¦
পারবেন বিদ্যা!

পিয়াস রায় | প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

গেল বছরটা বেশ ফালতু একটা সময় গেছে অভিনেত্রী বিদ্যা বালানের। তার আগের বছরটাও যে খুব একটা ভালো গেছে তা বলা যাবে না। কিন্তু ২০১৪ যেন একেবারেই যাচ্ছেতাই। অতিরিক্ত প্রত্যাশার ফল ‘শাদী কা সাইড ইফেক্ট’ যেমন মুখ থুবড়ে পড়েছে। আর অন্যদিকে যে ববি জাসুস নিয়ে বহুদিন গুঞ্জন আর এত আলোড়ন সেটা এতটাই বাজেভাবে বক্স অফিসের ব্যর্থতার দাগ কাটল সেটা আর নতুন করে না হয় নাইবা বলা হল।
তবে এসব ছোটখাটো ব্যর্থতায় যে খুব একটা মুড অফ হয়েছে বলিউড কন্যার তা অবশ্য নয়। বরং পুরনো সব ব্যর্থতাকে মাটি চাপা দিয়ে তবেই সফলতাকে বরণ করে নিতে প্রস্তুত বিদ্যা। এবার তার যথাযোগ্য উপলক্ষও অবশ্য হাতের কাছেই প্রস্তুত। একদিকে মহিত সুরী। অন্যদিকে আরেক কিংবদন্তি সুভাষ ঘাই। আর এ দুই হিটমেকার মাস্টারমাইন্ডের সম্মিলিত প্রজেক্ট ‘হামারী আধুরী কাহানী’র পর্দায় তাই অনেক বেশি সাবলিল বিদ্যা। তবে ভয় একটা বিষয়ে থেকেই যায়। গেল বছরে ‘ঘনচক্কর’ ছবিতে যে বিদ্যা ইমরান হাশমীর জুটিকে প্রত্যাখ্যান করেছে বলিউডি দর্শক সেই দর্শক আবার নতুন করে ঠিকঠাক মেনে নেবে তো তাদের নতুন এ ছবিতে। এ সম্পর্কে খুব একটা যে বিচলিত বিদ্যা তা নয়। সেই অভয়ের বার্তা অবশ্য শুনিয়ে দিলেন ছবির গল্পের রূপকার সুভাষ ঘাই নিজেই। একটা অনবদ্য গল্পই পারে একটা ছবিকে সফলতার আকাক্সক্ষা পূরণে সফল করতে। আর সেই গল্পের চরিত্রে বিদ্যা একজন সম্পূর্ণ ভারতীয় নারীর রূপ নিলে তবে তো পোয়াবারো। আর তাই প্রত্যাশাও নাকি ছবিটি সংশ্লিষ্ট সববার একশ’তে একশ’। তবে অদূর ভবিষ্যতের বাস্তবতা কি দাঁড়ায় সেটা অবশ্য এখনও দেখার বিষয়। বিদ্যার যে উচ্চাকাক্সক্ষা ছবিটিকে ঘিরে, মহিত সুরির পরিচালনা আর মহেশ ভাটের গল্প পারবে কি সেই চৌকাঠ পেরুতে?
তবে খালি অভিনয়ের গণ্ডিতে আর নিজেকে বেঁধে রাখছেন না মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত ইন্ডিয়ান ফিল্ম ফ্যাস্টিভ্যালে বলিউডি সিনেমার এ দূত। বরং পাশাপাশি নাম লেখাচ্ছেন অনুষ্ঠান পরিচালনাতেও। মার্কিনি টেলিভিশন নেটওয়ার্কের নির্মাণে অপরাহ উইনফ্রে শো ধাঁচের একটি রিয়েলিটি টক শোর সঞ্চালনায় নামছেন বিদ্যা এমনই একটি খবর জানায় মুম্বাই মিরর। তবে তা কতটুকু সত্যি আর কতটুকু ধোপদুরস্ত মিথ্যা সেটা অবশ্য এখনও নিশ্চিত জানা যায়নি কোনো মাধ্যম থেকেই।
তবে বিদ্যা যে মাধুরী কিংবা শ্রীদেবীর মতো বলিউডি সিনেমার রানী হতে চলেছেন সেই বিষয়টা একটি মাত্রা অতিক্রম করল সম্প্রতি। মাধুরী কিংবা শ্রীদেবীর মতো বিদ্যার নামনির্ভর সিনেমাও এখন আসছে বাজারে। তেলেগু একটি ছবি সম্প্রতি নির্মাণ হচ্ছে ‘হোয়ার ইজ বিদ্যা বালান’, আর তাকে ঘিরে বিদ্যার মন্তব্য জানতে চাওয়া হলে নিপাট জবাবে বিদ্যা জানান, ‘খারাব কী ভালোই তো’। কিন্তু তার নামকে ঘিরে ব্যবসা হচ্ছে এটা কি মেনে নেবেন? বিদ্যার অবশ্য দরাজ মন্তব্য, ‘ওতে আমার কিছু আসে যায় না।’
আর মেলবোর্নের সেই ফিল্ম ফ্যাস্টিভেলে গিয়ে বিদ্যা অনেকের মতোই তার মতো দিলেন নারীর প্রতি অত্যাচার ও নিপীড়ন বন্ধে নারীর স্বউদ্যোগে স্বীয় শক্তিতে বলিয়ান হওয়ার ব্যাপারে। দিপীকার ‘মাই চয়েজ’-এর বিপরীতে অনেকে বিরুদ্ধ মত জানালেও, বিদ্যার সেই দৃপ্ত বক্তব্যের বিপরীতে কাউকেই তেমন আর মন্তব্য করতে জানা যায়নি, ব্যক্তিত্বশালী বিদ্যা বলে কথা। তবে সব কাজের কথার পর ব্যক্তিগত জীবনে আদিত্য রায় কাপুরের সঙ্গে বৈবাহিক জীবন নিয়ে বিদ্যার নীরবতা নতুন করে আর কোনো কাহিনীর জন্ম দেয়নি এ সময়ে। গেল বছর হঠাৎ বিদ্যার হাসপাতাল ভ্রমণকে ঘিরে মাতৃত্বের গুজব তুললেও সেটা সাময়িকভাবে সিনেমার পাবলিসিটি স্টান্টেই হয়তো ছাপ ফেলেছে। কিন্তু গুজবের মাতৃত্ব মাঠে মারা গেছে গুজবেই। কিন্তু সত্যিই তো, বয়স তো আর কম হচ্ছে না! বিদ্যা কী ভাবছেন সন্তান-সন্ততি নিতে। সেই উত্তর মেলেনি বিদ্যার মুখ থেকে। দেখা যাক অদূর ভবিষ্যতে বিদ্যা আদিত্যের সংসারে নতুন অতিথির আগমন কবে ঘটে। আপাতত এ নিয়ে অপেক্ষাই হয়তো উত্তম সমাধান।
 

তারাঝিলমিল পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close