সত্যতা যাচাই না করে সংবাদ প্রকাশ সমীচীন নয়: তথ্যমন্ত্রী
jugantor
সত্যতা যাচাই না করে সংবাদ প্রকাশ সমীচীন নয়: তথ্যমন্ত্রী

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার  

১১ মার্চ ২০২০, ২১:৫৯:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সত্যতা যাচাই না করে সংবাদ প্রকাশ সমীচীন নয়: তথ্যমন্ত্রী

সত্যতা যাচাই না করে সংবাদ মাধ্যমে কোনো ধরনের কাল্পনিক তালিকা প্রকাশ করা কোনোভাবেই সমীচীন নয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সম্প্রতি গ্রেফতার হওয়া ‘পাপিয়া’র সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের কাল্পনিক তালিকা প্রকাশের অভিযোগে দৈনিক মানবজমিন সম্পাদকসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘এ বিষয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে কিছু কাল্পনিক তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আমি মনে করি, সত্যতা যাচাই না করে এ ধরনের কাল্পনিক তালিকা প্রকাশ কোনোভাবেই সমীচীন নয়। যদি কেউ করে থাকে সেটি পত্রিকা হোক, অনলাইনে হোক বা অন্যভাবে হোক তার দায় তারা এড়াতে পারেন না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘কেউ সংক্ষুব্ধ হলে দেশের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতেই পারেন। সেটি তার সাংবিধানিক অধিকার। যাচাই-বাছাই না করে দায়িত্বশীল পত্রিকা কিংবা কোনো দায়িত্বশীল অনলাইন, ইলেকট্রনিক মিডিয়ার এভাবে নাম প্রকাশ করা কোনোভাবেই দায়িত্বশীলতার মধ্যে পড়ে না। সুতরাং দায়িত্বহীন আচরণ যদি কেউ করে থাকেন, তার দায় তাকে নিতে হবে।’

সভায় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, নাটোর জেলার আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুল কুদ্দুস এমপি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি, শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপি, দলের উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খানসহ নাটোর জেলার আওয়ামী লীগের নেতারা যোগ দেন।

সত্যতা যাচাই না করে সংবাদ প্রকাশ সমীচীন নয়: তথ্যমন্ত্রী

 সাংস্কৃতিক রিপোর্টার 
১১ মার্চ ২০২০, ০৯:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সত্যতা যাচাই না করে সংবাদ প্রকাশ সমীচীন নয়: তথ্যমন্ত্রী
আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ফাইল ছবি

সত্যতা যাচাই না করে সংবাদ মাধ্যমে কোনো ধরনের কাল্পনিক তালিকা প্রকাশ করা কোনোভাবেই সমীচীন নয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। 

বুধবার দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সম্প্রতি গ্রেফতার হওয়া ‘পাপিয়া’র সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের কাল্পনিক তালিকা প্রকাশের অভিযোগে দৈনিক মানবজমিন সম্পাদকসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘এ বিষয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে কিছু কাল্পনিক তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আমি মনে করি, সত্যতা যাচাই না করে এ ধরনের কাল্পনিক তালিকা প্রকাশ কোনোভাবেই সমীচীন নয়। যদি কেউ করে থাকে সেটি পত্রিকা হোক, অনলাইনে হোক বা অন্যভাবে হোক তার দায় তারা এড়াতে পারেন না।’ 

মন্ত্রী বলেন, ‘কেউ সংক্ষুব্ধ হলে দেশের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতেই পারেন। সেটি তার সাংবিধানিক অধিকার। যাচাই-বাছাই না করে দায়িত্বশীল পত্রিকা কিংবা কোনো দায়িত্বশীল অনলাইন, ইলেকট্রনিক মিডিয়ার এভাবে নাম প্রকাশ করা কোনোভাবেই দায়িত্বশীলতার মধ্যে পড়ে না। সুতরাং দায়িত্বহীন আচরণ যদি কেউ করে থাকেন, তার দায় তাকে নিতে হবে।’ 

সভায় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, নাটোর জেলার আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুল কুদ্দুস এমপি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি, শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপি, দলের উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খানসহ নাটোর জেলার আওয়ামী লীগের নেতারা যোগ দেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন