¦
মুনা টিভির জনপ্রিয় অনুষ্ঠান

সাদিয়া ন্যান্সি | প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

আমাদের চারপাশে প্রতিনিয়ত ঘটছে নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড। এসব ঘটনার শিকার হচ্ছে জনসাধারণ। ধ্বংসের দিকে যাচ্ছে যুব সমাজ। সমাজের অপরাধ অনুসন্ধানে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রচার হচ্ছে। সেসব অনুষ্ঠানের মধ্যে টিআরপিতে শীর্ষে রয়েছে যমুনা টেলিভিশনে প্রচারিত ইনভেস্টিগেশন ৩৬০ ডিগ্রি। ২০০৮ সালে যমুনা টিভির পরীক্ষামূলক সম্প্রচারের শুরু থেকেই চ্যানেলটির চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জনস্বার্থে একটি ভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানের ধারণা দেন। সেই ভাবনা থেকে তৈরি করা হয় একটি অনুসন্ধানী টিম। অনুষ্ঠানটির বিভাগীয় এডিটর হিসেবে অনুসন্ধানী কার্যক্রম পরিচালনা করেছিলেন সাংবাদিক মিজান মালিকসহ সাতজন রিপোর্টার। তাদের অনুসন্ধানের বিষয়গুলোতে উঠে আসে কিডনি পাচার, বাজার সিন্ডিকেট, মাদক পাচার, হ্যাকিং, প্রতারণা, পর্নোগ্রাফি, অস্ত্র চালানের মতো সমাজের নানান অপরাধ। অনুসন্ধানের শুরুটা ভালো হলেও শেষটা খুব একটা শুভকর ছিল না । তাই অনুষ্ঠানের যাত্রা শুরু হলেও তা প্রচার সম্ভব হয়নি, কারণ ২০০৯ সালে যমুনা টিভির সম্প্রচার বন্ধ করে দেয় সরকার। এরপর অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে যমুনা টিভির সম্প্রচার নতুন করে শুরু হয়। গেল বছরের ১৪ এপ্রিল অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রত্যেকটি পর্বে টিম সদস্যরা চেষ্টা করেন সমাজের সত্য ঘটনাগুলোকে অনুসন্ধান করার এবং তা সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরার। এ প্রসঙ্গে মিজান মালিক বলেন, আমরা সব সময় জনগণের পাশে থাকতে চাই। আমাদের এই অনুষ্ঠানের মূল লক্ষ্যই জনস্বার্থ রক্ষা করা। তাদের জন্যই আমাদের এই প্রচেষ্টা। অনুসন্ধানী টিমের অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য ব্যবহার করা হয় আধুনিক প্রযুক্তিগত বিভিন্ন পন্থা। বর্তমানে অনুষ্ঠান প্রধানের দায়িত্বে আছেন মিজান মালিক, ডেপুটি এডিটর হিসেবে আছেন অপূর্ব আলাউদ্দিন। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করছেন মীর আহসান। অনেকেই মনে করেন অনুসন্ধানী অনুষ্ঠান তালাশকে অনুকরণ করেই ৩৬০ ডিগ্রির পরিকল্পনা করা হয়েছে। এমন প্রশ্নের উত্তরে মিজান মালিক জানান, আমার মনে হয় এমন ধারণার ভিত্তি মোটেই নেই। তালাশকে নকল করে ৩৬০ ডিগ্রি মোটেই হয়নি। বরং আমাদের অনুষ্ঠানের ধারণা নিয়েই তালাশ তৈরি করা হয়েছে। আমাদের হাতে প্রায় দুশ আইডিয়া ছিল, এর মধ্যে প্রায় পঞ্চাশটি ধারণা নিয়ে কাজ করেছে তালাশ টিম। এখানে আমরা অনুকরণ করিনি। বর্তমানে এ টিমের চৌদ্দজন সদস্যের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল ৩৬০ ডিগ্রি। সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটি শেষ করতে বেশ অনেকগুলো ধাপ পেরিয়ে যেতে হয় -এমনটাই বলেন মিজান মালিক। তিনি আরও জানান, প্রথমে আমরা সবাই মিলে একটি বিষয়ের ওপর গবেষণা করে বিষয়টি নির্ধারণ করি, পরবর্তীতে সে অনুযায়ী পরিকল্পনা করি, বিষয়টির আউটলাইন তৈরি করি। টিমের যার যার দায়িত্ব ভাগ করে মাঠপর্যায়ে বিভিন্ন উপকরণ সংগ্রহ করে সেগুলো বিশ্লেষণ করি। পরবর্তীতে আরও কিছু ধাপ পেরিয়ে সর্বশেষ আমরা আলোর মুখ দেখতে পাই। দীর্ঘ এক মাস গবেষণা পরিকল্পনা এবং সে অনুযায়ী কাজ করার পর সফলতা অর্জন করেন আর এই সফলতার জন্য অনেক সমস্যার মুখোমুখিও হতে হয় টিম সদস্যদের। অপরাধ-অপকর্মে ছেয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আমাদের দেশের নেতিবাচক বিষয়গুলো সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরছে ইনভেস্টিগেশন ৩৬০ ডিগ্রি। এর মাধ্যমে কিছুটা হলেও বাড়ছে জনসচেতনতা, কমছে জনদুর্ভোগ।
তারাঝিলমিল পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close