যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর, ২০১৭ ২০:৩১:১১ প্রিন্ট
ফালুর বিরুদ্ধে ৬ মামলার অনুমোদন দুদকের

ময়মনসিংহের ভালুকায় বন বিভাগের  সাড়ে ৯ একর সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগে ব্যবসায়ী ও রোজা এগ্রো লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোসাদ্দেক আলী ফালু এবং ভালুকার সাব-রেজিস্ট্রার মো. ফজলুর রহমানসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে পৃথক ৬টি মামলার অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার কমিশন সভায় এই মামলাগুলোর অনুমোদন দেয়া হয়।

অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা  দুদকের উপপরিচালক  মো. জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে আজকালের মধ্যে ভালুকা থানায় মামলাগুলো দায়ের করবেন বলে জানা গেছে।

মামলায় দুজন দলিল লেখককে আসামি করা হচ্ছে। তারা হলেন- ভালুকা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক মো. আকরাম হোসেন ও মো. রুহুল আমিন।

এছাড়া বনের ওই জমি হস্তান্তর প্রক্রিয়ায় দাতা-গ্রহীতা সেজে মোসাদ্দেক আলী ফালুকে জমি বুঝিয়ে দেয়ার সঙ্গে যুক্ত ১২ জনকে আসামি করা হচ্ছে। এরা হলেন-  মো. খোকা মিয়া, মো. ফললুল হক ওরফে দরবেশ আলী,  মো. হাতেম আলী, মোসা. জহুরা খাতুন, মো. নূরুল ইসলাম,  মো. আব্দুল লতিফ,  চম্পা আক্তার,  সুফিয়া খাতুন, ফাতেমা খাতুন, জুবেদা খাতুন,  মাজেদা বেগম  সাফ খাতুন । এরা সবাই ভালুকার স্থানীয় বাসিন্দা।

দুদকের অভিযোগে বলা হয়, ভালুকায় বন বিভাগের জমি হস্তান্তর বা বন্দোবস্ত না দেয়ার জন্য সরকারের বন বিভাগ থেকে নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও ভালুকার সাব-রেজিস্ট্রার (বর্তমানে কেরানীগঞ্জের সাব-রেজিস্ট্রার) মো. ফজলুর রহমান আইন ও বিধি-বিধানকে অনুসরণ না করে এবং অবৈধ সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করে দালাল চক্রের সঙ্গে যোগসাজশে ওই এলাকার বনের  ৯ দশমিক ৬৪ একর সম্পত্তি মোসাদ্দেক আলী ফালুর প্রতিষ্ঠানের হাতে তুলে দেয়ার ব্যবস্থা করেন। যার দলিল মূল্য ১ কোটি ৭০ লাখ ৫০ হাজার টাকা।


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত