কী চেহারায় আমরা বলব গণতন্ত্র আছে: বি চৌধুরী

  যুগান্তর রিপোর্ট ২১ মার্চ ২০১৯, ১৮:২৭ | অনলাইন সংস্করণ

কী চেহারায় আমরা বলব গণতন্ত্র আছে: বি চৌধুরী
জাতীয় প্রেসক্লাবে আলোচনা সভায় বক্তব্য দিচ্ছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। ছবি: যুগান্তর

বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রসিডেন্ট ও সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, 'কী চেহারায় আমরা বলব যে, গণতন্ত্র আছে। সংসদের দিকে তাকাতে হবে। সেখানে যেন মনে হয় যে, গণতন্ত্র আছে। মাননীয় স্পিকার সংসদ পরিচালনার সময় নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করবেন এবং সেখানে অসংসদীয় উচ্চারণ বন্ধ করতে হবে, ঘৃণা বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে।'

তিনি বলেন, 'একইভাবে রাজপথে আমরা দেখব, যখন বিরোধী রাস্তায় দাঁড়াচ্ছে, সংবাদপত্রের দিকে তাকাব সেখানে বিরোধী দলের নাম উচ্চারিত হচ্ছে, তাদের বক্তব্য থাকবে, টেলিভিশনের দিকে তাকাব যখন শুনব তারা সরকারের পাশাপাশি তাদের (বিরোধী দল) বক্তব্য আছে। একে অপরের রাজনীতিকে শ্রদ্ধা করতে হবে।'

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় জাতীয় যুক্তফ্রন্টের আহ্বায়ক এসব কথা বলেন।

ভোটারদের ‘নির্বাচন বিমুখতা’ গণতন্ত্রের জন্য বিপজ্জনক বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

সদ্য অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদে দুই পর্বে নির্বাচনে ভোটারদের অনুপস্থিতির চিত্র তুলে ধরতে গিয়ে জাতীয় যুক্তফ্রন্টের আহ্বায়ক এই আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, 'জাতীয় সংসদে নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণমূলক ছিল। কিন্তু উপজেলা নির্বাচন কী অংশগ্রহণমূলক হয়েছে, সব দল কী সেখানে আছে। সরকারকে ভাবতে হবে আজকে উপজেলা নির্বাচন কেন অংশগ্রহণমূলক হচ্ছে না। তারপর দেখা যাচ্ছে ভোটারদের অনুপস্থিতি অনেক জায়গায় কম।'

বি চৌধুরী বলেন, 'ভোটাররা কেন অংশগ্রহণ করছে না, কেন কেন কেন? এই প্রশ্নের উত্তর বের করতে হবে। যদি আমরা উদাসীন হয়ে যাই, চিন্তা না করি, তাহলে আমার আশঙ্কা যে, ভোটাররা যদি নির্বাচনবিমুখ হয়ে যায় গণতন্ত্র অনেক বিপদে পড়বে। দেশের মানুষ যদি ভোট দিতেই না যায়, তার চেয়ে বড় বিপদ আর কিছু হতে পারে না।'

উপজেলা নির্বাচনের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, 'দলের মধ্যে নেতৃত্বে লড়াই হচ্ছে- একজন দলীয় মনোনীত প্রার্থী, এক বা একাধিক জন বিদ্রোহী প্রার্থী। এই প্রতিযোগিতা কাদের মধ্যে? দলের মধ্যে, এক দলের প্রার্থী। এটা কী একদলীয় নির্বাচন হয়ে গেল না? প্রাকটিক্যাল হতে হবে। একইভাবে শুধুমাত্র দল সীমাবদ্ধ নির্বাচন কতখানি দেশের গ্রহণযোগ্য হবে-এটা ভাবতে হবে।তাই বলব, কেন এ রকম হচ্ছে- এটা দেখতে হবে।'

সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন, 'এগুলোকে খুঁজে বের করতে হবে। আমরা যে রাজনীতি করি, দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা করি, আমরা কী উদাসীন হয়ে থাকব এসব প্রশ্নে। এটা হতে পারে না। এটা দেশের জন্য মঙ্গল নয়।'

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে বিরোধী দল প্রয়োজন উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'বিরোধী দলকে রাজনীতি করতে দিতে হবে, বিরোধী দলের রাজনীতি নিশ্চিত করতে হবে। এই দায়িত্ব শুধু বিরোধী দলের নয়, এই দায়িত্ব সরকারের।এই সরকার ভালো ও সুন্দর সরকার, জনগণের মঙ্গলকজনক আকাঙ্ক্ষার সরকার, একটি গণতান্ত্রিক সরকার, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সরকার।তাদেরকে ভাবতে হবে কীভাবে বিরোধী দলকে রাজনীতির সুযোগ করে দেয়া যায়।'

তিনি বলেন, 'পৃথিবীর সব গণতান্ত্রিক সরকার যে দেশে হয়েছে সে দেশে বিরোধী দলের রাজনীতি আছে। বিরোধী দল ছাড়া গণতন্ত্র সম্পূর্ণ হয় না। এটা আংশিক গণতন্ত্র, যেটা ইনকমপ্লিট ডেমোক্রেসি। কমপ্লিট ডেমোক্রেসি অর্থ্যাৎ সত্যিকার গণতন্ত্রের স্বার্থে আমাদের দেশে বিরোধী দলের ভূমিকা নিশ্চয়ই থাকতে হবে। সরকারকে বড় ত্যাগ স্বীকার করতে হবে, তাকেই এগিয়ে আসতে হবে। নইলে গর্ভামেন্ট ইজ দ্য ইম্পরটেন্ট অথরিটি যেখানে সরকার ভবিষ্যতে সমালোচিত হবে।'

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনের তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের কথা বলেন বি চৌধুরী।

আগামী ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন প্রসঙ্গে বি চৌধুরী বলেন, 'ইউপি নির্বাচনের জন্য সবাই প্রস্তুতি নিন। এটি তৃণমূল পর্যায়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন। আমি আশা করব, আমাদের ফ্রন্টের সবাইকে অনুরোধ করব আপনারা ইউপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন ইনশাআল্লাহ। প্রত্যেকটা ইউনিয়নে জনগণের মধ্যে আমাদের রাজনীতি ও আদর্শ ছড়িয়ে দিতে হবে।'

সড়ক-মহাসড়ক দুর্ঘটনা রোধে সরকারে শক্ত অবস্থান নেয়ার পরামর্শ দেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, 'আইন আছে, প্রয়োগ নেই- এই অবস্থার অবসান করতে হবে। সরকারকে বলব, আমাদের সন্তানদের এভাবে হত্যা করা আমরা কখনো গ্রহণ করব না। এই ব্যাপারে শক্ত হতে হবে।আমরা চাই, আইন আছে, প্রয়োগ করতে হবে, আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে।'

জাতীয় প্রেসক্লাবের সাংবাদিক আবদুস সালাম হলে জাতীয় যুক্তফ্রন্টের অন্যতম শরিক ‘বাংলাদেশ শরীয়াহ আন্দোলন’ সংগঠনের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়।

সংগঠনের আমির মাওলানা মুহাম্মদ মাসুদ বিল্লাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএলডিপির চেয়ারম্যান নাজিমউদ্দিন আলম, বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম সারোয়ার মিলন, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান হামদুল্লাহ আল মেহেদি, এনডিপির মহসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈসা, শরীয়াহ আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা গাজী মাসউদুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×