¦
বারবার সাতবার ব্যর্থ রিয়াল

| প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

একবার-দু’বার হলে কথা ছিল, তাই বলে সাতবার! এ মৌসুমে সাতবার অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মুখোমুখি হয়েও জয়হীন রিয়াল মাদ্রিদ। অ্যাটলেটিকোর গেরো খুলতে আবারও ব্যর্থ রিয়াল। আরও একবার মাদ্রিদ ডার্বিতে আটকে গেলেন রোনাল্ডোরা। এবার অবশ্য ফল কারও পক্ষেই যায়নি। মঙ্গলবার অ্যাটলেটিকোর মাঠে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শেষ আটের প্রথম লেগ গোলশূন্য ড্র হয়েছে। গোল না হলেও অগ্নিগর্ভ ম্যাচের সব উপাদানই ছিল মাদ্রিদ ডার্বিতে। বিতর্কিত রেফারিংয়ে ক্ষণে-ক্ষণে উত্তেজনা ছড়ানোর পাশাপাশি ঝরেছে রক্তও! প্রাণবন্ত ম্যাচে শুধু গোলের দেখাটাই মেলেনি। ফলে দুই নগরপ্রতিদ্বন্দ্বীর ভাগ্য নির্ধারিত হবে ২২ এপ্রিলের ফিরতি লেগে। শেষ আটের আরেক লড়াইয়ে প্রথম লেগে ঘরের মাঠে মোনাকোকে ১-০ গোলে হারিয়েছে জুভেন্টাস।
চলতি মৌসুমে অ্যাটলেটিকোর মাঠ ভিসেন্তে ক্যালডেরনে চার ম্যাচে একবারও গোল করতে পারেনি রিয়াল। তবে ফিরতি লেগ বার্নাব্যুতে হওয়ায় কিছুটা এগিয়ে থাকবেন রোনাল্ডোরা। অ্যাটলেটিকোর জন্য আশার কথা হল, ফিরতি ম্যাচে গোল করে যে কোনো স্কোরলাইনে ড্র করতে পারলেও অ্যাওয়ে গোলের অগ্রগামিতায় সেমিফাইনালে চলে যাবে তারা। প্রথম লেগের ফল নিয়ে দু’দলেরই কিছুটা হতাশা আছে। প্রথমার্ধে যেভাবে স্বাগতিকদের ওপর হামলে পড়েছিল রিয়াল, তাতে গোটা চারেক গোল পেতে পারত তারা। কিন্তু অবিশ্বাস্য সব সেভ করে অ্যাটলেটিকোকে বাঁচিয়ে দেন গোলকিপার ইয়ান ওবাক।
দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। এ সময় বিতর্কিত রেফারিং হতাশ করে স্বাগতিকদের। রিয়াল ডিফেন্ডার সার্গিও রামোসের কনুইয়ের আঘাতে রক্তাক্ত হতে হয় অ্যাটলেটিকো ফরোয়ার্ড মারিও মান্দজুকিচকে। আঘাতটা ইচ্ছাকৃত ছিল না বলে রামোসকে কোনো শাস্তি দেননি রেফারি। এরপর বক্সের মধ্যে মান্দজুকিচের পেটে ঘুষি মেরে পার পেয়ে যান আরেক রিয়াল ডিফেন্ডার দানি কারভাজাল। নিশ্চিত লাল কার্ডের পাশাপাশি পেনাল্টি পেতে পারত স্বাগতিকরা। কিন্তু ঘটনাটি খেয়ালই করেননি সার্বিয়ান রেফারি মিলোরাদ মাজিচ! এখানেই শেষ নয়। কারভাজাল একবার কামড়ে দিতে গিয়েছিলেন মান্দজুকিচকে! সব অভিযোগই অবশ্য অস্বীকার করেছেন রিয়াল ডিফেন্ডার। ওদিকে ম্যাচ শেষে সার্বিয়ান রেফারিকে নিয়ে ঝাঁঝালো মন্তব্য করে শাস্তির শংকায় আছেন অ্যাটলেটিকো মিডফিল্ডার মারিও সুয়ারেজ। তবে রেফারিং বিতর্কে না জড়িয়ে দুই কোচই ফিরতি ম্যাচের দিকে মনোযোগ দিতে বলেছেন শিষ্যদের।
প্রথমার্ধের পারফরম্যান্স থেকে আত্মবিশ্বাসের রসদ খুঁজছেন রিয়াল বস কার্লো আন্সেলোত্তি। প্রথমার্ধে সত্যিই দুর্দান্ত খেলেছে রিয়াল। কিন্তু অ্যাটলেটিকোর শেষপ্রহরী ওবাক ছিলেন আরও দুর্দান্ত। একের পর এক চোখ ধাঁধানো সেভ করে হতাশায় ডোবান গ্যারেথ বেল, জেমস রদ্রিগেজ, ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো ও করিম বেনজেমাকে। দ্বিতীয়র্ধে রিয়াল গোলকিপার ইকার ক্যাসিয়াসও ভালো দুটি সেভ করেছেন। তবে প্রথম লেগের হিরো নিঃসন্দেহে ওবাক। অ্যাটলেটিকো বস ডিয়েগো সিমিওনের মতো আন্সেলোত্তিও গালভরা প্রশংসা করেছেন এই তরুণ গোলকিপারের। আরেকটি ব্যাপারে একমত দুই কোচ- লড়াই এখনও উন্মুক্ত।
ওদিকে প্রথম লেগ ১-০ গোলে জিতলেও নিজের দলকে খুব বেশি এগিয়ে রাখতে পারছেন না জুভেন্টাস কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি। ঘরের মাঠে মোনাকোকে হারাতে রীতিমতো ঘাম ছুটে গেছে তুরিনের বুড়িদের। ৫৭ মিনিটে বিতর্কিত পেনাল্টি থেকে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন চিলিয়ান তারকা আর্তুরো
ভিদাল। এএফপি/ওয়েবসাইট।
 

খেলা পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close