jugantor
সিরিয়া শান্তি রোডম্যাপে কী আছে?

  যুগান্তর ডেস্ক  

২০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

জাতিসংঘের ১৫ সদস্যবিশিষ্ট নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়াবিষয়ক শান্তি পরিকল্পনার নতুন রোডম্যাপ শুক্রবার সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন করেছে। এই শান্তি পরিকল্পনার আওতায় ২০১৬ সালের জানুয়ারির শুরুর দিকে সিরিয়ার বিবদমান গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে আপস মীমাংসা ও যুদ্ধবিরতির প্রক্রিয়া শুরু হবে। তবে এতে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ সম্পর্কে সুস্পষ্ট কিছু বলা নেই। জাতিসংঘ রেজুলেশনের মূল কথা এখানে তুলে ধরা হল।

* সিরিয়ার জনগণের করুণ অবস্থা, মানবিক সংকট, চলমান সংঘাত ও বীভৎসতা, সন্ত্রাসবাদের নেতিবাচক প্রভাব, দেশটির অবকাঠামো ও পার্শ্ববতী অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা ছড়িয়ে পড়ায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

* সংকটের টেকসই সমাধানে সিরিয়ার জনগণের রাজনৈতিক অংশগ্রহণে তাদের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটাতে হবে। এ লক্ষ্যে ২০১২ সালের ৩০ জুন ঘোষিত জেনেভা ইশতেহারের পূর্ণ বাস্তবায়নসহ পরিপূর্ণ নির্বাহী ক্ষমতাসম্পন্ন অন্তর্বর্তীকালীন সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

* এই শান্তিপ্রকল্পটি ১৭ জাতির আন্তর্জাতিক সিরিয়া সহায়তা গ্রুপের (আইএসএসজি) রাজনৈতিক প্রচেষ্টাকে উৎসাহিত করছে এবং তাদের কার্যক্রমকে ভিত্তি ধরে সংকটের সহজ নিষ্পতির প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।

* সিরিয়ার রাজনৈতিক ও সশস্ত্র গ্রুপগুলোর আলোচনার টেবিলে আনতে রিয়াদ সম্মেলনের গুরুত্ব ও ভূমিকাকে স্বীকৃতি দেয়া হচ্ছে।

* জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন ও সিরিয়াবিষয়ক তার বিশেষ দূত স্টাফেন ডি মিস্তুরাকে সিরিয়ার সরকার ও বিরোধীদের নিয়ে রাজনৈতিক উত্তরণ প্রক্রিয়ায় জানুয়ারির শুরুতেই এক টেবিলে বসার অনুরোধ করা হচ্ছে।

* আগামী ছয় মাসের মধ্যে একটি বিশ্বাসযোগ্য, সর্বসম্মত, অসাম্প্র্রদায়িক সরকার প্রতিষ্ঠা, নতুন সংবিধানের খসড়া প্রস্তুত ও জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রতি সমর্থন দিচ্ছে।

* প্রবাসী শরণার্থীসহ সব সিরীয় নাগরিক এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবে।

* গোটা সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠায় জাতিসংঘের পৃষ্ঠপোষকতায় যত দ্রুত সম্ভব সরকার ও বিরোধীদের রাজনৈতিক উত্তোরণে প্রাথমিক পদক্ষেপে নিতে হবে।

* জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে এই শান্তি পরিকল্পনায় সমর্থন দিতে অনুরোধ করা হচ্ছে।

* যুদ্ধবিরতি পর্যবেক্ষণ ও প্রতিবেদন প্রকাশের আহ্বান জানানো হচ্ছে।

* সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোর তালিকা প্রস্তুতে জর্ডান সরকারের প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ।


 

সাবমিট

সিরিয়া শান্তি রোডম্যাপে কী আছে?

 যুগান্তর ডেস্ক 
২০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 

জাতিসংঘের ১৫ সদস্যবিশিষ্ট নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়াবিষয়ক শান্তি পরিকল্পনার নতুন রোডম্যাপ শুক্রবার সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন করেছে। এই শান্তি পরিকল্পনার আওতায় ২০১৬ সালের জানুয়ারির শুরুর দিকে সিরিয়ার বিবদমান গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে আপস মীমাংসা ও যুদ্ধবিরতির প্রক্রিয়া শুরু হবে। তবে এতে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ সম্পর্কে সুস্পষ্ট কিছু বলা নেই। জাতিসংঘ রেজুলেশনের মূল কথা এখানে তুলে ধরা হল।

* সিরিয়ার জনগণের করুণ অবস্থা, মানবিক সংকট, চলমান সংঘাত ও বীভৎসতা, সন্ত্রাসবাদের নেতিবাচক প্রভাব, দেশটির অবকাঠামো ও পার্শ্ববতী অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা ছড়িয়ে পড়ায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

* সংকটের টেকসই সমাধানে সিরিয়ার জনগণের রাজনৈতিক অংশগ্রহণে তাদের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটাতে হবে। এ লক্ষ্যে ২০১২ সালের ৩০ জুন ঘোষিত জেনেভা ইশতেহারের পূর্ণ বাস্তবায়নসহ পরিপূর্ণ নির্বাহী ক্ষমতাসম্পন্ন অন্তর্বর্তীকালীন সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

* এই শান্তিপ্রকল্পটি ১৭ জাতির আন্তর্জাতিক সিরিয়া সহায়তা গ্রুপের (আইএসএসজি) রাজনৈতিক প্রচেষ্টাকে উৎসাহিত করছে এবং তাদের কার্যক্রমকে ভিত্তি ধরে সংকটের সহজ নিষ্পতির প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।

* সিরিয়ার রাজনৈতিক ও সশস্ত্র গ্রুপগুলোর আলোচনার টেবিলে আনতে রিয়াদ সম্মেলনের গুরুত্ব ও ভূমিকাকে স্বীকৃতি দেয়া হচ্ছে।

* জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন ও সিরিয়াবিষয়ক তার বিশেষ দূত স্টাফেন ডি মিস্তুরাকে সিরিয়ার সরকার ও বিরোধীদের নিয়ে রাজনৈতিক উত্তরণ প্রক্রিয়ায় জানুয়ারির শুরুতেই এক টেবিলে বসার অনুরোধ করা হচ্ছে।

* আগামী ছয় মাসের মধ্যে একটি বিশ্বাসযোগ্য, সর্বসম্মত, অসাম্প্র্রদায়িক সরকার প্রতিষ্ঠা, নতুন সংবিধানের খসড়া প্রস্তুত ও জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রতি সমর্থন দিচ্ছে।

* প্রবাসী শরণার্থীসহ সব সিরীয় নাগরিক এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবে।

* গোটা সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠায় জাতিসংঘের পৃষ্ঠপোষকতায় যত দ্রুত সম্ভব সরকার ও বিরোধীদের রাজনৈতিক উত্তোরণে প্রাথমিক পদক্ষেপে নিতে হবে।

* জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে এই শান্তি পরিকল্পনায় সমর্থন দিতে অনুরোধ করা হচ্ছে।

* যুদ্ধবিরতি পর্যবেক্ষণ ও প্রতিবেদন প্রকাশের আহ্বান জানানো হচ্ছে।

* সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোর তালিকা প্রস্তুতে জর্ডান সরকারের প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ।


 

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র