খালেদা জিয়ার ওপর ‘চিকিৎসা সন্ত্রাস’ চলছে: রিজভী

  যুগান্তর ডেস্ক    ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

খালেদা জিয়ার ওপর ‘চিকিৎসা সন্ত্রাস’ চলছে: রিজভী
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ফাইল ছবি

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ওপর রীতিমতো ‘চিকিৎসা সন্ত্রাস’ চলছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, গণমানুষের নেত্রী খালেদা জিয়াকে বিনা অপরাধে ৬৮৫ দিন ধরে বন্দি করে রাখা হয়েছে। তিনি গুরুতর অসুস্থ হলেও সুচিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তার সুচিকিৎসা ও ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানালেও তাতে কর্ণপাত করছেন না প্রধানমন্ত্রী। খালেদা জিয়ার ন্যায্য জামিনে বাধা দেয়া হচ্ছে। এখন তার ওপর চলছে রীতিমতো চিকিৎসা সন্ত্রাস।

মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, খালেদা জিয়া কেমন আছেন? তাকে নিয়ে কি করা হচ্ছে কিছুই জানতে দেয়া হচ্ছে না। আমরা আশঙ্কায় আছি দেশনেত্রীকে নিয়ে। তার অসুস্থতা পূর্বের চেয়ে ভিন্ন ও গভীর। আমরা চরম উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠায় আছি। আসলে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও নিয়মিত ওষুধ সেবনে কোনো কারসাজি করা হচ্ছে কিনা? সরকারপ্রধানের সরাসরি হস্তক্ষেপে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মনগড়া স্বাস্থ্য প্রতিবেদনে জামিন বন্ধ করে দেয়া হয়। তারপর থেকে আমরা আশঙ্কা করছি দেশনেত্রীকে প্রাণনাশ করার ভয়ঙ্কর কোনো নীলনকশা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে কিনা?

বিএনপির এই নেতা বলেন, কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকাসহ ভারতীয় পত্র-পত্রিকায় বাংলাদেশের আওয়ামী লীগ সরকারের সঙ্গে দিল্লির সম্পর্ক শীতল এবং টানাপোড়েন চলছে বলে প্রতিবেদন প্রকাশিত হচ্ছে। বিশ্বস্ত প্রতিবেশী দেশের সরকারের সঙ্গে সম্ভবত কোনো কারণে অম্লমধুর বিরহ পর্ব চলছে শেখ হাসিনার সরকারের। এতে প্রতিবেশীর আস্থাভাজন রাতের অন্ধকারে ভোট ডাকাতি করে ক্ষমতায় থাকা এই অবৈধ সরকারের মাথা বিগড়ে গিয়েছে। ফলে মুরুব্বীদের তুষ্ট করে শীতল সম্পর্ক উষ্ণ করতে আবোল-তাবোল প্রলাপ বকা শুরু করেছেন এই সরকারের মন্ত্রী ও নেতারা।

তিনি বলেন, নাগরিকত্ব আইন এবং নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) জটিলতায় সংখ্যালঘু ভারতীয় মুসলমানদের রাষ্ট্রহীন ঘোষণার জেরে গোটা ভারত যখন বিক্ষোভে উত্তাল তখন আওয়ামী লীগ সরকার তাদের ন্যক্কারজনকভাবে সমর্থন দিচ্ছে। সম্প্রতি ভারতীয় জনতা পার্টির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ পার্লামেন্টে তার বক্তব্যে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টানরা বর্তমান শেখ হাসিনা সরকারের সময় এখনও নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন। এরপর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তাদের প্রতিবেশী মুরুব্বীদের সামাল দিতে দায় এড়ানোর জন্য দোষ চাপাচ্ছেন বিএনপির ওপর।

রিজভী বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেবরাও নিজেদের অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে বিদেশি মুরুব্বীদের প্রতিভু হয়ে তাদের কুর্ণিশ করছে। এ কারণে মুরুব্বীদের প্রীতিধন্য হওয়ার জন্য নিজ দেশের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী দলের বিরুদ্ধে মিথ্যা কলঙ্ক রটনা করতে প্রতিযোগিতায় নেমেছে।

তিনি বলেন, আমরা আবারও বলছি, ২০০১ সাল কেন, বিএনপির কোনো শাসন আমলেই দেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের কোনো ঘটনাই ঘটেনি। আবহমানকাল ধরে একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ হিসেবে বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান থেকে শুরু করে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি সরকারের সময় বরাবরই বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ণ ছিল। এমনকি বাবরী মসজিদ সংকট এবং গুজরাট-দাঙ্গার সময় এবং খালেদা জিয়ার আমলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অটুট বাঁধনে কোনো চিড় ধরেনি। এককথায় বলতে গেলে বিএনপির সরকারের সময় সংখ্যালঘুদের সর্বোচ্চ স্বার্থ রক্ষিত হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ।

ঘটনাপ্রবাহ : কারাগারে খালেদা জিয়া

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×