মোদিকে স্বাগত জানাবে বাংলাদেশের জনগণ: রওশন এরশাদ
jugantor
মোদিকে স্বাগত জানাবে বাংলাদেশের জনগণ: রওশন এরশাদ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৭ মার্চ ২০২০, ২২:৩৮:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

মোদিকে স্বাগত জানাবে বাংলাদেশের জনগণ: রওশন এরশাদ

জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এমপি বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে বাংলাদেশের জনগণ স্বাগত জানাবে। ভারত বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মিত্র। বাংলাদেশ বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্র ভারতের কাছে কৃতজ্ঞ।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমন উপলক্ষে এক বিবৃতিতে তিনি শনিবার এ কথা বলেন।

বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, নরেন্দ্র মোদি আমাদের সম্মানিত রাষ্ট্রীয় অতিথি, মুক্তিযুদ্ধের প্রধান মিত্র ভারতের প্রতিনিধি হিসেবে ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে যোগ দিচ্ছেন। তার এই সফর উষ্ণ ও আন্তরিকতাপূর্ণ হবে এবং বাংলাদেশের জনগণ মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান ও বন্ধনকে ভালোভাবে নেবে।

দিলি­র সাম্প্রতিক ঘটনাকে দুঃখজনক হিসেবে উলে­খ করে রওশন এরশাদ বলেন, কোনো একটি দিক বিবেচনায় নিয়ে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক নির্ধারিত হয় না। যে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় সার্বিক পরিবেশ ও ভূ-রাজনৈতিক অবস্থা বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নিতে হয়।

তিনি আরও বলেন, নরেন্দ্র মোদি কোনো দলীয় প্রধান হিসেবে বাংলাদেশ সফর করছেন না বরং তিনি বন্ধুপ্রতীম ভারত রাষ্ট্রের সরকার প্রধান হিসেবে বাংলাদেশ সফর করছেন। ভারতের নাগরিকদের সঙ্গে বাংলাদেশের সব নাগরিকের হাজার বছরের মেলবন্ধন। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হিসেবে দিল্লিরঘটনায় বাংলাদেশে ক্ষোভের সঞ্চর হয়েছে এ কথা সত্য। কিন্তু বিশ্ব-মানবতার প্রতি বরাবরের মতো আস্থা রেখে আমাদের ধৈর্য্য ধারণ করা উচিত। নরেন্দ্র মোদির সফরকে ধর্মীয় অনুভূতির সঙ্গে মিলিয়ে প্রতিবাদ-প্রতিরোধের ডাক না দিয়ে আমাদের উচিত হবে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে পরীক্ষিত বন্ধু ভারতের সরকার প্রধানকে স্বাগত জানানো।

অতিথি পরায়নতার সুনাম অক্ষুণ্ণ রেখে মানবতার পরিচয় তুলে ধরতে বিরোধীদলীয় নেতা দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বানজানান।

মোদিকে স্বাগত জানাবে বাংলাদেশের জনগণ: রওশন এরশাদ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৭ মার্চ ২০২০, ১০:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মোদিকে স্বাগত জানাবে বাংলাদেশের জনগণ: রওশন এরশাদ
রওশন এরশাদ। ফাইল ছবি

জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এমপি বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে বাংলাদেশের জনগণ স্বাগত জানাবে। ভারত বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মিত্র। বাংলাদেশ বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্র ভারতের কাছে কৃতজ্ঞ।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমন উপলক্ষে এক বিবৃতিতে তিনি শনিবার এ কথা বলেন।

বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, নরেন্দ্র মোদি আমাদের সম্মানিত রাষ্ট্রীয় অতিথি, মুক্তিযুদ্ধের প্রধান মিত্র ভারতের প্রতিনিধি হিসেবে ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে যোগ দিচ্ছেন। তার এই সফর উষ্ণ ও আন্তরিকতাপূর্ণ হবে এবং বাংলাদেশের জনগণ মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান ও বন্ধনকে ভালোভাবে নেবে। 

দিলি­র সাম্প্রতিক ঘটনাকে দুঃখজনক হিসেবে উলে­খ করে রওশন এরশাদ বলেন, কোনো একটি দিক বিবেচনায় নিয়ে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক নির্ধারিত হয় না। যে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় সার্বিক পরিবেশ ও ভূ-রাজনৈতিক অবস্থা বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নিতে হয়।

তিনি আরও বলেন, নরেন্দ্র মোদি কোনো দলীয় প্রধান হিসেবে বাংলাদেশ সফর করছেন না বরং তিনি বন্ধুপ্রতীম ভারত রাষ্ট্রের সরকার প্রধান হিসেবে বাংলাদেশ সফর করছেন। ভারতের নাগরিকদের সঙ্গে বাংলাদেশের সব নাগরিকের হাজার বছরের মেলবন্ধন। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হিসেবে দিল্লির ঘটনায় বাংলাদেশে ক্ষোভের সঞ্চর হয়েছে এ কথা সত্য। কিন্তু বিশ্ব-মানবতার প্রতি বরাবরের মতো আস্থা রেখে আমাদের ধৈর্য্য ধারণ করা উচিত। নরেন্দ্র মোদির সফরকে ধর্মীয় অনুভূতির সঙ্গে মিলিয়ে প্রতিবাদ-প্রতিরোধের ডাক না দিয়ে আমাদের উচিত হবে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে পরীক্ষিত বন্ধু ভারতের সরকার প্রধানকে স্বাগত জানানো।

অতিথি পরায়নতার সুনাম অক্ষুণ্ণ রেখে মানবতার পরিচয় তুলে ধরতে বিরোধীদলীয় নেতা দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর