জয়ী। বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে চট্টগ্রামকে প্রথম ইনিংসে ১৫৫ রানে অলআউট করে ঢাকা। কাল ম্যাচের চতুর্থ দিন চট্টগ্রামকে দ্বিতীয় ইনিংসে ২৮৭ রানে অলআউট করেছে ঢাকা। এর আগে ঢাকা প্রথম ইনিংসে রনি তালুকদারের ডাবল সেঞ্চুরি এবং আবদুল মাজিদ ও শুভাগত হোমের সেঞ্চুরিতে পাঁচ উইকেটে ৬১৬ রানে ইনিংস ঘোষণা করে। ডাবল সেঞ্চুরি করা রনি তালুকদার ম্যাচসেরা।
বিকেএসপির দুই নম্বর মাঠে রাজশাহীর বিপক্ষে ফলোঅনে পড়ার পর তিন উইকেটে ৩৩৫ রান করে ম্যাচ ড্র করেছে সিলেট। সেঞ্চুরি (১০৬*) করেছেন রাহাতুল ফেরদৌস। প্রথম ইনিংসে সিলেট ৩২৪ রানে অলআউট হয়। এর আগে রাজশাহী প্রথম ইনিংসে করে ৪৮২ রান। ১৫৮ রান করা মাইশুকুর রহমান ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘আমি ঘরোয়া ক্রিকেটে রান করে যেতে চাই। জাতীয় দলে সুযোগ পাব কিনা সেটা নির্বাচকরাই ভালো বুঝবেন। পারফর্ম করাই আমার লক্ষ্য।’
মিরপুর স্টেডিয়ামে তৃতীয় ম্যাচে এসে হারল খুলনা। রংপুরের কাছে ১৯৩ রানে হেরেছে আবদুর রাজ্জাকের দল। মাহমুদুল হাসানের চার উইকেট ও সঞ্জিত সাহার দুই উইকেটে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১৬৩ রানে অলআউট হয় খুলনা। সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেন নুরুল হাসান। প্রথম ইনিংসে ২১৩ রান করে খুলনা। এর আগে রংপুর প্রথম ইনিংসে ৩১০ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫৯/৮-এ ইনিংস ঘোষণা করে।
ফতুল্লায় ঢাকা মেট্রো ও বরিশালের ম্যাচটি ড্র হয়েছে। ৩৮৬ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দুই উইকেটে ২৬৭ রান করলে ম্যাচ ড্র হয়ে যায়। ফজলে রাব্বি অপরাজিত সেঞ্চুরি (১০০*) করেন। ঢাকা মেট্রোর সাদমান ইসলাম ম্যাচসেরা হন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
রাজশাহী বিভাগ ও সিলেট বিভাগ
রাজশাহী প্রথম ইনিংস ৪৮২/১০, ১৪৯.৩ ওভারে (মাইশুকুর রহমান ১৫৮, হাবিবুর রহমান ৩২, জুনায়েদ সিদ্দিকী ১১২, তারেক খান ৪৯। আহমেদ সাদিকুর ২/১২৯, এনামুল হক জুনিয়র ৪/১৩৭, রাহাতুল ফেরদৌস ২/৪৭, অলক কাপালী ২/৮৭)। সিলেট প্রথম ইনিংস ৩২৪ ও ৩৩৫/৩, ৯৩ ওভারে (সায়েম ইসলাম ৬৭, ইমতিয়াজ হোসেন ৭৯, রাহাতুল ফেরদৌস ১০৬*, রাজিন সালেহ ৬৭। সাকলাইন সজীব ২/৮১, সানজামুল ইসলাম ১/৫৬)। ফল : ম্যাচ ড্র। ম্যান অব দ্য ম্যাচ : মাইশুকুর রহমান (রাজশাহী)।
ঢাকা বিভাগ ও চট্টগ্রাম বিভাগ
চট্টগ্রাম প্রথম ইনিংস ১৫৫/ ও ২৮৭/১০, ৯৯ ওভারে (ইরফান শুকুর ৭৪, তাসামুল হক ১১৪, নাজিমউদ্দিন ৩৮, সাইফুদ্দিন ২৭। দেওয়ান সাব্বির ৪/৪৪, মোশাররফ হোসেন ৩/৮৬)। ঢাকা বিভাগ প্রথম ইনিংস ৬১৬/৫ ডিক্লেয়ার (আবদুল মাজিদ ১১৩, রনি তালুকদার ২০১, রকিবুল হাসান ৮৯, শুভাগত হোম ১১৯। ইউনুস ২/১৫৫, নাঈম ইসলাম জুনিয়র ২/৬৮)। ফল : ঢাকা ইনিংস ও ১৭৪ রানে জয়ী। ম্যান অব দ্য ম্যাচ : রনি তালুকদার (ঢাকা)।
ঢাকা মেট্রো ও বরিশাল বিভাগ
ঢাকা মেট্রো প্রথম ইনিংস ৪০০ ও ২৪৭/৮ ডিক্লেয়ার (সাদমান ইসলাম ৮৯, আসিফ আহমেদ ৫৩, মেহরাব হোসেন ৫১। কামরুল ইসলাম ৩/৫৫, নূরুজ্জামান ১/১১)। বরিশাল প্রথম ইনিংস ২৬১ ও ২৬৭/২, ৬৯ ওভারে (শাহরিয়ার নাফীস ৭৮, সাইফ হাসান ২৮, ফজলে রাব্বি ১০০*, সজীব ৫৮*। আসিফ আহমেদ ২/৪১)। ফল : ম্যাচ ড্র। ম্যান অব দ্য ম্যাচ : সাদমান ইসলাম (ঢাকা মেট্রো)।
খুলনা বিভাগ ও রংপুর বিভাগ
রংপুর প্রথম ইনিংস ৩১০ ও ২৫৯/৮ ডিক্লেয়ার (তানভির হায়দার ৮৩, ধীমান ঘোষ ৬১, আরিফুল হক ২২। মোস্তাফিজুর রহমান ৪/৪৬, আবদুর রাজ্জাক ১/৮২)। খুলনা প্রথম ইনিংস ২১৩ ও ১৬৩/১০, ৫১ ওভারে (নুরুল হাসান ৬৩, ডলার মাহমুদ ২৩। শুভাশীষ রায় ২/২৯, মাহমুদুল হাসান ৪/৭১, সঞ্জিত সাহা ২/২২)। ফল : রংপুর ১৯৩ রানে জয়ী। ম্যান অব দ্য ম্যাচ : মাহমুদুল হাসান (রংপুর বিভাগ)।
 

খেলা পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close