¦
ছোট খবর

| প্রকাশ : ০৯ মে ২০১৫

মার্কিন সেনারা
পতিতায় আসক্ত
পতিতায় আসক্ত হয়ে পড়েছেন মার্কিন সেনা কর্মকর্তারা। যাতায়াত খরচসহ অন্যান্য সরকারি খাতে খরচের জন্য দেয়া অর্থ জুয়া ও পতিতার পেছনে ব্যয় করছেন তারা। পেন্টাগনের ব্যাপকসংখ্যক সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা এভাবে টাকা উড়িয়েছেন বলে যাতায়াত খাতের মার্কিন সরকারি অডিট রিপোর্টে বলা হয়েছে।
লাস ভেগাস এবং আটলান্টিক সিটির ক্যাসিনোগুলোতে গিয়ে জুয়া খেলা ও পতিতার পেছনে অর্থ ব্যয় করছেন কর্মকর্তারা।
কেনাকাটা এবং ফুর্তিতে অর্থ খরচের বিষয়টি দাম্পত্য জীবন থেকে গোপন রাখার জন্য এ পথ বেছে নেন এসব কর্মকর্তা। কোনো কোনো কর্মকর্তা এভাবে ফুর্তি করতে গিয়ে বছরে ৯৬ হাজার ডলারের বেশি অর্থ ব্যয় করেছেন।
রামের বাড়ি পাকিস্তানে!
হিন্দু ধর্মের দেবতা রামের জন্মস্থান পাকিস্তানে। সম্প্রতি এমন তথ্য দিয়েছেন আবদুল রহিম কুরাইশি। বিভিন্ন প্রত্নতাত্ত্বিক সূত্রের উল্লেখ করে এক বইয়ে তিনি এমন দাবি করেন। তার মতে, ভারতের উত্তর প্রদেশের ফয়জাবাদের অবস্থিত অযোধ্যা প্রকৃত অযোদ্ধা নয়। বরং তা পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনে অবস্থিত। সেখানেই জন্মেছিলেন রাম।
কোরেশি দাবি করেন, রাম কথায় উল্লেখিত এলাকার নামানুযায়ী ভারতবাসী তাদের বিভিন্ন অঞ্চলের নামকরণ করেছেন। ভারতে অবস্থিত অযোধ্যার সময়কাল খ্রিস্ট পূর্ব ৭ম শতক। অন্য দিকে রামের জন্ম আজ থেকে ১৮ মিলিয়ন বছর পূর্বে বলে বিশ্বাস করা হয়। ফ্যাক্টস অব অযোধ্যা এপিসোড বইয়ে তিনি তিনি অর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার গবেষক জসু রামেক উদ্ধৃতি দিয়ে এসব তথ্য হাজির করেন।
তিনি দাবি করেন, তুলসি দাসের রচনাকৃত রামায়ণ-এ এখনকার অযোধ্যা রামের জন্মস্থান- এমন কিছুর উল্লেখ নেই।
দায় স্বীকারকারী নিহত
আল কায়দার আরব উপত্যকার একজন শীর্ষ নেতা যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছেন। ফ্যান্সের ইসলামবিরোধী বিদ্রুপ ম্যাগাজিন শার্লি এবদোতে হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতিতে দিয়েছিলেন তিনি। তার নাম নসর আল আনসি। তিনি আল কায়দার আধ্যাত্মিক নেতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। ২১ এপ্রিল সিআইএর ওই ড্রোন হামলায় আরও কয়েকজন জঙ্গি মারা যান। আল আনসির মৃত্যুর ঘোষণা দিয়েছেন আল কায়দার আরেক নেতা খালেদ বাতারফি। এক ভিডিও বার্তায় তিনি আল আনসির মৃত্যুর কথা ঘোষণা করলেও এ ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য দেননি। তবে জানিয়েছেন যে আল আনসির জ্যেষ্ঠ পুত্রও এই বিমান হামলায় মারা গেছেন। এপি।
গির্জা থেকে মসজিদ
ইতালির ঐতিহাসিক ভ্যানিস নগরীতে স্থাপিত হলো সেখানকার প্রথম মসজিদ। একটি খ্রিস্টান চার্চকে সংস্কার করে স্থাপিত মসজিদটি শনিবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে। আগামী সাত মাস এটি পরীক্ষামূলকভাবে চলবে। শান্ত মারিয়া দেলা মিজেরিকডিয়া নামের চার্চটি প্রায় ৪০ বছর আগে বন্ধ করে দেয়া হয়। সম্প্রতি কাতার সরকারের অর্থায়নে আধুনিক শিল্পকলা নিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে নামকরা প্রদর্শনী ভ্যানিস বিনালের অংশ হিসেবে এটিকে মসজিদে রূপান্তরিত করা হয়। সুইডেনের শিল্পী ক্রিস্টোফার বুশেলের ডিজাইন অনুযায়ী প্রদর্শনীর প্রবেশে পথে মসজিদটি স্থাপন করে মূলত ইসলামের প্রতি কিছু মানুষের মনোভাবকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।
দশ দিগন্ত পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close