অপরাধী যতই শক্তিশালী হোক ক্ষমা নেই: পলক
jugantor
অপরাধী যতই শক্তিশালী হোক ক্ষমা নেই: পলক

  সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি  

১৭ অক্টোবর ২০২০, ২২:০৮:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, অপরাধীদের বিরুদ্ধে সব সময় বাংলাদেশ পুলিশকে পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রী কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছেন। অপরাধী যতই শক্তিশালী হোক তার ক্ষমা নেই।

শনিবার সিংড়া উপজেলা আমচত্বরে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনবিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রী অপরাধীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। অপরাধ যেই করুক, তার ক্ষমা নেই। তার কোনো দলীয় পরিচয় নেই; নেই কোনো রাষ্ট্রীয় পরিচয়। তার একটাই পরিচয় সে অপরাধী।

তিনি বলেন, সিংড়ার চলনবিলে ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি হয়েছিল। চলনবিলের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ প্রতিটি রাত ডাকাতের ভয়ে ভীত থাকত। সিংড়াবাসী সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের কাছে জিম্মি ছিল।

বিগত ১১ বছরে প্রধানমন্ত্রীর সুশাসনের বদৌলতে ও বাংলাদেশ পুলিশের সাহসী পদক্ষেপের ফলে চলনবিল থেকে ডাকাতি- সন্ত্রাসী কার্যক্রম নির্মূল করতে পেরেছি।

পলক আরও বলেন, ৯৯৯-এ ফোন করলেই সাধারণ মানুষ সেবা পাচ্ছেন। যার অবদান আইসিটি মন্ত্রাণালয়ের। এখন পর্যন্ত ৯৯৯-এ দুই কোটি ১৬ লাখ ফোন এসেছে। ২৪ ঘণ্টা বাংলাদেশের পুলিশের সব সদস্য জেগে আছেন। এতে দুর্নীতি ও হয়রানি কমেছে। অনলাইনে জিডির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সব সেবা এখন মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছেছে।

সমাবেশে সিংড়া থানার ওসি নূর-ই-আলম সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক, ইউএনও মোছা. নাসরিন বানু, পৌর মেয়র মো. জান্নাতুল ফেরদৌস, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. শামিমা হক রোজি প্রমুখ।

এর আগে প্রস্তাবিত পৌর শিশুপার্কের পাশের জামিলা ফয়েজ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রতিমন্ত্রী পলক।

অপরাধী যতই শক্তিশালী হোক ক্ষমা নেই: পলক

 সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি 
১৭ অক্টোবর ২০২০, ১০:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, অপরাধীদের বিরুদ্ধে সব সময় বাংলাদেশ পুলিশকে পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রী কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছেন। অপরাধী যতই শক্তিশালী হোক তার ক্ষমা নেই। 

শনিবার সিংড়া উপজেলা আমচত্বরে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনবিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রী অপরাধীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। অপরাধ যেই করুক, তার ক্ষমা নেই। তার কোনো দলীয় পরিচয় নেই; নেই কোনো রাষ্ট্রীয় পরিচয়। তার একটাই পরিচয় সে অপরাধী।

তিনি বলেন, সিংড়ার চলনবিলে ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি হয়েছিল। চলনবিলের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ প্রতিটি রাত ডাকাতের ভয়ে ভীত থাকত। সিংড়াবাসী সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের কাছে জিম্মি ছিল। 

বিগত ১১ বছরে প্রধানমন্ত্রীর সুশাসনের বদৌলতে ও বাংলাদেশ পুলিশের সাহসী পদক্ষেপের ফলে চলনবিল থেকে ডাকাতি- সন্ত্রাসী কার্যক্রম নির্মূল করতে পেরেছি।

পলক আরও বলেন, ৯৯৯-এ ফোন করলেই সাধারণ মানুষ সেবা পাচ্ছেন। যার অবদান আইসিটি মন্ত্রাণালয়ের। এখন পর্যন্ত ৯৯৯-এ দুই কোটি ১৬ লাখ ফোন এসেছে। ২৪ ঘণ্টা বাংলাদেশের পুলিশের সব সদস্য জেগে আছেন। এতে দুর্নীতি ও হয়রানি কমেছে। অনলাইনে জিডির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সব সেবা এখন মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছেছে।

সমাবেশে সিংড়া থানার ওসি নূর-ই-আলম সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক, ইউএনও মোছা. নাসরিন বানু, পৌর মেয়র মো. জান্নাতুল ফেরদৌস, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. শামিমা হক রোজি প্রমুখ। 

এর আগে প্রস্তাবিত পৌর শিশুপার্কের পাশের জামিলা ফয়েজ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রতিমন্ত্রী পলক।