খুলনায় চরমোনাই পীর

‘আসামে নাগরিকত্ব হরণের ঘটনা বাংলাদেশের জন্য উদ্বেগজনক’

  খুলনা ব্যুরো ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:১২ | অনলাইন সংস্করণ

খুলনার শহীদ হাদীস পার্কে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সমাবেশে চরমোনাই পীর। ছবি: যুগান্তর
খুলনার শহীদ হাদীস পার্কে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সমাবেশে চরমোনাই পীর। ছবি: যুগান্তর

আসামের ১৯ লাখ মানুষ নাগরিকত্ব তালিকা থেকে বাদ পড়া বাংলাদেশের জন্য উদ্বেগজনক বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম।

তিনি বলেন, কাশ্মীর বিতর্কের পর আসামের ১৯ লাখ মানুষের নাগরিকত্ব কেড়ে নিতে যাচ্ছে ভারতের উগ্রবাদী সরকার। বিজেপির ভাষ্যমতে এ ১৯ লাখ মানুষ বাংলাদেশি নাগরিক। বর্তমান রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করতেই সরকার যেখানে পুরোপুরি ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে, সেখানে আসামের ১৯ লাখ নাগরিক এনআরসির রিপোর্ট থেকে বাদ পড়া বাংলাদেশের জন্য উদ্বেগজনক। যা বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বর জন্য হুমকি।

চরমোনাই পীর আরও বলেন, আসামে ১৯ লাখ বাঙালির নাগরিকত্ব হরণের মতো ঘটনায় আমরা চুপ থাকতে পারি না।

মঙ্গলবার খুলনার শহীদ হাদীস পার্কে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের খুলনা বিভাগীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ছাত্র সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুফতি রেজাউল করীম এ সব কথা বলেন।

ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মাদ মুস্তাকিম বিল্লাহের সভাপতিত্বে এবং খুলনা জেলা সভাপতি এস কে নাজমুল হাসান ও নগর সভাপতি মুহা. সাইফুল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় এ বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথি বলেন, গার্মেন্টস শিল্প বর্তমানে চরম সংকটে। শুধু এক কারখানায় ৭০০ শ্রমিক চাকরিচ্যুত হয়েছে। চামড়া শিল্প একবারে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে। দেশ এখন চরম নিরাপত্তা সংকটে ভুগছে। সরকারের প্রশাসনিক অব্যবস্থাপনা ও কর্মকর্তাদের চারিত্রিক অবনমন, ব্যাংক খাতে ভয়ঙ্কর দুর্নীতি, রাজনৈতিক স্বেছাচারিতা দেশকে এক সংকটময় ভবিষ্যতের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এ সব সমস্যা সমাধানে জনগণের ঐক্যবদ্ধতার বিকল্প নেই।

বিভাগীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্যে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারুফ বলেন, দেশে কর্মমুখী শিক্ষার অভাবে বেকারত্ব কঠিন আকার ধারণ করেছে। সম্প্রতি গবেষণায় দেখা যাচ্ছে ৪৭% স্নাতকই বেকার। যা দেশের সরকারের চরম ব্যর্থতার বহিঃপ্রকাশ।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বিজ্ঞান চর্চা ও গবেষণার প্রয়োজনীয় সুযোগ নেই। গবেষণা খাত আজ চরম হুমকির মুখে। মেধাবী শিক্ষার্থীরা দেশ ছেড়ে বিদেশে চলে যাচ্ছে উচ্চশিক্ষার জন্য। সরকারের ছাত্র রাজনীতির সমস্যা দূরীকরণে কার্যকরী কোনো ভূমিকা নেই, যা আগামীতে উন্নয়ন-সুশাসন ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার প্রতিবন্ধক। ক্যাম্পাসে ছাত্র অপরাজনীতির বলি হচ্ছে শত শতশিক্ষার্থী; তৈরি হচ্ছে নেতৃত্ব সংকট।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ্ ডা. মোখতার হুসাইন, আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী, নায়েবে আমির অধ্যক্ষ হাফেজ মাও: আব্দুল আউয়াল, মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাও: ইউনুছ আহমাদ, যুগ্ম-মহাসচিব অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, ইশা ছাত্র আন্দোলনের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাও: মুহাম্মাদ আরিফুল ইসলাম, ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক শেখ মুহা. আল-আমিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মুহা.আব্দুল জলিল, কেন্দ্রীয় সদস্য এম এ হাসিব গোলদার, মুহা. ইবরাহীম হুসাইন, ইশা ছাত্র আন্দোলনের খুলনা বিভাগের আওতাধীন সব জেলা সভাপতিগণ এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা জেলা-মহানগর ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

ঘটনাপ্রবাহ : আসামে বাঙালি সংকট

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×