উপনির্বাচনের ব্যালটে ধানের শীষ না রাখার দাবি বিএনপির
jugantor
উপনির্বাচনের ব্যালটে ধানের শীষ না রাখার দাবি বিএনপির

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৭ জুলাই ২০২০, ১৯:০৭:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে স্থগিত থাকা বগুড়া-১ ও যশোর-৬ সংসদীয় আসনে উপনির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তের পর ব্যালট থেকে ধানের শীষ প্রতীক বাদ দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বিএনপি।

মঙ্গলবার বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের নেতৃত্বে দলের দুই সদস্যের প্রতিনিধি দল নির্বাচন ভবনে গিয়ে ওই দাবি জানিয়ে আসেন।

তবে তাদের সঙ্গে কথা বলার পর ইসি সচিব মো. আলমগীর বলেছেন, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় পার হয়ে যাওয়ায় ব্যালটে এখন প্রতীক বাদ দেওয়ার সুযোগ নেই।

আওয়ামী লীগের ইসমাত আরা সাদেক ও আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে শূন্য এই দুটি আসনে গত ২৯ মার্চ উপনির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। বিএনপি তখন প্রার্থীও দিয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর ২১ মার্চ ইসি নির্বাচন দুটি স্থগিত করে।

সম্প্রতি ইসি জানায়, আগামী ১৪ জুলাই এ দুটি উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে। তবে বিএনপি করোনার এই মহামারীতে ভোটগ্রহণে আপত্তি তুলে নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিএনপির বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোশারফ হোসেন ইসিতে চিঠি দেওয়ার পর সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা দলীয় সিদ্ধান্তের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের চিঠি পৌঁছে দিয়েছি কমিশনে। সেই সঙ্গে বলেছি, যেহেতু ভোটে থাকব না আমরা, ব্যালটে যেন প্রতীকও না থাকে। ব্যালটে ও ভোটে না থাকার বিষয় নিয়ে বিভ্রান্তি দূর করতেই এ দাবি করা হয়েছে।”

এক্ষেত্রে আইনি জটিলতা থাকলেও ইসি সচিব বিএনপির দাবি কমিশনে তোলার আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানান মোশারফ।

পরে ইসি সচিব আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, ‘সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণেই এ উপ নির্বাচন হচ্ছে। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় পার হয়েছে। এক্ষেত্রে কোনো কিছু পুনর্বিবেচনার সুযোগ নেই। ব্যালটে সব প্রার্থীর ছবি ও নাম থাকবে।’

উপনির্বাচনের ব্যালটে ধানের শীষ না রাখার দাবি বিএনপির

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৭ জুলাই ২০২০, ০৭:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে স্থগিত থাকা বগুড়া-১ ও যশোর-৬ সংসদীয় আসনে উপনির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তের পর ব্যালট থেকে ধানের শীষ প্রতীক বাদ দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বিএনপি।

মঙ্গলবার বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের নেতৃত্বে দলের দুই সদস্যের প্রতিনিধি দল নির্বাচন ভবনে গিয়ে ওই দাবি জানিয়ে আসেন।

তবে তাদের সঙ্গে কথা বলার পর ইসি সচিব মো. আলমগীর বলেছেন, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় পার হয়ে যাওয়ায় ব্যালটে এখন প্রতীক বাদ দেওয়ার সুযোগ নেই।

আওয়ামী লীগের ইসমাত আরা সাদেক ও আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে শূন্য এই দুটি আসনে গত ২৯ মার্চ উপনির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। বিএনপি তখন প্রার্থীও দিয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর ২১ মার্চ ইসি নির্বাচন দুটি স্থগিত করে।

সম্প্রতি ইসি জানায়, আগামী ১৪ জুলাই এ দুটি উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে। তবে বিএনপি করোনার এই মহামারীতে ভোটগ্রহণে আপত্তি তুলে নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।  

বিএনপির বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোশারফ হোসেন ইসিতে চিঠি দেওয়ার পর সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা দলীয় সিদ্ধান্তের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিবের চিঠি পৌঁছে দিয়েছি কমিশনে। সেই সঙ্গে বলেছি, যেহেতু ভোটে থাকব না আমরা, ব্যালটে যেন প্রতীকও না থাকে। ব্যালটে ও ভোটে না থাকার বিষয় নিয়ে বিভ্রান্তি দূর করতেই এ দাবি করা হয়েছে।”

এক্ষেত্রে আইনি জটিলতা থাকলেও ইসি সচিব বিএনপির দাবি কমিশনে তোলার আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানান মোশারফ।

পরে ইসি সচিব আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, ‘সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণেই এ উপ নির্বাচন হচ্ছে। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় পার হয়েছে। এক্ষেত্রে কোনো কিছু পুনর্বিবেচনার সুযোগ নেই। ব্যালটে সব প্রার্থীর ছবি ও নাম থাকবে।’

 
আরও খবর