‘হেফাজত-খেলাফতের অবস্থান রাষ্ট্রদ্রোহিতা, মোকাবেলা রাজনৈতিকভাবে’
jugantor
‘হেফাজত-খেলাফতের অবস্থান রাষ্ট্রদ্রোহিতা, মোকাবেলা রাজনৈতিকভাবে’

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৫:৪৫:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ভাস্কর্য ও মূর্তি বনাম যে বিতর্ক তোলা হয়েছে, তা সম্পূর্ণভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, রাজধানীতে ভাস্কর্য নির্মাণের বিরুদ্ধে হেফাজত ও খেলাফতের অবস্থান রাষ্ট্রদ্রোহিতা ও দেশদ্রোহিতার শামিল। এটি রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করা হবে।

বৃহস্পতিবার ভাস্কর্য বিতর্কসহ সাম্প্রতিক উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ওয়ার্কার্স পার্টির ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মেনন বলেন, সাম্প্রদায়িক ও অগণতান্ত্রিকশক্তি ধর্মকে আবার ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে। ইসলাম ধর্মকে তারা আবার বিতর্কিত করতে চায়। এখন ভাস্কর্য ও মূর্তি গুলিয়ে তারা যে বিতর্ক তারা তুলেছে, তা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সংবিধানবিরোধী।

বাবুনগরীর বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, তাদের শর্ত মত দেশ পরিচালনা করতে হবে। তারা স্পষ্টভাবেই সরকারের মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়েছে। এখানে ধৈর্য বা নীরবতার কৌশল নেয়ার কোনো অবকাশ নেই। তাদের রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করা ছাড়া আর কোনো পথ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা। পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, সুশান্ত দাস, কামরুল আহসান, কেন্দ্রীয় সদস্য মোস্তফা আলমগীর রতনসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

‘হেফাজত-খেলাফতের অবস্থান রাষ্ট্রদ্রোহিতা, মোকাবেলা রাজনৈতিকভাবে’

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভাস্কর্য ও মূর্তি বনাম যে বিতর্ক তোলা হয়েছে, তা সম্পূর্ণভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, রাজধানীতে ভাস্কর্য নির্মাণের বিরুদ্ধে হেফাজত ও খেলাফতের অবস্থান রাষ্ট্রদ্রোহিতা ও দেশদ্রোহিতার শামিল। এটি রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করা হবে।

বৃহস্পতিবার ভাস্কর্য বিতর্কসহ সাম্প্রতিক উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ওয়ার্কার্স পার্টির ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। 

মেনন বলেন, সাম্প্রদায়িক ও অগণতান্ত্রিকশক্তি ধর্মকে আবার ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে। ইসলাম ধর্মকে তারা আবার বিতর্কিত করতে চায়। এখন ভাস্কর্য ও মূর্তি গুলিয়ে তারা যে বিতর্ক তারা তুলেছে, তা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সংবিধানবিরোধী।

বাবুনগরীর বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, তাদের শর্ত মত দেশ পরিচালনা করতে হবে। তারা স্পষ্টভাবেই সরকারের মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়েছে। এখানে ধৈর্য বা নীরবতার কৌশল নেয়ার কোনো অবকাশ নেই। তাদের রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করা ছাড়া আর কোনো পথ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা। পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, সুশান্ত দাস, কামরুল আহসান, কেন্দ্রীয় সদস্য মোস্তফা আলমগীর রতনসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন