সমাজতন্ত্র ছাড়া গণতন্ত্র একটি পোড়া রুটি: ইনু
jugantor
সমাজতন্ত্র ছাড়া গণতন্ত্র একটি পোড়া রুটি: ইনু

  যশোর ব্যুরো  

০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২০:০৭:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোর জেলা জাসদের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন হাসানুল হক ইনু
যশোর জেলা জাসদের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন হাসানুল হক ইনু

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি বলেছেন, সমাজতন্ত্র ছাড়া গণতন্ত্র একটি পোড়া রুটি। তাই সমাজতন্ত্রের ঝাণ্ডা হাতে নিয়ে গণতন্ত্রের সংগ্রাম করতে হবে।

তিনি বলেন, সমাজতন্ত্রের ঝাণ্ডা হাতে নিয়েই সাম্প্রদায়িকতা, সাম্রাজ্যবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

রোববার দুপুরে যশোর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে যশোর জেলা জাসদের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাসানুল হক ইনু এ সব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সৎ রাজাকার আর পরহেজগার জঙ্গি বলে কিছু নেই। সব রাজাকার আর জঙ্গি মানুষরূপী দানব শয়তান। ঠিক তেমনি দুর্নীতিবাজরা অর্থনীতির বিষফোঁড়া এবং ফসল কাটা ইঁদুর। অসাম্প্রদায়িক ও শান্তির সমাজ হিসেবে দেখতে চাইলে জঙ্গি দমনের মতো শূন্য সহিষ্ণু নীতিতে দুর্নীতিবাজদের ধ্বংস করে দিতে হবে।

ইনু বলেন, জাসদ সমাজতন্ত্রের দল। জাসদ সমাজ পরিবর্তনে বিশ্বাস করে। জাসদ বিশ্বাস করে সমাজ পরিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ বাধা সাম্প্রদায়িকতা। আপনি বামপন্থী হলে সামনে দাঁড়িয়ে সাম্প্রদায়িকতা, সাম্রাজ্যবাদ ও বিদেশি হানাদার বাহিনীর আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

তিনি বলেন, জাতীয় স্বার্থরক্ষার জন্য সামরিক স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে সামনে দাঁড়িয়ে লড়াই করতে হবে। মুক্তবাজার অর্থনীতিকে ছুড়ে ফেলতে হবে। জাতীয় স্বার্থরক্ষায় কোনো ছাড় দিবে না জাসদ। সুশাসন প্রতিষ্ঠায়ও জাসদ কোনো ছাড় দেবে না।

জাসদ সভাপতি বলেন, সরকারের বিগত ১০ বছর ছিল সাম্প্রদায়িক শক্তি, যুদ্ধাপরাধী, জঙ্গি ও নাশকতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ। ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নতুন পর্ব শুরু হয়েছে। এই পর্বটি বিগত ১০ বছরের যুদ্ধের চেয়ে কঠিন। কারণ এই পর্বে একটা পাটাতন তৈরি করতে হবে। জমিন তৈরি করতে হবে। যে জমিনে ভবিষ্যৎ নাতি-পুতিদের নিরাপদ নিশ্চিত করতে হবে। তারা যাতে হাসি-খুশিতে বসবাস করতে পারে, সেই ব্যবস্থা করতে হবে।

তিনি বলেন, এই সংগ্রামে জয়ী হতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পুনর্জাগরণ দরকার; সর্বস্তরে বাঙালিয়ানা চর্চা দরকার। সরকারের নতুন এই পর্বে চেতনার পুনর্জাগরণ হলে সমাজে, প্রশাসনে ও রাষ্ট্রে দুর্নীতি থাকবে না।

যশোর জেলা জাসদের সহ-সভাপতি রশিদুর রহমান রশিদের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাদের চৌধুরী ও ওবায়দুর রহমান চুন্নু,সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আলিম স্বপন। সম্মেলন সঞ্চালনা করেন যশোর জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা অশোক রায়।

সম্মেলন শেষে মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলমকে সভাপতি ও অশোক রায়কে সাধারণ সম্পাদক করে যশোর জেলা জাসদের কমিটি ঘোষণা করা হয়।

