¦

এইমাত্র পাওয়া

  • বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পার্শ্বে কোনাবাড়ি এলাকায় বাসে পেট্রোল বোমা হামলা: ৬ যাত্রী দগ্ধ ২ জনের অবস্থা আশংকাজনক
বিশ্বকাপ ক্রিকেট নিয়ে নিরুত্তাপ বরিশাল

প্রাচুর্য রানা, বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

অবরোধ-হরতালের প্রভাব পড়েছে বরিশালের বিশ্বকাপ ক্রিকেট-আনন্দে। পাড়ায়-মহল্লায় নেই তেমন আনন্দ-উল্লাস। ওঠে না চায়ের কাপে ক্রিকেটীয় ঝড়। বিক্রি নেই টেলিভিশন, জার্সি বা পতাকার। বরাবর পাকিস্তান-ভারত ক্রিকেট ম্যাচকে ঘিরে বরিশালের দর্শকদের মাঝে আগ্রহ থাকে তুঙ্গে। কিন্তু এবারের ম্যাচ নিয়ে কারও মধ্যেই কোনো আগ্রহ ছিল না। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আগে নগরীতে বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা থেকে বের করা হয় শুভেচ্ছা মিছিল। বিশেষ করে বাংলাদেশের ম্যাচের আগে বিশাল আকারের পতাকা নিয়ে মিছিল করে সমর্থকরা। আর যদি কোনো জয় পাওয়া যায়, তাহলে তো কথাই নেই। আনন্দ-উল্লাসে ফেটে পড়ে ক্রিকেটপ্রেমীরা। শুধু বাংলাদেশের পতাকাই নয়, অন্যান্য দেশের পতাকা নিয়েও আনন্দ করতে দেখা যেত। কিন্তু এবার সেসবের কিছুই নেই।
নগরীর বটতলা এলাকার বাসিন্দা হেলাল উদ্দিন জানান, গত বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সময়ও বটতলা এলাকার ক্রিকেটপ্রেমীরা বাংলাদেশের দুইশ ফুট দীর্ঘ পতাকা নিয়ে নগরীতে মিছিল বের করেন। এ বছর তার ছিটেফোঁটাও দেখা যাচ্ছে না। কাউনিয়া, আমানতগঞ্জ, দপ্তরখানা, বাজার রোড এলাকা থেকেও প্রতিবার পতাকা নিয়ে মিছিল করা হয়। ব্যতিক্রম ঘটেছে এবার। প্রভাব পড়েছে টেলিভিশনের বাজারেও। বরিশালের অন্যতম বৃহৎ শোরুম সনির ম্যানেজার মো. রুমি এবং সার্পের ম্যানেজার মাহবুবুর রহমান প্রতিদিন দুয়েকটি টেলিভিশন বিক্রির কথা জানালেও অপেক্ষাকৃত ছোট বিক্রেতা বাংলাবাজার এলাকার মোস্তফা ইলেকট্রনিক্সের মালিক মো. রাসেল বলেন, টেলিভিশনের ক্রেতা তেমন একটা নেই বললেই চলে। বিশ্বকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার পর টেলিভিশন বিক্রি বাড়বে বলে আশা করলেও সে আশায় গুঁড়েবালি। গত বছর শুধু বাংলাদেশেরই দুই হাজার জার্সি বিক্রি করেছিলেন নগরীর চকবাজারের আনন্দ স্পোর্টসের স্বত্বাধিকারী মিরাজ হোসেন মামুন। এছাড়া পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের জার্সি বিক্রি করেছেন। পাশাপাশি ছিল ক্রিকেটসামগ্রীরও ব্যাপক চাহিদা। অথচ এ বছর মাত্র পাঁচশ জার্সি দোকানে তুলেও সেগুলোর বিক্রি নিয়ে সন্দিহান তিনি। অন্য দেশের জার্সি তো দোকানে তোলেনইনি। হরতাল-অবরোধে মানুষ দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হওয়ায় ক্রেতা কম বলে তিনি জানান। চকবাজার এলাকার দরজি সালাম জানান, এই সময়টায় পতাকা তৈরি নিয়েই বেশি ব্যস্ত থাকতে হয়। সব থেকে বেশি আয় হয় দীর্ঘ পতকা তৈরিতে। প্রতিযোগিতা চলে দীর্ঘ পতাকা তৈরির। কিন্তু এ বছর ছোট ও মাঝারি সাইজের কিছু পতাকা তৈরি করেই তাকে ক্ষান্ত হতে হয়েছে। তবে আর কয়েক দিন গেলে বাজার ফিরে আসতে পারে বলে মনে করেন তিনি। এর আগে সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের খেলাগুলো প্রজেক্টরের মাধ্যমে প্রদর্শন করা হলেও এবার এর কোনো আয়োজনই করা হয়নি। ফলে প্রায় সবখানেই ছিল ক্রিকেটের নিরুত্তাপ পরিবেশ। এ বিষয়ে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিখিলচন্দ্র দাস জানান, আসলে বিষয়টি নিয়ে তেমন একটা তোড়জোড় না থাকায় প্রদর্শনের আয়োজন করা হয়নি। তবে সামনের ম্যাচগুলো প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি।
খেলা পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close