তামাশার ভোটে জনগণের অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে: আমীর খসরু

প্রকাশ : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী (ফাইল ছবি)

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, প্রশাসনের উলঙ্গ সহযোগিতায় নির্লজ্জভাবে জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন কলঙ্কের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

সোমবার সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, ভোটারদের বাধা দেয়া, এজেন্ট, কর্মী ও সমর্থকদের গ্রেফতার করা, প্রশাসনের সহযোগিতায় বিভিন্ন কেন্দ্রে আগের দিন রাতে ও ভোটের দিন তালা মেরে এককভাবে সিল মারা, ভোটকেন্দ্র দখল করাসহ অবৈধ উপায়ে ভোটে জেতার সব কার্যক্রম তারা  (আওয়ামী লীগ) সম্পন্ন করেছে। ভোট দেয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেও ভোট না দিয়ে ফেরত আসতে হয়েছে মানুষকে।

এমনকি তরুণ ভোটাররা যারা জীবনের প্রথম ভোট দেবে তারাও ভোট দিতে না পেরে ব্যথিত হয়েছেন। ভোটের নামে তামাশা করে জনগণের অধিকার কেড়ে নিয়ে নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করা হয়েছে।

আমীর খসরু বলেন, ‘আমাদের নেতাকর্মীরা শত বাধা-বিপত্তি, নিপীড়ন, নির্যাতন, মামলা-হামলা সহ্য করে যাযাবরের মতো জীবনযাপন করেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নির্বাচনে আন্তরিকভাবে কাজ করেছে। আমাদের সমর্থকদেরও ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে তারা যাতে ভোট কেন্দ্রে না যায়। আমি আমার নেতাকর্মী, সমর্থক, ভোটার, চট্টগ্রামবাসী সবার প্রতি কৃতজ্ঞ।

তিনি বলেন, আমার দলের নেতাকর্মীরাই আমার রাজনীতির মূল শক্তি। বর্তমান বিরাজমান প্রতিকূল অবস্থায় তারা যে সাহস এবং নিষ্ঠার পরিচয় দিয়েছে তা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।

তিনি আরও বলেন, ‘জনগণের ভোটের অধিকার, মানবাধিকার, মৌলিক অধিকার ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিতে আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে। এমপি বা মন্ত্রী হওয়া বড় কথা নয়, জনগণের ভালোবাসাই মূল কথা। অবৈধভাবে প্রশাসনকে ব্যবহার করে ক্ষমতা দখলের প্রক্রিয়ার মধ্যে কোনো আত্মতৃপ্তি নেই।