সমাজতন্ত্র ছাড়া গণতন্ত্র একটি পোড়া রুটি: ইনু

 যশোর ব্যুরো 
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৮:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যশোর জেলা জাসদের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন হাসানুল হক ইনু
যশোর জেলা জাসদের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন হাসানুল হক ইনু

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি বলেছেন, সমাজতন্ত্র ছাড়া গণতন্ত্র একটি পোড়া রুটি। তাই সমাজতন্ত্রের ঝাণ্ডা হাতে নিয়ে গণতন্ত্রের সংগ্রাম করতে হবে।

তিনি বলেন, সমাজতন্ত্রের ঝাণ্ডা হাতে নিয়েই সাম্প্রদায়িকতা, সাম্রাজ্যবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

রোববার দুপুরে যশোর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে যশোর জেলা জাসদের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাসানুল হক ইনু এ সব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সৎ রাজাকার আর পরহেজগার জঙ্গি বলে কিছু নেই। সব রাজাকার আর জঙ্গি মানুষরূপী দানব শয়তান। ঠিক তেমনি দুর্নীতিবাজরা অর্থনীতির বিষফোঁড়া এবং ফসল কাটা ইঁদুর। অসাম্প্রদায়িক ও শান্তির সমাজ হিসেবে দেখতে চাইলে জঙ্গি দমনের মতো শূন্য সহিষ্ণু নীতিতে দুর্নীতিবাজদের ধ্বংস করে দিতে হবে।

ইনু বলেন, জাসদ সমাজতন্ত্রের দল। জাসদ সমাজ পরিবর্তনে বিশ্বাস করে। জাসদ বিশ্বাস করে সমাজ পরিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ বাধা সাম্প্রদায়িকতা। আপনি বামপন্থী হলে সামনে দাঁড়িয়ে সাম্প্রদায়িকতা, সাম্রাজ্যবাদ ও বিদেশি হানাদার বাহিনীর আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

তিনি বলেন, জাতীয় স্বার্থরক্ষার জন্য সামরিক স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে সামনে দাঁড়িয়ে লড়াই করতে হবে। মুক্তবাজার অর্থনীতিকে ছুড়ে ফেলতে হবে। জাতীয় স্বার্থরক্ষায় কোনো ছাড় দিবে না জাসদ। সুশাসন প্রতিষ্ঠায়ও জাসদ কোনো ছাড় দেবে না।

জাসদ সভাপতি বলেন, সরকারের বিগত ১০ বছর ছিল সাম্প্রদায়িক শক্তি, যুদ্ধাপরাধী, জঙ্গি ও নাশকতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ। ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নতুন পর্ব শুরু হয়েছে। এই পর্বটি বিগত ১০ বছরের যুদ্ধের চেয়ে কঠিন। কারণ এই পর্বে একটা পাটাতন তৈরি করতে হবে। জমিন তৈরি করতে হবে। যে জমিনে ভবিষ্যৎ নাতি-পুতিদের নিরাপদ নিশ্চিত করতে হবে। তারা যাতে হাসি-খুশিতে বসবাস করতে পারে, সেই ব্যবস্থা করতে হবে।

তিনি বলেন, এই সংগ্রামে জয়ী হতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পুনর্জাগরণ দরকার; সর্বস্তরে বাঙালিয়ানা চর্চা দরকার। সরকারের নতুন এই পর্বে চেতনার পুনর্জাগরণ হলে সমাজে, প্রশাসনে ও রাষ্ট্রে দুর্নীতি থাকবে না।

যশোর জেলা জাসদের সহ-সভাপতি রশিদুর রহমান রশিদের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাদের চৌধুরী ও ওবায়দুর রহমান চুন্নু,সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আলিম স্বপন। সম্মেলন সঞ্চালনা করেন যশোর জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা অশোক রায়।

সম্মেলন শেষে মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলমকে সভাপতি ও অশোক রায়কে সাধারণ সম্পাদক করে যশোর জেলা জাসদের কমিটি ঘোষণা করা হয়।