নিশীরাতের সরকারের মন্ত্রীদের চিৎকারে লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়: রিজভী
jugantor
নিশীরাতের সরকারের মন্ত্রীদের চিৎকারে লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়: রিজভী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৪ মার্চ ২০২০, ১৪:৩৯:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকারের মন্ত্রীদের বক্তব্যে বিবেকবান মানুষের লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, নিশিরাতের সরকারের মন্ত্রীরা চিৎকার করে যখন বলেন, সরকার আদালতের রায়ে হস্তক্ষেপ করে না, তখন আওয়ামী লীগ লজ্জা না পেলেও বিবেকবান দেশবাসীর লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়।


বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ শঙ্কার কথা বলেন।

রিজভী বলেন, এখন উল্টোপথে চলছে দেশ। কবি শামসুর রাহমানের ভাষায়– ‘উদ্ভট উটের পিঠে চলেছে স্বদেশ’। ক্ষমতাসীনরা নিজেদের মনে করছেন আইন আদালতের ঊর্ধ্বে। ফ্যাসিবাদ জাঁকিয়ে বসেছে হিংস্র রূপ নিয়ে। নিজেদের ইচ্ছেমতো রায় বের করার জন্য দেশের আদালতকে ব্যবহার করা হচ্ছে।

মন্ত্রীদের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, এর পরও যখন নিশিরাতের সরকারের মন্ত্রীরা চিৎকার করে বলেন, সরকার আদালতের রায়ে হস্তক্ষেপ করে না, তখন আওয়ামী লীগ লজ্জা না পেলেও বিবেকবান দেশবাসীর লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়। এতসব ভনিতার কি দরকার? পরিষ্কার করে বলে দিলেই তো হয়- ‘কিসের আবার আইন’! ‘শেখ হাসিনার কথাই তো চূড়ান্ত আইন’! কথায় বলে, হাকিম নড়ে তো হুকুম নড়ে না। অথচ নিশিরাতের সরকারের আমলে জনগণ কি দেখছে? হাকিমও নড়ে, হুকুমও নড়ে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হুকুম নড়ে না। এটাকেই বলে– আইন আদালত মাকড়সার জালের মতো। মন্ত্রী-এমপি, ক্ষমতাসীনরা এই জালে আটকাবে না, এই জালে আটকাবে সাধারণ জনগণ আর বিরোধী দলের নেতাকর্মীরা– এরই নাম আওয়ামী লীগ।

নিশীরাতের সরকারের মন্ত্রীদের চিৎকারে লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়: রিজভী

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৪ মার্চ ২০২০, ০২:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকারের মন্ত্রীদের বক্তব্যে বিবেকবান মানুষের লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। 

তিনি বলেন, নিশিরাতের সরকারের মন্ত্রীরা চিৎকার করে যখন বলেন, সরকার আদালতের রায়ে হস্তক্ষেপ করে না, তখন আওয়ামী লীগ লজ্জা না পেলেও বিবেকবান দেশবাসীর লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়। 


বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ শঙ্কার কথা বলেন।

রিজভী বলেন, এখন উল্টোপথে চলছে দেশ। কবি শামসুর রাহমানের ভাষায়– ‘উদ্ভট উটের পিঠে চলেছে স্বদেশ’। ক্ষমতাসীনরা নিজেদের মনে করছেন আইন আদালতের ঊর্ধ্বে। ফ্যাসিবাদ জাঁকিয়ে বসেছে হিংস্র রূপ নিয়ে। নিজেদের ইচ্ছেমতো রায় বের করার জন্য দেশের আদালতকে ব্যবহার করা হচ্ছে। 

মন্ত্রীদের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, এর পরও যখন নিশিরাতের সরকারের মন্ত্রীরা চিৎকার করে বলেন, সরকার আদালতের রায়ে হস্তক্ষেপ করে না, তখন আওয়ামী লীগ লজ্জা না পেলেও বিবেকবান দেশবাসীর লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়। এতসব ভনিতার কি দরকার? পরিষ্কার করে বলে দিলেই তো হয়- ‘কিসের আবার আইন’! ‘শেখ হাসিনার কথাই তো চূড়ান্ত আইন’! কথায় বলে, হাকিম নড়ে তো হুকুম নড়ে না। অথচ নিশিরাতের সরকারের আমলে জনগণ কি দেখছে? হাকিমও নড়ে, হুকুমও নড়ে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হুকুম নড়ে না। এটাকেই বলে– আইন আদালত মাকড়সার জালের মতো। মন্ত্রী-এমপি, ক্ষমতাসীনরা এই জালে আটকাবে না, এই জালে আটকাবে সাধারণ জনগণ আর বিরোধী দলের নেতাকর্মীরা– এরই নাম আওয়ামী লীগ।

 
আরও খবর