¦

এইমাত্র পাওয়া

  • চাঁদা না দেয়ায় নরসিংদীর পলাশে সন্ত্রাসীদের হামলায় সাবেক ফুটবলার নাদিরুজ্জামান খন্দকার নিহত
নারী সংবাদ

| প্রকাশ : ২৫ মে ২০১৫

নারীর মাতৃত্বের দায় সমাজেরও
নারীর মাতৃত্বের দায় শুধু নারীর নয়, সমাজেরও। নারীর স্বাস্থ্য অধিকার বিষয়টি বাজেটে কীভাবে এসেছে এবং স্বাস্থ্যখাতে নারীর স্বাস্থ্যের কোন বিষয়গুলোর ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে সেগুলোও আমাদের দেখতে হবে। নারীর মানবাধিকার, নারীর ক্ষমতায়নের সঙ্গে স্বাস্থ্যও সম্পর্কিত। কাজেই নারীর মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সুফিয়া কামাল ভবন মিলনায়তনে ২১ মে দুপুরে নারী স্বাস্থ্য অধিকার প্রেক্ষিত : মহিলা পরিষদের ভবিষ্যৎ কর্মসূচি বিষয়ে চিকিৎসকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভানেত্রী আয়শা খানম।
কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেমের মতে, সরকারিভাবে বলা আছে মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ কিন্তু এখন সেখানে সরকার বলছে বিয়ের বয়স ১৮ হলেও চাইলে অভিভাবক ১৬ বছরে মেয়েদের বিয়ে দিতে পারেন। কিন্তু জানা গেছে, ১৫ বছরেও বিয়ে দিতে পারে এমন একটি পদক্ষেপ মন্ত্রণালয় গ্রহণ করতে যাচ্ছে। যদি তাই হয়, তাহলে এর পরিণতি নারীদের জন্য ভয়াবহ হবে।
ডা. লতিফা শামসুদ্দিন বলেন, আমাদের দেশে দেখা যায়, জন্মের আগে যদি জানতে পারে, গর্ভের বাচ্চাটি মেয়েশিশু তাহলে কখনও কখনও পরিবারের সবাই এমনকি মা-ও সেই শিশুর গর্ভপাত ঘটাতে চায়।
ডা. বিলকিস বেগম চৌধুরী বলেন, কায়রো জনসংখ্যা উন্নয়ন সম্মেলনের ২১ বছর হয়েছে, ২০ বছর হয়েছে বেইজিং কর্মপরিকল্পনার। কিন্তু এখনও যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্যের ওপর নারীর নিজের অধিকার নেই।
ডা. মেখলা সরকারের মতে, একজন নারী তার জীবনের প্রতিটি স্তরে শারীরিক এবং মানসিকভাবে নির্যাতনের শিকার হয়। কিন্তু সে কাউকে বলতে পারে না। তাই ছোট থেকেই নারীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।
ডা. লায়লা আরজুমান্দ বানু জানান, হাওর, বাঁওড়, বিল এবং বস্তি এলাকায় নারীর প্রজনন ও যৌন স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করতে হবে।
ডা. রওশন আরার মতে, ফরমালিন ও কেমিক্যালযুক্ত খাবার খাওয়ার ফলে বিকলাঙ্গ শিশু জন্মগ্রহণ করছে। সেসঙ্গে বাড়ছে গর্ভপাতের হার। এই অবস্থা থেকে বের হয়ে আসার জন্য সরকারকে পদক্ষেপ নিতে হবে।
নারী শ্রমিকদের অংশগ্রহণ কম
জন্ম ও মৃত্যুহার যদি দ্রুত কমে তাহলে জনসংখ্যার বয়স কাঠামোতে বড় পরিবর্তন আসে। এর ফলে অন্যের ওপর নির্ভরশীল জনসংখ্যার পরিমাণ কমে। নির্ভরশীল জনসংখ্যার হার যত কম হবে, ততই অর্থনীতির জন্য সুফল বয়ে আনবে। যুব জনসংখ্যা ও যুব জনসংখ্যার হার বাড়লে অর্থনীতির চাকা ততই মসৃণ হবে।
সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে ইউএনএফপিএর আয়োজনে দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতার মাধ্যমে জনমিতিক পরিবর্তন থেকে অর্থনৈতিক লাভ-বিষয়ক অধিবেশনে ‘গ্লোবাল পারসপেকটিভস অন দ্য ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড’ শীর্ষক তথ্য উপস্থাপন করেন ইউএনএফপিএ’র এশীয় প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলের জনসংখ্যা ও উন্নয়নবিষয়ক উপদেষ্টা ক্রিস্টোফার লেফ্রাংক।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক বরকত-ই-খুদার মতে, বাংলাদেশের জনমিতিক পরিবর্তনে অর্থনৈতিক সুফল পেতে হলে নীতি, অর্থায়ন ও সুশাসনের পাশাপাশি মানসম্পন্ন শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা দরকার।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক মো. বেলাল হোসেন জনসংখ্যা পরিবর্তনের প্রভাব নিয়ে সমীক্ষার ফল উপস্থাপনে বলেন, জনমিতিক লাভ পেতে হলে মানসম্পন্ন শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা, অর্থায়ন এবং সুশাসন এই চারটি বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে।
বিআইডিএসের গবেষণা পরিচালক রুশিদান ইসলাম রহমানের মতে, নারী শ্রমিকদের অংশগ্রহণ খুবই নিুগতি। শতকরা ৩৩ ভাগ। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য শামসুল আলমের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ইউএনএফপিএ’র বাংলাদেশের প্রতিনিধি আর্জিন্টিনা মাতাভেল, বিশ্বব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ সালাম জায়েদি।
সুরঞ্জনা ডেস্ক
 

সুরঞ্জনা পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close