পুলিশকে মারলে জেল, সাংবাদিককে মারলে কেন নয়: তাবিথ
jugantor
পুলিশকে মারলে জেল, সাংবাদিককে মারলে কেন নয়: তাবিথ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪:২১:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের দিনে পুলিশের গায়ে হাত দেয়ার অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করা হলেও একই দিনে সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও রক্তাক্ত করার অপরাধে কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। এ নিয়ে প্রশ্ন তুলে ঢাকা উত্তরে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেছেন, এমনটি কোনো সভ্য দেশে হতে পারে না।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর গুলশান ইমানুয়েলস কনভেনশন সেন্টারে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। এতে বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণের বিএনপি প্রার্থী ইশরাক হোসেনও। সিটির ভোট নিয়ে বিএনপির দুই মেয়রপ্রার্থীর আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

তাবিথ আউয়াল বলেন, নির্বাচনের দিন কেবল বিএনপির নেতাকর্মী বা সমর্থক হামলার শিকার হননি। ওই দিন নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত বেশ কয়েকজন সাংবাদিক আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ভোটের দিনে নানা ধরনের অনিয়ম, কারচুপি ও পুলিশি হয়রানির অভিযোগ করে তার পক্ষে সংগৃহীত তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরেন তাবিথ আউয়াল। পাওয়ারপয়েন্টের মাধ্যমে সাংবাদিকদের সামনে সব কিছু তুলে ধরেন তিনি।

সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, বরকতউল্লাহ বুলু, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দফতরপ্রধান জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু।

পুলিশকে মারলে জেল, সাংবাদিককে মারলে কেন নয়: তাবিথ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০২:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের দিনে পুলিশের গায়ে হাত দেয়ার অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করা হলেও একই দিনে সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও রক্তাক্ত করার অপরাধে কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। এ নিয়ে প্রশ্ন তুলে ঢাকা উত্তরে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেছেন, এমনটি কোনো সভ্য দেশে হতে পারে না।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর গুলশান ইমানুয়েলস কনভেনশন সেন্টারে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। এতে বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণের বিএনপি প্রার্থী ইশরাক হোসেনও। সিটির ভোট নিয়ে বিএনপির দুই মেয়রপ্রার্থীর আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

তাবিথ আউয়াল বলেন, নির্বাচনের দিন কেবল বিএনপির নেতাকর্মী বা সমর্থক হামলার শিকার হননি। ওই দিন নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত বেশ কয়েকজন সাংবাদিক আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ভোটের দিনে নানা ধরনের অনিয়ম, কারচুপি ও পুলিশি হয়রানির অভিযোগ করে তার পক্ষে সংগৃহীত তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরেন তাবিথ আউয়াল। পাওয়ারপয়েন্টের মাধ্যমে সাংবাদিকদের সামনে সব কিছু তুলে ধরেন তিনি।

সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, বরকতউল্লাহ বুলু, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দফতরপ্রধান জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন-২০২০

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০