কাউন্সিলর হত্যায় জড়িতরা গ্রেফতার না হওয়ায় বিএনপির ক্ষোভ
jugantor
কাউন্সিলর হত্যায় জড়িতরা গ্রেফতার না হওয়ায় বিএনপির ক্ষোভ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪:৫৬:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

তরিকুল ইসলাম

সিরাজগঞ্জে নবনির্বাচিত কাউন্সিলর প্রার্থী তরিকুল ইসলামকে (৪৫) হত্যার ঘটনায় জড়িতরা এখনও গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিএনপি।

সোমবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, সিরাজগঞ্জের শহীদগঞ্জে জনগণের ভোটে বিজয়ী আমাদের কাউন্সিলর প্রার্থী তরিকুল ইসলামকে নৃশংসভাবে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে আওয়ামী জঙ্গি সন্ত্রাসীরা। তরিকুলের হত্যাকারী প্রতিদ্বন্দ্বী কাউন্সিলর প্রার্থী শাহাদাত হোসেন বুদ্দিন বাহিনীকে এখনও গ্রেফতার করা হয়নি।

তিনি আরও বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে সিরাজগঞ্জ যখন উত্তাল, তখন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সরাসরি খুনিদের পক্ষে অবস্থান নিয়ে বলেছেন– কাউন্সিলর হত্যা একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা মাত্র!’

‘নিহত নির্বাচিত কাউন্সিলর যেহেতু বিএনপির নেতা, তাই তার কাছে হয়ে গেল বিচ্ছিন্ন ঘটনা!’

রিজভী বলেন, অবৈধভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য তারা কতটা নৃশংস হতে পারে এটি তার জাজ্জল্য প্রমাণ। এদের মনে কোনো অনুশোচনা নেই। যতদিন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকবে ততদিন দেশের ফাঁড়া কাটবে না।

বিএনপির এ নেতা বলেন, গত শনিবার দ্বিতীয় ধাপের ৬০টি পৌরসভায় আগের মতোই ব্যাপক সহিংসতা, রক্তপাত ও ভোটডাকাতির নির্বাচন করেছেন ক্ষমতাসীনরা। নির্বাচন নিয়ে অন্ধকার শ্বাসরোধী পরিবেশের কোনো পরিবর্তনই হয়নি। গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যমতে প্রশাসনের সহায়তায় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা অধিকাংশ পৌর নির্বাচনী এলাকায় তাণ্ডবলীলা চালিয়েছে।

কাউন্সিলর হত্যায় জড়িতরা গ্রেফতার না হওয়ায় বিএনপির ক্ষোভ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০২:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তরিকুল ইসলাম
তরিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি

সিরাজগঞ্জে নবনির্বাচিত কাউন্সিলর প্রার্থী তরিকুল ইসলামকে (৪৫) হত্যার ঘটনায় জড়িতরা এখনও গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিএনপি।

সোমবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, সিরাজগঞ্জের শহীদগঞ্জে জনগণের ভোটে বিজয়ী আমাদের কাউন্সিলর প্রার্থী তরিকুল ইসলামকে নৃশংসভাবে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে আওয়ামী জঙ্গি সন্ত্রাসীরা। তরিকুলের হত্যাকারী প্রতিদ্বন্দ্বী কাউন্সিলর প্রার্থী শাহাদাত হোসেন বুদ্দিন বাহিনীকে এখনও গ্রেফতার করা হয়নি। 

তিনি আরও বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে সিরাজগঞ্জ যখন উত্তাল, তখন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সরাসরি খুনিদের পক্ষে অবস্থান নিয়ে বলেছেন– কাউন্সিলর হত্যা একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা মাত্র!’

‘নিহত নির্বাচিত কাউন্সিলর যেহেতু বিএনপির নেতা, তাই তার কাছে হয়ে গেল বিচ্ছিন্ন ঘটনা!’ 

রিজভী বলেন, অবৈধভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য তারা কতটা নৃশংস হতে পারে এটি তার জাজ্জল্য প্রমাণ। এদের মনে কোনো অনুশোচনা নেই। যতদিন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকবে ততদিন দেশের ফাঁড়া কাটবে না।

বিএনপির এ নেতা বলেন, গত শনিবার দ্বিতীয় ধাপের ৬০টি পৌরসভায় আগের মতোই ব্যাপক সহিংসতা, রক্তপাত ও ভোটডাকাতির নির্বাচন করেছেন ক্ষমতাসীনরা। নির্বাচন নিয়ে অন্ধকার শ্বাসরোধী পরিবেশের কোনো পরিবর্তনই হয়নি। গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যমতে প্রশাসনের সহায়তায় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা অধিকাংশ পৌর নির্বাচনী এলাকায় তাণ্ডবলীলা চালিয়েছে।