jugantor
২০৪৩ সালে ইউরোপ হবে ইসলামী খেলাফত
ভাঙ্গা বাবার ভবিষ্যদ্বাণী

  যুগান্তর ডেস্ক  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

প্রায় এক দশক আগেই আইএসের উত্থান নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন এক রহস্যময়ী অন্ধ মহিলা জ্যোতিষী।

বাবা ভাঙ্গা নামের বুলগেরিয়ান জ্যোতিষী বলেছিলেন, মুসলিমরা একটি ‘বৃহত্তর মুসলিম যুদ্ধের’ মাধ্যমে ইউরোপ আক্রমণ করে পদানত করবে এবং ২০৪৩ সালের মধ্যেই ইসলামি খেলাফত গঠন করবে। এ খেলাফতের রাজধানী হবে ইতালির রোমে।

১৯৯৬ সালে বার্ধক্যজণিত কারণে মৃত্যু হওয়ার আগে এই রহস্যময়ী জ্যোতিষী আরও বলেছিলেন, পরমাণু যুদ্ধে ইউরোপ খ্রিস্টানশূন্য হয়ে যাবে এবং মুসলিমরা ইউরোপের দখল নেবে।

বাবা ভাঙ্গা নামের এই মহিলা ১২ বছর বয়সে এক তীব্র ঝড়ের কবলে পড়ে তার দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন। তারপর থেকেই তিনি ভবিষ্যৎ দেখতে পান বলে তার ভক্তরা জানিয়েছেন।

তার ভবিষ্যৎ বলার ক্ষমতার কথা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লে বুলগেরিয়ার স্বৈরশাসক তৃতীয় বরিস তার সঙ্গে দেখা করতে আসেন এবং পরে বরিস তাকে নিজের উপদেষ্টা নিয়োগ করেন।

যদিও বরিসের দুর্ভাগ্য ঠেকাতে পারেননি বাবা ভাঙ্গা, তবে এখনো তার অনেক ভক্ত রয়ে গেছে বুলগেরিয়ায়। টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বুলগেরিয়ার অন্ধ জ্যোতিষীর আগাম কথা

২০১৬ : মুসলিমরা ইউরোপ আক্রমণ করবে

২০২৩ : পৃথিবীর কক্ষপথ পরিবর্তন হয়ে যাবে (এর অর্থ কেউ বুঝতে পারেনি)

২০২৫ : ইউরোপের জনসংখ্যা প্রায় শূন্য হয়ে যাবে

২০২৮ : নতুন জ্বালানি উৎসের খোঁজে মানুষ শুক্র গ্রহে যাবে

২০৩৩ : সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা অস্বাভাবিক মাত্রায় বেড়ে যাবে (এটা এখন ঘটছে)

২০৪৩ : সমগ্র ইউরোপ ইসলামী খেলাফতের আওতায় আসবে। রোম হবে রাজধানী

২০৬৬ : আমেরিকা জলবায়ু অস্ত্র ব্যবহার করে রোম খ্রিস্টান দখলে আনার চেষ্টা করবে

২০৭৬ : ইউরোপসহ পৃথিবীতে আবার কমিউনিজম ফিরে আসবে

২০৮৪ : প্রকৃতির পুনর্জন্ম হবে (এর অর্থ কেউ বুঝতে পারেনি)

২১০০ : মানবসৃষ্ট সূর্য পৃথিবীর এক পাশকে অন্ধকারে ঢেকে দেবে (এটা ঘটছে। ২০০৮ সালে বিজ্ঞানীরা প্রযুক্তির সাহায্যে কৃত্রিম সূর্য বানানো প্রজেক্ট হাতে নিয়েছে)

২১৩০ : এলিয়েনের সহায়তায় সভ্যতা পানির নিচে থাকবে

২১৭০ : পৃথিবীব্যাপী খরা হবে

২১৮৭ : বৃহৎ দুটি আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত বন্ধ করা সম্ভব হবে

২২০১ : সূর্যের পারমাণবিক বিক্রিয়ায় তাপমাত্রা কমে যাবে

২২৬২ : গ্রহগুলোর কক্ষপথ ধীরে ধীরে পরিবর্তিত হবে। মঙ্গলগ্রহে ধূমকেতু আঘাত করবে

২৩৫৪ : কৃত্রিম সূর্যে দুর্ঘটনায় পৃথিবীতে খরা নামবে

২৪৮০ : দুটি কৃত্রিম সূর্যের সংঘর্ষে পৃথিবী অন্ধকারে ঢেকে যাবে

৩০০৫ : মঙ্গলগ্রহের কক্ষপথ পরিবর্তিত হবে

৩০১০ : একটি ধূমকেতু চন্দ্রে আঘাত করবে। পৃথিবীর চারদিকে পাথর ও ছাই থাকবে

৩৭৯৭ : পৃথিবীর সবকিছু ধ্বংস হয়ে যাবে। মানবসভ্যতা নতুন ব্যবস্থায় উত্থিত হবে


 

সাবমিট

২০৪৩ সালে ইউরোপ হবে ইসলামী খেলাফত

ভাঙ্গা বাবার ভবিষ্যদ্বাণী
 যুগান্তর ডেস্ক 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 

প্রায় এক দশক আগেই আইএসের উত্থান নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন এক রহস্যময়ী অন্ধ মহিলা জ্যোতিষী।

বাবা ভাঙ্গা নামের বুলগেরিয়ান জ্যোতিষী বলেছিলেন, মুসলিমরা একটি ‘বৃহত্তর মুসলিম যুদ্ধের’ মাধ্যমে ইউরোপ আক্রমণ করে পদানত করবে এবং ২০৪৩ সালের মধ্যেই ইসলামি খেলাফত গঠন করবে। এ খেলাফতের রাজধানী হবে ইতালির রোমে।

১৯৯৬ সালে বার্ধক্যজণিত কারণে মৃত্যু হওয়ার আগে এই রহস্যময়ী জ্যোতিষী আরও বলেছিলেন, পরমাণু যুদ্ধে ইউরোপ খ্রিস্টানশূন্য হয়ে যাবে এবং মুসলিমরা ইউরোপের দখল নেবে।

বাবা ভাঙ্গা নামের এই মহিলা ১২ বছর বয়সে এক তীব্র ঝড়ের কবলে পড়ে তার দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন। তারপর থেকেই তিনি ভবিষ্যৎ দেখতে পান বলে তার ভক্তরা জানিয়েছেন।

তার ভবিষ্যৎ বলার ক্ষমতার কথা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লে বুলগেরিয়ার স্বৈরশাসক তৃতীয় বরিস তার সঙ্গে দেখা করতে আসেন এবং পরে বরিস তাকে নিজের উপদেষ্টা নিয়োগ করেন।

যদিও বরিসের দুর্ভাগ্য ঠেকাতে পারেননি বাবা ভাঙ্গা, তবে এখনো তার অনেক ভক্ত রয়ে গেছে বুলগেরিয়ায়। টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বুলগেরিয়ার অন্ধ জ্যোতিষীর আগাম কথা

২০১৬ : মুসলিমরা ইউরোপ আক্রমণ করবে

২০২৩ : পৃথিবীর কক্ষপথ পরিবর্তন হয়ে যাবে (এর অর্থ কেউ বুঝতে পারেনি)

২০২৫ : ইউরোপের জনসংখ্যা প্রায় শূন্য হয়ে যাবে

২০২৮ : নতুন জ্বালানি উৎসের খোঁজে মানুষ শুক্র গ্রহে যাবে

২০৩৩ : সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা অস্বাভাবিক মাত্রায় বেড়ে যাবে (এটা এখন ঘটছে)

২০৪৩ : সমগ্র ইউরোপ ইসলামী খেলাফতের আওতায় আসবে। রোম হবে রাজধানী

২০৬৬ : আমেরিকা জলবায়ু অস্ত্র ব্যবহার করে রোম খ্রিস্টান দখলে আনার চেষ্টা করবে

২০৭৬ : ইউরোপসহ পৃথিবীতে আবার কমিউনিজম ফিরে আসবে

২০৮৪ : প্রকৃতির পুনর্জন্ম হবে (এর অর্থ কেউ বুঝতে পারেনি)

২১০০ : মানবসৃষ্ট সূর্য পৃথিবীর এক পাশকে অন্ধকারে ঢেকে দেবে (এটা ঘটছে। ২০০৮ সালে বিজ্ঞানীরা প্রযুক্তির সাহায্যে কৃত্রিম সূর্য বানানো প্রজেক্ট হাতে নিয়েছে)

২১৩০ : এলিয়েনের সহায়তায় সভ্যতা পানির নিচে থাকবে

২১৭০ : পৃথিবীব্যাপী খরা হবে

২১৮৭ : বৃহৎ দুটি আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত বন্ধ করা সম্ভব হবে

২২০১ : সূর্যের পারমাণবিক বিক্রিয়ায় তাপমাত্রা কমে যাবে

২২৬২ : গ্রহগুলোর কক্ষপথ ধীরে ধীরে পরিবর্তিত হবে। মঙ্গলগ্রহে ধূমকেতু আঘাত করবে

২৩৫৪ : কৃত্রিম সূর্যে দুর্ঘটনায় পৃথিবীতে খরা নামবে

২৪৮০ : দুটি কৃত্রিম সূর্যের সংঘর্ষে পৃথিবী অন্ধকারে ঢেকে যাবে

৩০০৫ : মঙ্গলগ্রহের কক্ষপথ পরিবর্তিত হবে

৩০১০ : একটি ধূমকেতু চন্দ্রে আঘাত করবে। পৃথিবীর চারদিকে পাথর ও ছাই থাকবে

৩৭৯৭ : পৃথিবীর সবকিছু ধ্বংস হয়ে যাবে। মানবসভ্যতা নতুন ব্যবস্থায় উত্থিত হবে


 

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র