ধান ক্রয় কার্যক্রমে কোনো ধরনের অনিয়ম হবে না: কৃষিমন্ত্রী
jugantor
ধান ক্রয় কার্যক্রমে কোনো ধরনের অনিয়ম হবে না: কৃষিমন্ত্রী

  সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি  

২৯ এপ্রিল ২০২০, ১৯:১৪:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ধান ক্রয় কার্যক্রমে কোনো ধরনের অনিয়ম হবে না। কোনো মধ্যস্বত্বভোগী আসবে না, আসার সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, আমরা কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের একটা তালিকা করে দিয়েছি। তালিকাভুক্ত কৃষকদের মধ্যে লটারি হবে। সেই লটারিতে কেউ প্রভাব ফেলতে পারবে না।

বুধবার দুপুরে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের লালপুর এলাকায় স্থানীয় কৃষকদের কাছ থেকে সরকারিভাবে আনুষ্ঠানিক ধান ক্রয় কার্যক্রম উদ্বোধনকালে তিনি এ সব কথা বলেন। 

মন্ত্রী বলেন, সুনামগঞ্জের হাওরে এবার ধানের ফলন ভালো হয়েছে। সরকারিভাবে সুনামগঞ্জের কৃষকের কাছ থেকে সরকার এবার ২৫ হাজার ৮৬৬ মেট্রিক টন ধান, ১৪ হাজার ৬৮৭ মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল এবং ১৪ হাজার ৩০৯ মেট্রিক টন আতপ চাল ক্রয় করবে।

তিনি বলেন, অ্যাপসের মাধ্যমে ২২টি জেলা থেকে ধান কেনার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এ সব জেলা থেকে সরকারিভাবে এবার ৮ লাখ মেট্রিক টন ধান সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে কেনা হবে। কৃষকরা ন্যায্যমূল্যের ধান বিক্রয় করে লাভবান হবে।  

সুনামগঞ্জে কৃষকের চাহিদা অনুযায়ী ধানক্রয়ের পরিমাণ অপ্রতুল সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, মন্ত্রণালয়ে আলোচনা করে ক্রয় চাহিদা বাড়ানোর বিষয়টা বিবেচনা করে দেখা হবে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, বিরোধী দলীয় হুইপ ও সুনামগঞ্জ সদর আসনের এমপি পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ-১ আসনের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ-সিলেট সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি শামিমা আক্তার খানম, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত প্রমুখ।

ধান ক্রয় কার্যক্রমে কোনো ধরনের অনিয়ম হবে না: কৃষিমন্ত্রী

 সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি 
২৯ এপ্রিল ২০২০, ০৭:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ধান ক্রয় কার্যক্রমে কোনো ধরনের অনিয়ম হবে না। কোনো মধ্যস্বত্বভোগী আসবে না, আসার সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, আমরা কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের একটা তালিকা করে দিয়েছি। তালিকাভুক্ত কৃষকদের মধ্যে লটারি হবে। সেই লটারিতে কেউ প্রভাব ফেলতে পারবে না।

বুধবার দুপুরে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের লালপুর এলাকায় স্থানীয় কৃষকদের কাছ থেকে সরকারিভাবে আনুষ্ঠানিক ধান ক্রয় কার্যক্রম উদ্বোধনকালে তিনি এ সব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সুনামগঞ্জের হাওরে এবার ধানের ফলন ভালো হয়েছে। সরকারিভাবে সুনামগঞ্জের কৃষকের কাছ থেকে সরকার এবার ২৫ হাজার ৮৬৬ মেট্রিক টন ধান, ১৪ হাজার ৬৮৭ মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল এবং ১৪ হাজার ৩০৯ মেট্রিক টন আতপ চাল ক্রয় করবে।

তিনি বলেন, অ্যাপসের মাধ্যমে ২২টি জেলা থেকে ধান কেনার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এ সব জেলা থেকে সরকারিভাবে এবার ৮ লাখ মেট্রিক টন ধান সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে কেনা হবে। কৃষকরা ন্যায্যমূল্যের ধান বিক্রয় করে লাভবান হবে।

সুনামগঞ্জে কৃষকের চাহিদা অনুযায়ী ধানক্রয়ের পরিমাণ অপ্রতুল সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, মন্ত্রণালয়ে আলোচনা করে ক্রয় চাহিদা বাড়ানোর বিষয়টা বিবেচনা করে দেখা হবে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, বিরোধী দলীয় হুইপ ও সুনামগঞ্জ সদর আসনের এমপি পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ-১ আসনের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ-সিলেট সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি শামিমা আক্তার খানম, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত প্রমুখ।