এলডিপি সভাপতি

বিএনপি চেয়ারপারসনকে অন্যায়ভাবে সাজা দেয়া হয়েছে

প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৩:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ। ফাইল ছবি

এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেছেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দেয়া হয়েছে। এ মামলায় তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে প্রতিবাদী ছাত্র সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

অলি আহমদ বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনকে যেভাবে সাজা দেয়া হয়েছে, তা অন্যায় হয়েছে। কারণ ১০ দিনের মধ্যে এত বিশাল রায় লেখা একজন বিচারকের পক্ষে সম্ভব নয়। সরকারের উদ্দেশ্য ছিল, খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠাবে। আর সে জন্য রায় ঘোষণার আগে থেকেই কারাগার পরিষ্কার করার কাজ শুরু করে। 

খালেদা জিয়াকে অসম্মান করতেই ডিভিশন না দিয়েই নির্জন কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এলডিপি সভাপতি বলেন, ‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বলা হয়েছে- খালেদা জিয়া এতিমের টাকা মেরে খেয়েছেন। কিন্তু এ ট্রাস্টের সব টাকাই তো ব্যাংকে আছে। তা হলে আত্মসাৎ হল কীভাবে? খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়াই সরকারের উদ্দেশ্য ছিল।’ 

খালেদা জিয়া বা তারেক রহমানের নামে এ ট্রাস্টের কোনো অ্যাকাউন্ট নেই বলে জানান তিনি।

অলি আহমদ বলেন, ‘এক-এগারোর সেনাসমর্থিত সরকারের সময় শুধু খালেদা জিয়া নয়, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের অনেক নেতার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা হয়েছে। তারা ক্ষমতায় এসে নিজেদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলাগুলো রাজনৈতিক বিবেচনায় বাতিল করেছে। কিন্তু অন্যায়ভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে হওয়া মামলাগুলো সচল রেখেছে।’

‘বর্তমান সরকারের উদ্দেশ্য খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে আবারও একটা পাতানো নির্বাচন করা। কিন্তু বাংলাদেশে খালেদা জিয়া, ২০ দল ও জাতীয়তাবাদী শক্তিকে বাইরে রেখে কোনো নির্বাচন হবে না’, যোগ করেন তিনি।

অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্তি দিতে হবে উল্লেখ করে কর্নেল অলি বলেন, ‘তাকে কারাগারে আটকে রেখে আগামী নির্বাচন হবে না। আমরা আশা করব, সরকার দ্রুত খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্তির ব্যবস্থা করবে। না হলে এটিই তাদের পতনের কারণ হবে।’