অনলাইন ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ২০ অক্টোবর, ২০১৭ ১২:৪৩:১৫ প্রিন্ট
‘ইসিতে আ'লীগের প্রস্তাব সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সহায়ক নয়’
ফাইল ছবি

নির্বাচন কমিশনের কাছে দেয়া আওয়ামী লীগের ১১ দফা প্রস্তাব সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সহায়ক নয় বলে জানিয়েছে বিএনপি।

শুক্রবার বিকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এক প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনে আওয়ামী লীগ যে ১১ দফা প্রস্তাব দিয়েছে, তা গণতন্ত্র ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সহায়ক নয়। কীভাবে নির্বাচন, নির্বাচন পর্যবেক্ষক ও গণমাধ্যম এবং ভোটের ফল পাল্টে দেয়া যায়- এসব কৌশলই ওই সব প্রস্তাবনায় আছে, যা সম্পূর্ণরূপে জনমতের বিপরীত।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি, স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য প্রধান বাধা। জনগণের দাবি- নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার। কিন্তু ইসির সঙ্গে সংলাপে ক্ষমতাসীন দল আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে জনগণের কাছে কোনো শুভবার্তা দেয়নি।

নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান রেখে রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগ তাদের প্রস্তাব দিয়েছে- এটি  তাদের বিষয়। এখন নির্বাচন কমিশনের প্রধান দায়িত্ব অবাধ, সুষ্ঠু, স্বচ্ছ, গ্রহণযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক ও প্রতিযোগিতাপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠান করা। কারণ নির্বাচন কমিশন সাংবিধানিকভাবে স্বাধীন স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান।

তিনি বলেন, জনদাবিকে অগ্রাহ্য করে ২০১৪ সালের মতো নির্বাচনের আয়োজন চালালে তা হবে জনগণের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা। এতে দেশে অন্ধকার নেমে আসবে। জনগণ চায় নির্বাচন কমিশন যেন আওয়ামী লীগের কাছে বন্দি হয়ে না পড়ে।

ইভিএমের প্রসঙ্গ টেনে বিএনপির এ নেতা বলেন, আওয়ামী লীগ ইভিএম রাখতে চায়। কারণ এটিতে দূর থেকে ফল ম্যানিপুলেট করা যায়। অথচ নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে যত রাজনৈতিক দলের সংলাপ হয়েছে, অধিকাংশ দলই বলেছেন- ইভিএম-ডিভিএম করা যাবে না। এটি নিয়ে অনেক উন্নত দেশেই বিতর্ক হয়েছে। এমনকি ভারতেও কয়েকটি জায়গায় ইভিএম চালু করেও তা বন্ধ করা হয়েছে।

সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা না দিলে ভোট সন্ত্রাস রোধ করা যাবে না বলে মন্তব্য করে  বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগ সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দিতে চায় না। তারা চায় সেনাবাহিনী ঠুটো জগন্নাথ হয়ে উপজেলা হেডকোয়ার্টারে বসে থাকুক, গাড়ি নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরুক। আর সন্ত্রাসীরা ব্যালটবাক্স ভর্তি করে নিয়ে চলে যাক।

১৮ অক্টোবর দেশে ফেরা খালেদা জিয়াকে অভ্যর্থনায় ব্যাপক লোক সমাগমে নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের জনগণকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা অভিনন্দন জানান তিনি। একই সঙ্গে নানা প্রতিকূলতার মধ্যে সঠিকভাবে সংবাদ সংগ্রহ ও প্রচারের জন্য গণমাধ্যমের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।

চেয়ারপারসনের দেশে ফেরার দিন এবং পর দিন আদালতে যাওয়ার সময় ঢাকা মহানগর, নারায়ণগঞ্জ, নোয়াখালী, মানিকগঞ্জ, ময়মনসিংহ, মুন্সীগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থানে নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবি জানান রুহুল কবির রিজভী।

সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক এজেডএ জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, কেন্দ্রীয় নেতা সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মীর সরফত আলী সপু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত