ফখরুল সাহেব বললেই তো হবে না: কাদের
jugantor
ফখরুল সাহেব বললেই তো হবে না: কাদের

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১১ মার্চ ২০২০, ১২:২১:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার স্বার্থে মুক্তি দেয়ার যে দাবি বিএনপি মহাসচিব করেছেন, সেটি নাকচ করে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ফখরুল সাহেব তো চিকিৎসক নন, তিনি বললেই তো খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে না।

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তো চিকিৎসক নন যে তার কথামতো ব্যবস্থা নিতে হবে।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ড দিয়ে দুই বছরের বেশি সময় ধরে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে তার পরিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছে। প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির কাছেও আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার মুক্তির আবেদন গৃহীত হবে বলে আশা করছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল।

মঙ্গলবার দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, অন্তত সুচিকিৎসার জন্য হলেও অতিদ্রুত দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মুক্তির জন্য আমরা দাবি জানাচ্ছি। দেশবাসী আশা করে, তাদের সেই আবেদন গৃহীত হবে এবং দেশনেত্রীর মতো একজন বিশিষ্ট নাগরিক বিনা চিকিৎসায় নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

এ বিষয়ে সরকারের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতারা রাজনৈতিক নেতা, তারা চিকিৎসক নন। মির্জা ফখরুল একজন চিকিৎসক নন যে, তার কথামতো খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাতে হবে।

‘বেগম জিয়ার জন্য চিকিৎসক বোর্ড আছে। তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আদালত তার জামিন আবেদন নাকচ করেছে। এখন যেখানে আদালত নাকচ করেছেন, কাজেই মানবিক কারণে মুক্তি দিতে হবে সেটি তো ফখরুল সাহেব বললে হবে না’-যোগ করেন কাদের।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে চিকিৎসক বোর্ডের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কারও কথাতে তার মুক্তি বা চিকিৎসা প্রক্রিয়া পরিবর্তন হবে না।’

‘খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান সফল হবে না’ বলে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যকে ‘বালকসুলভ’ আখ্যায়িত করেন ওবায়দুল কাদের।

ফখরুল সাহেব বললেই তো হবে না: কাদের

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১১ মার্চ ২০২০, ১২:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার স্বার্থে মুক্তি দেয়ার যে দাবি বিএনপি মহাসচিব করেছেন, সেটি নাকচ করে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ফখরুল সাহেব তো চিকিৎসক নন, তিনি বললেই তো খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে না। 

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তো চিকিৎসক নন যে তার কথামতো ব্যবস্থা নিতে হবে।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ড দিয়ে দুই বছরের বেশি সময় ধরে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে তার পরিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছে। প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির কাছেও আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার মুক্তির আবেদন গৃহীত হবে বলে আশা করছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল।

মঙ্গলবার দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, অন্তত সুচিকিৎসার জন্য হলেও অতিদ্রুত দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মুক্তির জন্য আমরা দাবি জানাচ্ছি। দেশবাসী আশা করে, তাদের সেই আবেদন গৃহীত হবে এবং দেশনেত্রীর মতো একজন বিশিষ্ট নাগরিক বিনা চিকিৎসায় নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

এ বিষয়ে সরকারের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতারা রাজনৈতিক নেতা, তারা চিকিৎসক নন। মির্জা ফখরুল একজন চিকিৎসক নন যে, তার কথামতো খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাতে হবে।

‘বেগম জিয়ার জন্য চিকিৎসক বোর্ড আছে। তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আদালত তার জামিন আবেদন নাকচ করেছে। এখন যেখানে আদালত নাকচ করেছেন, কাজেই মানবিক কারণে মুক্তি দিতে হবে সেটি তো ফখরুল সাহেব বললে হবে না’-যোগ করেন কাদের।  

খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে চিকিৎসক বোর্ডের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কারও কথাতে তার মুক্তি বা চিকিৎসা প্রক্রিয়া পরিবর্তন হবে না।’

‘খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান সফল হবে না’ বলে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যকে ‘বালকসুলভ’ আখ্যায়িত করেন ওবায়দুল কাদের।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন