ঢাকা-৫ উপনির্বাচন: বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে কেন্দ্রীয় নেতারা
jugantor
ঢাকা-৫ উপনির্বাচন: বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে কেন্দ্রীয় নেতারা

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৯:৫২:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা-৫ সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন বিএনপির প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমেদ। সোমবার বিকাল সাড়ে তিনটায় যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে পথসভার মাধ্যমে তিনি তার নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন। দুপুর থেকেই আসনের বিভিন্ন এলাকা থেকে দলীয় নেতাকর্মী পথসভাস্থলে আসতে শুরু করেন। পথসভা শুরু হওয়ার আগেই যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠ নেতাকর্মী দিয়ে পরিপূর্ণ হয়ে যায়।

ঢাকা মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি ও যাত্রাবাড়ী থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আতিকুল্লাহ আতিকের সভাপতিত্বে পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান।

প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ন মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, ঢাকা মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, সাংগঠনিক সম্পাদক তানভীর আহমেদ রবিন, যুগ্ম সম্পাদক রবিউল ইসলাম রবি, আলমগীর হোসেন, আকবর হোসেন ভুঁইয়া প্রমুখ।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান বলেন, এমসি কলেজে নির্যাতনের শিকার হওয়া দম্পতির কোনো অনুনয় বিনয় তাদের মন গলাতে পারেনি। ঠিক আমরা যত কথাই বলি না কেন শেখ হাসিনা জনগণের মতামতের উপর কোনো কর্ণপাত করবে না। সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বিগত সময় পাবনা-৪ ও জাতীয় নির্বাচনে যে খেলা খেলেছেন তা যদি ঢাকা-৫ এ দেখাতে আসেন তবে এই ডেমরা যাত্রাবাড়ী থেকে আপনাদের পতনের ডাক দেয়া হবে। সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে। আমরা যদি একটা ধাক্কা দিতে পারি তবে এই সরকারের পতন হবে এবং তারা পালানোর জায়গা পাবে না।

১৭ তারিখ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রহুল কবির রিজভী বলেন, আমার বিশ্বাস আগামী ১৭ তারিখ সব অন্যায়ের শৃঙ্খল ভেঙে আপনারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন। মনে রাখবেন জনগনের স্রোতের সামনে বন্দুকের নল কখনো টিকেনি।

যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, উন্নয়ন শব্দটা আওয়ামী লীগ এত অপব্যবহার করেছে যে উন্নয়ন শব্দটা আওয়ামী লীগকে আল্লাহর ওয়াস্তে ভিক্ষা দিয়ে দিন। জনগণের কাছে উন্নয়নের কথা না বলে সালাহউদ্দিন আহমেদের কর্মগুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দিন।

আরেক যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল বলেন, একদিকে করোনাভাইরাস আরেক দিকে আওয়ামী ভাইরাসে মানুষের জীবন অতীষ্ঠ হয়ে উঠেছে। হযরত শাহজালাল (রহ.) পবিত্র ভূমি আজ কলঙ্কিত করেছে মুজিববাদী ছাত্রলীগের সোনার সন্তানেরা। স্ত্রীকে তার স্বামী পবিত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়ে গিয়েছিল কিন্তু সেখানে কি ঘটল তা বলতেও লজ্জা লাগে।

তিনি বলেন, ঢাকা-৫ এ দেশনেত্রী এমন একজনকে প্রার্থী করেছেন যাকে এই অঞ্চলের প্রতিটি মানুষ চিনেন। শিল্পী যেমন তার রংতুলি দিয়ে ছবি আঁকে ঠিক তেমনি তিনি এ এলাকাকে সাজিয়েছেন। বিএনপি কথা বলে কম কাজ করে বেশি। তাই নির্বাচনে আমাদের বেশি কথা বলতে হবে না। কারণ তার উন্নয়ন তার পক্ষে কথা বলবেন। সুষ্ঠু ভোট হলে সালাহউদ্দিন আহমেদের ব্যালেট বাক্সে ভোটের অভাব হবে না। ভোটারদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, মনে রাখবেন এ ভোট এ ভোট ধর্ষকের বিরুদ্ধে, খুন, গুম হত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ভোট। শত বাধা উপেক্ষা করে আপনারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন এবং ভোট দেয়ার মাধ্যমে ধর্ষণের প্রতিবাদ করবেন।

এর আগে সকাল ১১টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটে (ইটিআই) প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক তুলে দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। প্রতীকপ্রাপ্তদের মাঝে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম নৌকা, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সালাহ্ উদ্দিন আহমেদ ধানের শীষ প্রতীক পান।

এছাড়া জাতীয় পার্টির সমর্থিত প্রার্থী মীর আব্দুস সবুরকে লাঙ্গল, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি সমর্থিত প্রার্থী আরিফুর রহমান সুমন মাস্টারকে আম এবং বাংলাদেশ কংগ্রেস সমর্থিত প্রার্থী আনছার রহমান শিকদারকে ডাব প্রতীক প্রদান করা হয়।

দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা হাবিবুর রহমান মোল্লা গত ৬ মে মারা যান। এতে আসনটি শূন্য হয়। আগামী ১৭ অক্টোবর সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এই আসনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা-৫ উপনির্বাচন: বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে কেন্দ্রীয় নেতারা

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা-৫ সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন বিএনপির প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমেদ। সোমবার বিকাল সাড়ে তিনটায় যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে পথসভার মাধ্যমে তিনি তার নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন। দুপুর থেকেই আসনের বিভিন্ন এলাকা থেকে দলীয় নেতাকর্মী পথসভাস্থলে আসতে শুরু করেন। পথসভা শুরু হওয়ার আগেই যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠ নেতাকর্মী দিয়ে পরিপূর্ণ হয়ে যায়।

ঢাকা মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি ও যাত্রাবাড়ী থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আতিকুল্লাহ আতিকের সভাপতিত্বে পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান।

প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ন মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, ঢাকা মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, সাংগঠনিক সম্পাদক তানভীর আহমেদ রবিন, যুগ্ম সম্পাদক রবিউল ইসলাম রবি, আলমগীর হোসেন, আকবর হোসেন ভুঁইয়া প্রমুখ।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান বলেন, এমসি কলেজে নির্যাতনের শিকার হওয়া দম্পতির কোনো অনুনয় বিনয় তাদের মন গলাতে পারেনি। ঠিক আমরা যত কথাই বলি না কেন শেখ হাসিনা জনগণের মতামতের উপর কোনো কর্ণপাত করবে না। সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বিগত সময় পাবনা-৪ ও জাতীয় নির্বাচনে যে খেলা খেলেছেন তা যদি ঢাকা-৫ এ দেখাতে আসেন তবে এই ডেমরা যাত্রাবাড়ী থেকে আপনাদের পতনের ডাক দেয়া হবে। সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে। আমরা যদি একটা ধাক্কা দিতে পারি তবে এই সরকারের পতন হবে এবং তারা পালানোর জায়গা পাবে না।

১৭ তারিখ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রহুল কবির রিজভী বলেন, আমার বিশ্বাস আগামী ১৭ তারিখ সব অন্যায়ের শৃঙ্খল ভেঙে আপনারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন। মনে রাখবেন জনগনের স্রোতের সামনে বন্দুকের নল কখনো টিকেনি।

যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, উন্নয়ন শব্দটা আওয়ামী লীগ এত অপব্যবহার করেছে যে উন্নয়ন শব্দটা আওয়ামী লীগকে আল্লাহর ওয়াস্তে ভিক্ষা দিয়ে দিন। জনগণের কাছে উন্নয়নের কথা না বলে সালাহউদ্দিন আহমেদের কর্মগুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দিন।

আরেক যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল বলেন, একদিকে করোনাভাইরাস আরেক দিকে আওয়ামী ভাইরাসে মানুষের জীবন অতীষ্ঠ হয়ে উঠেছে। হযরত শাহজালাল (রহ.) পবিত্র ভূমি আজ কলঙ্কিত করেছে মুজিববাদী ছাত্রলীগের সোনার সন্তানেরা। স্ত্রীকে তার স্বামী পবিত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়ে গিয়েছিল কিন্তু সেখানে কি ঘটল তা বলতেও লজ্জা লাগে।

তিনি বলেন, ঢাকা-৫ এ দেশনেত্রী এমন একজনকে প্রার্থী করেছেন যাকে এই অঞ্চলের প্রতিটি মানুষ চিনেন। শিল্পী যেমন তার রংতুলি দিয়ে ছবি আঁকে ঠিক তেমনি তিনি এ এলাকাকে সাজিয়েছেন। বিএনপি কথা বলে কম কাজ করে বেশি। তাই নির্বাচনে আমাদের বেশি কথা বলতে হবে না। কারণ তার উন্নয়ন তার পক্ষে কথা বলবেন। সুষ্ঠু ভোট হলে সালাহউদ্দিন আহমেদের ব্যালেট বাক্সে ভোটের অভাব হবে না। ভোটারদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, মনে রাখবেন এ ভোট এ ভোট ধর্ষকের বিরুদ্ধে, খুন, গুম হত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ভোট। শত বাধা উপেক্ষা করে আপনারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন এবং ভোট দেয়ার মাধ্যমে ধর্ষণের প্রতিবাদ করবেন।

এর আগে সকাল ১১টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটে (ইটিআই) প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক তুলে দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। প্রতীকপ্রাপ্তদের মাঝে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম নৌকা, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সালাহ্ উদ্দিন আহমেদ ধানের শীষ প্রতীক পান।

এছাড়া জাতীয় পার্টির সমর্থিত প্রার্থী মীর আব্দুস সবুরকে লাঙ্গল, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি সমর্থিত প্রার্থী আরিফুর রহমান সুমন মাস্টারকে আম এবং বাংলাদেশ কংগ্রেস সমর্থিত প্রার্থী আনছার রহমান শিকদারকে ডাব প্রতীক প্রদান করা হয়।

দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা হাবিবুর রহমান মোল্লা গত ৬ মে মারা যান। এতে আসনটি শূন্য হয়। আগামী ১৭ অক্টোবর সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এই আসনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।