¦
দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে সিবিআই’র তল্লাশি

যুগান্তর ডেস্ক | প্রকাশ : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৫

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দফতরে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের তল্লাশি চালানোর অভিযোগকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। আম আদমি পার্টির (এএপি) কর্ণধার ও দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল আজ (মঙ্গলবার) সকালে একের পর এক টুইটার বার্তায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘সকালে তার দফতরে অভিযান চালিয়ে সিলগালা করে দিয়েছে সিবিআই।
রাজনৈতিকভাবে তার সঙ্গে কুলিয়ে উঠতে না পেরে মোদি ভীরুতার আশ্রয় নিয়েছেন। মোদি একজন কাপুরুষ এবং মানসিক বিকারগ্রস্ত।’ সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে অবশ্য কেজরিওয়ালের দাবিকে খারিজ করে দিয়ে বলা হয়েছে, তার দফতর নয়, বরং তার প্রধান সচিব রাজেন্দ্র কুমারের দফতরে তল্লাশি চালিয়ে দফতরটি সিল করে দেয়া হয়েছে। কেজরিওয়ালের পক্ষ থেকে সিবিআইয়ের দাবি উড়িয়ে বলা দিয়ে হয়েছে, ‘সিবিআই মিথ্যা কথা বলছে। আমার দফতরেই তল্লাশি চালিয়ে সেটি সিল করে দেয়া হয়েছে। তার দফতরের ফাইলও পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে।’ কেজরিওয়ালের যুক্তি, প্রধান সচিবের দফতর আসলে তারই কার্যালয়।’ দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মনিষ সিসোদিয়া বলেছেন, সিবিআইয়ের তল্লাশিকে ভয় দেখিয়ে সৎ রাজনীতিকে থামিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছেন মোদি। জনতা সত্যের সঙ্গে রয়েছেন, উনি সফল হতে পারবেন না। এএপি নেতা আশুতোষ বলেছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীকে না জানিয়েই তার দফতরে তল্লাশি চালিয়ে সিল করে দেয়া হয়েছে। শিবরাজ সিং চৌহানের (মধ্যপ্রদেশের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী) বিরুদ্ধে এরকম করা হচ্ছে না কেন? যদি মোদি মনে করেন, এরকম পদক্ষেপে আমরা ভয় পেয়ে যাব তাহলে উনি কোনো তৃতীয় বিশ্বে বাস করছেন।’
অন্যদিকে সরকার পক্ষে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নাইডু বলেছেন, ‘সিবিআই সরকারের প্রভাবে কোনো কাজ করে না। তারা স্বাধীন সংস্থা। আমরা সিবিআইকে নিয়ন্ত্রণ করি না। প্রধানমন্ত্রীকে দোষ দেয়া ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে।’ অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেছেন,‘সিবিআইয়ের তল্লাশির সঙ্গে সরকারের কোনো সম্পর্ক নেই। পুরনো একটি মামলায় সিবিআই তল্লাশি চালিয়েছে।’
 

দশ দিগন্ত পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close