¦

এইমাত্র পাওয়া

  • হালনাগাদ ভোটার তালিকার খসড়া প্রকাশ; নতুন ভোটার ৪৩ লাখ ৬৮ হাজার ৪৭ জন
সাকিবকে রেখে দিল কেকেআর

| প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৬

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) নবম আসরের পর্দা উঠবে আগামী ৯ এপ্রিল। তার আগে ফেব্রুয়ারিতে হবে এবারের আইপিএলরে নিলাম। উন্মুক্ত নিলামের আগে বৃহস্পতিবার ছিল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর দল গুছিয়ে নেয়ার শেষ দিন। টুর্নামেন্টের নতুন দুটি দল পুনে ও রাজকোর্ট বাদে বাকি ছয় ফ্র্যাঞ্চাইজিকে এদিন আগের আসরের খেলোয়াড়দের মধ্যে কাকে রাখবে আর কাকে ছেড়ে দেবে- সেই তালিকা জমা দিতে হয়েছে। আগের আসরের দশ ক্রিকেটারকে ছেড়ে দিলেও টি ২০ ও ওয়ানডের বর্তমান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে এবারও ধরে রেখেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। বাংলাদেশের এই চ্যাম্পিয়ন অলরাউন্ডারকে আইপিএলের আগামী মৌসুমেও কেকেআরের জার্সিতে দেখ যাবে। অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য আন্তর্জাতকি ক্রিকেট থেকে আপাতত নিষিদ্ধ ক্যারিবীয় স্পিনার সুনীল নারিনকেও দলে রেখে দিয়েছে কেকেআর। অ্যাকশন শুধরে নারিন আবার বল করতে পারবেন বলে বিশ্বাস নাইট শিবিরের। পরশু ছয় ফ্র্যাঞ্চাইজি মিলে মোট ১০১ জন খেলোয়াড়কে দলে রেখে দিয়েছে, আর ছেড়ে দিয়েছে ৬১ জনকে।
ছেড়ে দেয়ার তালিকায় আছেন ডেল স্টেইন, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, যুবরাজ সিং, কেভিন পিটারসেনসহ অনেক বড় নাম। তবে তদের মধ্যে যুবরাজ ও ম্যাথিউসের বিষয়টা একটু ভিন্ন। গতবারের নিলামে ভারতীয় ও বিদেশী দুই কোটায় সবচেয়ে দামি দুই খেলোয়াড় ছিলেন দিল্লির এই দুই খেলোয়াড়। অথচ এক মৌসুম পরই কিনা নতুন দলের খোঁজে নামতে হচ্ছে তাদের। অবশ্য গতবার যুবরাজ-ম্যাথিউসের পারফরম্যান্সটাও ছিল আকাশচুম্বী দামের ঠিক বিপরীত দিকে। ১৩ ইনিংসে ২০-রও কম গড়ে ২৪৮ রান যুবরাজের। বোলিং তো করেছেনই সাকুল্যে নয় ওভার। ম্যাথিউসের ১১ ম্যাচে ব্যাট হাতে ১৪৪ রানের সঙ্গে বল হাতে নিয়েছেন মাত্র ৭ উইকেট। ইকোনমি রেটও ছিল ৮.২০! এই দু’জনকে ছেড়ে দিয়ে এবার অন্য কাউকে নিলাম থেকে টেনে নেবে দিল্লি। তবে পুরোটাই তো ভাগ্যের খেলা। সাকিবকে নিয়ে এমন খেলায় নামতেই চায়নি কলকাতা। গতবারের পারফরম্যান্স হয়তো অতটা ভালো হয়নি, কিন্তু সাকিব দলে থাকা মানেই তো একটা নির্ভরতা। বল হাতে উইকেট নেয়া, রান কমানোর ক্ষেত্রে সাকিবের হাতে বল তুলে দিয়ে কিছুটা নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন অধিনায়ক। আর কোনো দিন যদি বোলিংটা ভালো না হয়, সে ক্ষেত্রে ক্ষতিটা পুষিয়ে দেয়ার জন্য ব্যাটিং তো আছেই। এমন একজনকে কেন হাতছাড়া করতে চাইবে কলকাতা। ২০১১ আইপিএলে শাহরুখ খানের ফ্র্যাঞ্চাইজি প্রথম কিনে নিয়েছিল সাকিবকে। সাধারণত চুক্তি তিন বছরের হয়, এ সময়ের মধ্যে দল না ছাড়লে ওই দলেই থাকেন একজন খেলোয়াড়। চুক্তির পুরো সময়টা সাকিবকে রেখে দিয়েছিল কলকাতা। ২০১৪ সালে চুক্তির মেয়াদ শেষে ছেড়ে দিয়ে দিল্লির সঙ্গে তুমুল প্রতিযোগিতার পর আবারও ২ কোটি ৮০ লাখ রুপিতে বাংলাদেশী অলরাউন্ডারকে কিনে নিয়েছিল দু’বারের আইপিএল জয়ী দলটি। তার ফল তো হাতেনাতেই পেল। ওই মৌসুমে ১৩ ম্যাচে সাকিবের ৩২.৪২ গড়ে ২২৭ রান আর ৬.৬৮ গড়ে ১১ উইকেট কলকাতাকে দ্বিতীয় আইপিএল শিরোপা জিততে সাহায্য করেছে। ওয়েবসাইট।
 

খেলা পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close