অনলাইন ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৮:০৫:২৯ প্রিন্ট
হাসপাতালে চলত অবৈধ গর্ভপাত!

আগেই রকস্টার ‘বাবা’ গুরমিত রাম রহিমের ডেরায় অত্যাধুনিক হাসপাতালের খোঁজ মিলেছিল। প্রত্যাশিত ভাবে যে হাসপাতালের প্রধান রাম রহিম নিজেই।

এ বার সেই হাসপাতালে দেদার গর্ভপাতের প্রমাণ মিলল। পাঞ্জাব পুলিশ এ বিষয়ে বেশ কিছু তথ্য প্রমাণ পেয়েছে।

সূত্রের খবর, গর্ভপাত করানোর কাজে বিন্দুমাত্র সরকারি অনুমতির তোয়াক্কা করা হত না। তদন্তকারীদের দাবি, যে সব নারীর গর্ভপাত করানো হয়েছে, তাদের পর্যাপ্ত নথি মেলেনি হাসপাতাল থেকে।

মঙ্গলবার হরিয়ানার জনসংযোগ দফতরের ডেপুটি ডিরেক্টর সতীশ মেহেরা ডিএনএকে জানান, ডেরার হাসপাতালে বেআইনি গর্ভপাতের বিষয়টি নিয়ে আলাদা করে তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ফরেন্সিক কর্তাদের। প্রাথমিক তদন্তে পাওয়া নমুনাগুলি ফরেন্সিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা বিচারক এ কে এস পওয়ার। তাকে এই মামলায় কমিশনার হিসেবে নিযুক্ত করেছে পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট।

পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের নির্দেশে ৭০০ একরের ডেরা চত্বরে সম্প্রতি তল্লাশি চালায় রাজ্য পুলিশ এবং সরকারি নানা বিভাগের ১০টি দল। গত রোববারই শেষ হয়েছে তিন দিনের সেই তল্লাশি অভিযান।

তাতেই জানা যায়, সাত তারা হোটেল, ‘স্কাইবার’-সহ রিসর্ট, অভিজাত রেস্তোরাঁ, সুইমিং পুল, অত্যাধুনিক হাসপাতাল, আন্তর্জাতিক মানের স্কুল, হোস্টেল, সিনেমা হল, শপিং মল, ফুড কোর্ট, জিম, স্পা, নিজস্ব কৃষিজমি, বাজার সবই রয়েছে বাবার ডেরায়। এমনকী, বিস্ফোরক তৈরির কারখানা, সুড়ঙ্গের হদিশ মেলে সেখান থেকে।

সূত্র: আনন্দবাজার


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত