বহিষ্কার পাল্টা-বহিষ্কারের মধ্যে গণফোরামের কমিটি ভেঙে দিলেন ড. কামাল
jugantor
বহিষ্কার পাল্টা-বহিষ্কারের মধ্যে গণফোরামের কমিটি ভেঙে দিলেন ড. কামাল

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৪ মার্চ ২০২০, ১৪:৫২:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

বহিষ্কার পাল্টাবহিষ্কারের মুখে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দিলেন দলটির সভাপতি ড. কামাল হোসেন। একই সঙ্গে পরবর্তী কাউন্সিল না হওয়ার পর্যন্ত দুই সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি হিসেবে থাকছেন কামাল হোসেন নিজেই এবং সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে বিলুপ্ত কমিটির সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়াকে।

বুধবার বেলা ১২টার দিকে গণমাধ্যমে পাঠানো কামাল হোসেন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, সাংগঠনিক স্থবিরতা দূর করতে গত বছরের ২৬ এপ্রিল গণফোরামের বিশেষ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। ওই কাউন্সিলে কমিটি গঠনের দায়িত্বে দেয়া হয় সংগঠনের সভাপতিকে। নিয়মানুযায়ী সাবজেক্ট কমিটি গঠনের পরিবর্তে ৩-৪ জন কেন্দ্রীয় নেতা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী কমিটি গঠন করে সভাপতির অনুমোদন করিয়ে নেন। এতে করে নবগঠিত কমিটি সাংগঠনিক অবস্থা গতিশীল করার পরিবর্তে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে ড. কামাল আরও বলেন, কতিপয় দায়িত্বশীল নেতার দায়িত্বহীন আচার-আচরণে সাংগঠনিক শৃঙ্খলার অভাব দেখা দেয়। পত্রিকায় অনাকাঙ্ক্ষিত খবর প্রকাশিত হয়, যা সংগঠনের বৃহত্তর স্বার্থে মেনে নেয়া যায় না। তাই কাউন্সিলের ক্ষমতাবলে গত বছরের ৫ মে গঠিত গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করছি।

আহ্বায়ক কমিটি গঠনের কথা জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পরবর্তী কাউন্সিল না হওয়ার পর্যন্ত সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনের জন্য ২ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

চলতি মাসের মধ্যে আহ্বায়ক কমিটির অন্যান্য সদস্যের নাম ঘোষণা করা হবে। তবে গণফোরামের জেলা, থানা ও ওয়ার্ড কমিটিগুলো আগের মতো বহাল থাকবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত বহিষ্কার পাল্টাবহিষ্কার নিয়ে গত দুদিন ধরে গণমাধ্যমে শিরোনাম হচ্ছে গণফোরাম। কমিটির দুই সাংগঠনিক সম্পাদকসহ চার নেতাকে বহিষ্কার নিয়ে এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।

বহিষ্কার পাল্টা-বহিষ্কারের মধ্যে গণফোরামের কমিটি ভেঙে দিলেন ড. কামাল

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৪ মার্চ ২০২০, ০২:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বহিষ্কার পাল্টাবহিষ্কারের মুখে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দিলেন দলটির সভাপতি ড. কামাল হোসেন। একই সঙ্গে পরবর্তী কাউন্সিল না হওয়ার পর্যন্ত দুই সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি হিসেবে থাকছেন কামাল হোসেন নিজেই এবং সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে বিলুপ্ত কমিটির সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়াকে।

বুধবার বেলা ১২টার দিকে গণমাধ্যমে পাঠানো কামাল হোসেন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

এতে বলা হয়েছে, সাংগঠনিক স্থবিরতা দূর করতে গত বছরের ২৬ এপ্রিল গণফোরামের বিশেষ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। ওই কাউন্সিলে কমিটি গঠনের দায়িত্বে দেয়া হয় সংগঠনের সভাপতিকে। নিয়মানুযায়ী সাবজেক্ট কমিটি গঠনের পরিবর্তে ৩-৪  জন কেন্দ্রীয় নেতা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী কমিটি গঠন করে সভাপতির অনুমোদন করিয়ে নেন। এতে করে নবগঠিত কমিটি সাংগঠনিক অবস্থা গতিশীল করার পরিবর্তে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে ড. কামাল আরও বলেন, কতিপয় দায়িত্বশীল নেতার দায়িত্বহীন আচার-আচরণে সাংগঠনিক শৃঙ্খলার অভাব দেখা দেয়। পত্রিকায় অনাকাঙ্ক্ষিত খবর প্রকাশিত হয়, যা সংগঠনের বৃহত্তর স্বার্থে মেনে নেয়া যায় না। তাই কাউন্সিলের ক্ষমতাবলে গত বছরের ৫ মে গঠিত গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করছি। 

আহ্বায়ক কমিটি গঠনের কথা জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পরবর্তী কাউন্সিল না হওয়ার পর্যন্ত সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনের জন্য ২ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

চলতি মাসের মধ্যে আহ্বায়ক কমিটির অন্যান্য সদস্যের নাম ঘোষণা করা হবে। তবে গণফোরামের জেলা, থানা ও ওয়ার্ড কমিটিগুলো আগের মতো বহাল থাকবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত বহিষ্কার পাল্টাবহিষ্কার নিয়ে গত দুদিন ধরে গণমাধ্যমে শিরোনাম হচ্ছে গণফোরাম। কমিটির দুই সাংগঠনিক সম্পাদকসহ চার নেতাকে বহিষ্কার নিয়ে এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।