¦

এইমাত্র পাওয়া

  • বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পার্শ্বে কোনাবাড়ি এলাকায় বাসে পেট্রোল বোমা হামলা: ৬ যাত্রী দগ্ধ ২ জনের অবস্থা আশংকাজনক
মাশরাফিদের চাপ জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

শুধু আফগানিস্তান নয়, ক্যানবেরার মানুকা ওভালে কাল বাংলাদেশের আরেক প্রতিপক্ষ ছিল চাপ। ধারে-ভারে নিজেদের চেয়ে দুর্বল দলের বিপক্ষে জয়টা যখন আবশ্যকীয় শর্ত হয়ে দাঁড়ায়, এমন ম্যাচে খেই হারিয়ে ফেলার নজির কম নেই বাংলাদেশের। ২০০৩ বিশ্বকাপে কানাডা কিংবা ২০০৭ বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে হারের দুঃস্মৃতি কখনোই ভোলার নয়। প্রত্যাশার চাপ কখনও কখনও খুব অসহনীয় হয়ে ওঠে টাইগারদের জন্য। এবার চাপটি ছিল আরও বেশি। বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচটা সব সময়ই চাপের। এর আগে আফগানদের বিপক্ষে একমাত্র ওয়ানডেতে বাংলাদেশ হেরেছিল বলে ম্যাচটা নিয়ে নানামুখী শংকা ছিল। তাছাড়া বিশ্বকাপ অভিষেকেই চমক দেখানোর প্রত্যয়ে সব চাপ মাশরাফিদের কাঁধে চাপিয়ে দিয়েছিলেন আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। সেই চাপ জয়ের চ্যালেঞ্জটা হাসি মুখেই নিল টাইগাররা এবং দেখিয়ে দিল চাপকে প্রেরণা বানাতেও জানে তারা। ‘আফগান-জুজু’ জয় করে দাপুটে জয় নিয়েই বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করল বাংলাদেশ।
প্রথম ম্যাচে ১০৫ রানের বিশাল জয়ে বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাসের পালে লাগল জোর হাওয়া। শেষ আটের স্বপ্ন এখন দেখতেই পারেন মাশরাফিরা! কথাটা বাড়াবাড়ি মনে হতে পারে, কিন্তু মানুষ তো তার স্বপ্নের সমান বড়। যেকোনো খেলায় আÍবিশ্বাস খুব জরুরি। নিজের সামর্থ্য নিয়ে মনে সংশয় ঢুকে গেলে, হারার আগেই হার নিশ্চিত হয়ে যায়। আÍবিশ্বাসের সেই রসদ কাল পেয়ে গেছে বাংলাদেশ। অন্তত স্কটল্যান্ডকে নিয়ে আর নির্ঘুম রাত কাটাতে হবে না সাকিব তামিমদের। সব জল্পনা-কল্পনা, শংকা ভুল প্রমাণ করে আফগানিস্তানের সঙ্গে নিজেদের ব্যবধানটা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তান সম্ভাবনাময় দল হতে পারে, কিন্তু ক্রিকেট মানচিত্রে তাদের অবস্থান বাংলাদেশের অনেক পেছনেই।
ক্যানবেরায় বাংলাদেশ যে নিখুঁত ক্রিকেট খেলেছে তা নয়, তবে আক্ষেপের চেয়ে প্রাপ্তির পাল্লাটাই ভারি। সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি চাপকে জয় করতে পারা। শুরুতে আফগানদের ভয়ডরহীন ক্রিকেট বাংলাদেশের সমর্থকদের মনে কাঁপুনিই ধরিয়ে দিয়েছিল। এশিয়া কাপের দুঃস্মৃতি ফিরিয়ে আনার সম্ভাবনাও তৈরি করেছিলেন আফগান বোলাররা। কিন্তু বিপর্যয় সামলে পাল্টা আঘাতে আফগানদের হাসি কেড়ে নেন মুশফিকুর রহিম (৭১) ও সাকিব আল হাসান (৬৩)। পঞ্চম উইকেটে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পক্ষে রেকর্ড ১১৪ রানের জুটি গড়ে দলকে কক্ষপথে ফেরান তারা। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ৪ হাজার রানের মাইলফলকও পেরিয়ে যান সাকিব। ম্যাচসেরা মুশফিকের সঙ্গে তার অনবদ্য যুগলবন্দি বাংলাদেশকে এনে দেয় ২৬৭ রানের পুঁজি।
সেই পুঁজিটাকেই আফগানদের জন্য হিমালয় বানিয়ে ফেলেন বোলাররা। অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা ও রুবেল হোসেনের তোপে তিন রানে তিন উইকেট খুইয়ে বসা আফগানিস্তান আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে তাদের দৌড় শেষ হয় ১৬২-তে। বাংলাদেশ টস জেতার পরই ধারাভাষ্যকার সৌরভ গাঙ্গুলী বলেছিলেন, ‘আফগানিস্তান দারুণ লড়াকু দল, কিন্তু বাংলাদেশ তাদের চেয়ে অনেক ভালো দল। জিতবে বলেই বাংলাদেশকে আমি সমর্থন করছি।’ দাদাকে হতাশ করেননি মাশরাফিরা। এবার নিজেদের আরও উঁচুতে তুলে ধরার পালা।
 

খেলা পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close