কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে ঐক্যফ্রন্টের অবাক করা প্রার্থী!

  এ টি এম নিজাম, কিশোরগঞ্জ ব্যুরো: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:৪৩ | অনলাইন সংস্করণ

অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম
অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম

কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) আসনে এবার জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) প্রার্থী ঢাকার প্রাইমেশিয়া ইউনিভার্সিটির কন্ট্রোলার অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

শনিবার রাত তাকে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়া হয়। এর আগে এ আসনে যৌথভাবে বিএনপির প্রাথমিক মনোনয়ন পেয়েছিলেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট জালাল মোহাম্মদ গাউস ও করিমগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সুমন ওরফে ভিপি সুমন।

কিন্তু শেষ মুহূর্তে তাদের পরিবর্তে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীর কোটায় এ আসন থেকে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) প্রার্থী ড. মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামের হাতে ধানের শীষ প্রতীক তুলে দিয়ে তার পক্ষে দলীয় চিঠি দেয়া হয়েছে।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও কৃষিবিদ ড. মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন। বর্তমানে তিনি প্রাইমেশিয়া ইউনিভার্সিটির কন্ট্রোলার হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন । তিনি এ আসনের করিমগঞ্জ উপজেলার জয়কা ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের অধিবাসী।তিনি এর আগের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এলাকায় আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়নের জন্য মাঠে আবির্ভূত হয়ে আওয়ামী লীগেও যোগদান করেছিলেন বলে জানা গেছে।

তবে সেবার মনোনয়ন না পাওয়ায় দলত্যাগ করে জেএসডিতে যোগ দেন।

ড. সাইফুল শরীক দলের প্রার্থী হিসাবে যখন বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক হাতে পেলেন তখন- যখন এ আসনের আওয়ামী লীগ তাদের গলার কাঁটা হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে বয়ে চলা শরীক দল জাতীয় পার্টির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সমাবেশে উত্তাল হয়ে উঠেছে।

এমনকি এ ঘটনার প্রতিবাদ স্বরূপ এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের দু’বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ড. মিজানুল হক এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

পরে হলফনামায় তথ্য প্রদান সংক্রান্ত ভুলের অভিযোগে প্রাথমিক বাছাই এবং ইসির আপিলে তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়।

এ আসনের আওয়ামী লীগের অভিযোগ শরিক দল জাপার প্রার্থীকে বারবার মহাজোটের প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন দেয়ায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের চরম হতাশা বিরাজ করায় সাংগঠনিকভাবে দুর্বল হয়ে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসে দাড়িয়েছে দলটি।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়,এ আসনের বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ও শিক্ষামন্ত্রী ড.এম ওসমান ফারুক যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ মাথায় নিয়ে আমেরিকায় অবস্থান করায় প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে টেনশনে পড়ে দলের হাইকমান্ড।

পরে এ আসনে যৌথভাবে বিএনপির প্রাথমিক মনোনয়ন পেয়েছিলেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট জালাল মোহাম্মদ গাউস ও করিমগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সুমন ওরফে ভিপি সুমন।

কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে আসম রবের নেতৃত্বাধীন জাসদের প্রার্থী ড. সাইফুল ইসলাম এ আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ উপহার পান। তার এ মনোনয়ন সবাইকে হতবাক করে দেয়। তার এ অবাক করা মনোনয়নে বিএনপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন তাকে নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়।

এ ব্যাপারে ঐক্যফ্রন্ট মনোনিত জেএসডি প্রার্থী ড. সাইফুল ইসলামকে একাধিকবার যুগান্তর থেকে ফোন দেয়া হলেও তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে পরে কথা বলবেন বলে জানান।

মহাজোট প্রার্থী জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নুর বিপরীতে ঐক্যফ্রন্টের শরীক দল জেএসডি নেতা ড. মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম শেষ পর্যন্ত কী করেন তা সময়ই বলে দেবে।

ঘটনাপ্রবাহ : কিশোরগঞ্জ-৩: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×