jugantor
অভিনয়ে ফিরেছেন রিয়াজ

  মৌসুমী মিলি  

১২ নভেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

গত ৮ নভেম্বর থেকে আবারো শুটিং-এ ফিরেছেন তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপাপ্ত নায়ক রিয়াজ। কিন্তু বড় একটি দুর্ঘটনার পর সবার দোয়া ও আল্লাহর রহমতে সুস্থ হয়ে ফিরে আসার পর ডাক্তারের নির্দেশে ছয় মাসের পুরোপুরি বিশ্রাম শেষ না করেই শুটিংয়ে রিয়াজের ফেরাটাকে তার ভক্ত-দর্শক ভালোভাবে নিতে পারেননি। অনেকেই রিয়াজের এমন সিদ্ধান্তে হতাশ হয়েছেন। কারণ আগে তো জীবন। তাছাড়া অনেকেই বলছেন, রিয়াজ কিছুদিন আগে এক কন্যা সন্তানের বাবা হয়েছেন। মেয়ের কথা চিন্তা করে হলেও তার পুরোপুরি সুস্থ হয়েই অভিনয়ে ফেরা উচিত ছিল। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে মেহের আফরোজ শাওনের রিয়াজকে শুটিংয়ে ফেরা নিয়েও। কারণ এক মাসও পার হতে পারেনি রিয়াজ যে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। এমন কোনো তাড়া নেই যে, ‘কৃষ্ণপক্ষ’ চলচ্চিত্রের শুটিং শেষ করতে হবেই খুব তাড়াতাড়ি। কারণ যে লক্ষ্যে ‘কৃষ্ণপক্ষ’ নির্মাণ করা হচ্ছিল সেই লক্ষ্য অর্থাৎ হুমায়ূন আহমেদের জন্মবার্ষিকী ১৩ নভেম্বর মুক্তি দেয়া, তা তো আর সম্ভব হচ্ছে না। যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে রিয়াজকে নিয়ে এমন ঝুঁকি নেয়া পরিচালকেরও উচিত হয়নি বলে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। যদিও ডাক্তার ৪ ঘণ্টা শুটিংয়ের অনুমতি দিয়েছেন। কিন্তু তারপর নিজের ভালোর জন্য রিয়াজেরই ‘কৃষ্ণপক্ষ’র শুটিংয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অংশগ্রহণ করা দৃষ্টিকটু হয়ে গেল। যুগান্তরের সঙ্গে মুঠোফোনে রিয়াজ বলেন, ‘ডাক্তারের পরামর্শেই মূলত আমি শুটিং করছি। যদিও এটা করা উচিত হচ্ছে না আমি জানি। কিন্তু কী করব, কয়েকদিন শুটিংয়ের জন্য ফেঁসে আছে ‘কৃষ্ণপক্ষ’ চলচ্চিত্রটি। তাই কষ্ট হলেও কাজটি শেষ করে দেয়ার চেষ্টা করছি। জানি আমার ভক্তরা তাতে ভীষণ রাগ করছেন। কিন্তু এরপর আমি পুরোপুরি বিশ্রামেই থাকব।’ রিয়াজের স্ত্রী টিনা জানান, আপাতত ঢাকায় রিয়াজকে শুটিংয়ের অনুমতি দেয়া হলেও ঢাকার বাইরে শুটিং করার অনুমতি ডাক্তার কিংবা পরিবার কেউই দিচ্ছে না। রিয়াজও চাইছেন না ঢাকার বাইরে শুটিং করতে। গতকাল ১১ নভেম্বর ‘কৃষ্ণপক্ষ’র শুটিং শেষ করেছেন রিয়াজ। এখন আপাতত আর নতুন কোনো কাজ হাতে নিচ্ছেন না তিনি। বিশেষ বিবেচনায় হয়তো ভালো গল্প পেলে কাজ করতে পারেন। সেটাও আবার সময় এবং তার শারীরিক অবস্থার ওপরই নির্ভর করছে। গেল মাসে রাজধানীর উত্তরার একটি শুটিং হাউসে ‘কৃষ্ণপক্ষ’র শুটিং চলাকালীন সময়ে হার্ট অ্যাটাক করেন। পরবর্তী সময়ে চারটি ব্লক ধরা পড়লে একটি শতভাগ থাকায় তাতে তাৎক্ষণিক রিং পড়ানো হয়। এখন রিয়াজ বেশ সুস্থ আছেন। তবে আরও অধিক বিশ্রামের প্রযোজন তার।


 

সাবমিট

অভিনয়ে ফিরেছেন রিয়াজ

 মৌসুমী মিলি 
১২ নভেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 

গত ৮ নভেম্বর থেকে আবারো শুটিং-এ ফিরেছেন তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপাপ্ত নায়ক রিয়াজ। কিন্তু বড় একটি দুর্ঘটনার পর সবার দোয়া ও আল্লাহর রহমতে সুস্থ হয়ে ফিরে আসার পর ডাক্তারের নির্দেশে ছয় মাসের পুরোপুরি বিশ্রাম শেষ না করেই শুটিংয়ে রিয়াজের ফেরাটাকে তার ভক্ত-দর্শক ভালোভাবে নিতে পারেননি। অনেকেই রিয়াজের এমন সিদ্ধান্তে হতাশ হয়েছেন। কারণ আগে তো জীবন। তাছাড়া অনেকেই বলছেন, রিয়াজ কিছুদিন আগে এক কন্যা সন্তানের বাবা হয়েছেন। মেয়ের কথা চিন্তা করে হলেও তার পুরোপুরি সুস্থ হয়েই অভিনয়ে ফেরা উচিত ছিল। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে মেহের আফরোজ শাওনের রিয়াজকে শুটিংয়ে ফেরা নিয়েও। কারণ এক মাসও পার হতে পারেনি রিয়াজ যে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। এমন কোনো তাড়া নেই যে, ‘কৃষ্ণপক্ষ’ চলচ্চিত্রের শুটিং শেষ করতে হবেই খুব তাড়াতাড়ি। কারণ যে লক্ষ্যে ‘কৃষ্ণপক্ষ’ নির্মাণ করা হচ্ছিল সেই লক্ষ্য অর্থাৎ হুমায়ূন আহমেদের জন্মবার্ষিকী ১৩ নভেম্বর মুক্তি দেয়া, তা তো আর সম্ভব হচ্ছে না। যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে রিয়াজকে নিয়ে এমন ঝুঁকি নেয়া পরিচালকেরও উচিত হয়নি বলে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। যদিও ডাক্তার ৪ ঘণ্টা শুটিংয়ের অনুমতি দিয়েছেন। কিন্তু তারপর নিজের ভালোর জন্য রিয়াজেরই ‘কৃষ্ণপক্ষ’র শুটিংয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অংশগ্রহণ করা দৃষ্টিকটু হয়ে গেল। যুগান্তরের সঙ্গে মুঠোফোনে রিয়াজ বলেন, ‘ডাক্তারের পরামর্শেই মূলত আমি শুটিং করছি। যদিও এটা করা উচিত হচ্ছে না আমি জানি। কিন্তু কী করব, কয়েকদিন শুটিংয়ের জন্য ফেঁসে আছে ‘কৃষ্ণপক্ষ’ চলচ্চিত্রটি। তাই কষ্ট হলেও কাজটি শেষ করে দেয়ার চেষ্টা করছি। জানি আমার ভক্তরা তাতে ভীষণ রাগ করছেন। কিন্তু এরপর আমি পুরোপুরি বিশ্রামেই থাকব।’ রিয়াজের স্ত্রী টিনা জানান, আপাতত ঢাকায় রিয়াজকে শুটিংয়ের অনুমতি দেয়া হলেও ঢাকার বাইরে শুটিং করার অনুমতি ডাক্তার কিংবা পরিবার কেউই দিচ্ছে না। রিয়াজও চাইছেন না ঢাকার বাইরে শুটিং করতে। গতকাল ১১ নভেম্বর ‘কৃষ্ণপক্ষ’র শুটিং শেষ করেছেন রিয়াজ। এখন আপাতত আর নতুন কোনো কাজ হাতে নিচ্ছেন না তিনি। বিশেষ বিবেচনায় হয়তো ভালো গল্প পেলে কাজ করতে পারেন। সেটাও আবার সময় এবং তার শারীরিক অবস্থার ওপরই নির্ভর করছে। গেল মাসে রাজধানীর উত্তরার একটি শুটিং হাউসে ‘কৃষ্ণপক্ষ’র শুটিং চলাকালীন সময়ে হার্ট অ্যাটাক করেন। পরবর্তী সময়ে চারটি ব্লক ধরা পড়লে একটি শতভাগ থাকায় তাতে তাৎক্ষণিক রিং পড়ানো হয়। এখন রিয়াজ বেশ সুস্থ আছেন। তবে আরও অধিক বিশ্রামের প্রযোজন তার।


 

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র