¦
স্মরণে হুমায়ুন ফরীদি

| প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

১৯৮১ সালের কথা। আমি তখন লিবিয়ায় তিন বছর চাকরি করে ঢাকায় ফিরেছি। তো কিছু মালপত্র জাহাজে এসেছিল বিধায় সেই মাল আনার জন্য আমি একটি এজেন্সিতে গিয়েছিলাম। সেখানে বারান্দায় একা একা হাঁটছিলাম আমি। হঠাৎ আমাকে কেউ একজন সালাম দিলেন, আমি সালামের উত্তর দিতেই তিনি আমাকে বললেন, ‘হায়াত ভাই, আপনি আমাকে চিনবেন না। আমার নাম হুমায়ুন ফরীদি। আমি টুকটাক অভিনয় করি। করার চেষ্টা করি।’ তো সেদিনই আসলে ফরীদির সঙ্গে আমার প্রথম পরিচয়। এরই মধ্যে জানলাম যে তিন বছর আমি দেশে ছিলাম না সে তিন বছরে ফরীদি বেশকিছু নাটকে অভিনয় করে আলোচনায় চলে এসেছে। যাই হোক, একদিন প্রয়াত পরিচালক আতিকুল হক চৌধুরী ভাইয়ের একটি নাটকে আমার সঙ্গে ফরীদি প্রথম কাজ করে। একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে দেখলাম বেশ ভালো অভিনয় করছে। তখন বুঝলাম অভিনয়ে তার খুব দক্ষতা। চরিত্রানুযায়ী ফরীদি নিজেকে উপস্থাপন করতে পারে। যাই হোক তার সেই প্রতিভার স্বাক্ষর দেখেছি পরবর্তীতে চলচ্চিত্রেও। অভিনয়ে ফরীদির যে উদ্ভাবনী ক্ষমতা ছিল তা অতুলনীয়, অনন্য। ফরীদি সুবর্ণার সঙ্গে আমাদের পারিবারিক যোগাযোগ ছিল। কিন্তু ফরীদির এই অসময়ে চলে যাওয়াটা আমাদের দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। ক্ষতিগ্রস্ত করেছে আমাদের মঞ্চ, নাটক ও সিনেমা অঙ্গনকে। একজন হুমায়ুন ফরীদির মতো মেধাবী শিল্পীর অকাল পতন হয়েছে, আমরা আর কারও এমন পতন চাই না।
 

তারাঝিলমিল পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close