কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২২:০৭:৫৩ প্রিন্ট
ত্রাণের টাকা বণ্টন করে ফিরিয়ে নিলেন আ’লীগ নেতা

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে বানভাসিদের মধ্যে বণ্টন করা রেড ক্রিসেন্টের ত্রাণের টাকা ফিরিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত ওই আওয়ামী লীগ নেতারা হলেন-কচাকাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কচাকাটা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক আতাউর রহমান ও ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি মমিনুর রহমান।

ঘটনা জানাজানি হলে গোটা নাগেশ্বরীতে তোলপাড় শুরু হয়েছে। অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণের টাকা পরবর্তীতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় বিব্রত আওয়ামী লীগ নেতারা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত শুক্রবার কুড়িগ্রাম রেড ক্রিসেন্টের উদ্যোগে নাগেশ্বরীর কচাকাটা ইউনিয়নে ৪০০ বন্যাকবলিত পরিবারে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী ও প্রতি জনকে নগদ ১ হাজার ৪০০ টাকা ত্রাণ সহায়তা দেয়া হয়।

এর পরদিনই যেসব বানভাসি মানুষ ত্রাণ সহায়তা পেয়েছেন তাদের কাছে প্রতিনিধি পাঠান আতাউর রহমান। প্রত্যেক সুবিধাভোগীর কাছ থেকে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা করে দাবি করেন তিনি। কারও কারও কাছে এ টাকা দাবি করেন যুবলীগ নেতা মমিনুর রহমান।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী নাগেশ্বরীর কচাকাটা ইউনিয়নের ব্যাপারিটারী গ্রামের মাহেলা বেগম, মরিয়ম বেগম, নূরবানু ও হাসনা বেগম অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ নেতা আতাউর রহমান ও মমিনুর রহমান এসে তাদের কাছ থেকে জোরপূর্বক জনপ্রতি ৫০০ টাকা নিয়ে গেছেন।

এ সময় তারা হুমকি দিয়ে বলেন, কিছু পেতে গেলে কিছু দিতে হয়। যারা টাকা দেবে না, তাদের পরবর্তীতে কোনোকিছুতেই নাম দেয়া হবে না।

তাদের এ অপকর্মের অডিও রেকর্ডও পাঠিয়েছে এক ভুক্তভোগী। এতে কথোপথনে ৪০০ টাকা গ্রহণের প্রমাণ পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানা মণ্ডল বলেন, ৪০০ হতদরিদ্র ত্রাণ পাওয়া মানুষদের কাছ থেকে তারা প্রায় দুই লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। বিষয়টি আমরা উপজেলা ও জেলা কমিটিকে জানিয়েছি।

টাকা গ্রহণের কথা অস্বীকার করে কচাকাটা ইউনিয়ন আ’লীগ সেক্রেটারি আতাউর রহমান জানান, যারা সুবিধা পায়নি তারাই এসব কথা ছড়াচ্ছে। এসব মিথ্যা। তবে ফোনালাপের বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে-তিনি চুপসে যান।

এ ব্যাপারে কচাকাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ আলী জানান, বিষয়টি বিভিন্ন মাধ্যমে শোনা যাচ্ছে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by