লতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৬৬ শতাংশ সরকারি জমি উদ্ধার
jugantor
লতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৬৬ শতাংশ সরকারি জমি উদ্ধার

  টাঙ্গাইল প্রতিনিধি  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৩:৫২:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

লতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৬৬ শতাংশ সরকারি জমি উদ্ধার

সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৬৬ শতাংশ সরকারি জমি উদ্ধার করেছে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসন।

রোববার সকালে শহরের জেলা সদর সড়কের আকুরটাকুরপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ জমি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত জমির মূল্য প্রায় ৫০ কোটি টাকা বলে জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে।

জানা যায়, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোজলিন শহীদ চৌধুরীর নেতৃত্বে সকালে ভেকু দিয়ে ওই জমির স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। পরে সেখানে এটি ‘ক’ তালিকাভুক্ত সরকারি সম্পত্তি বলে সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. খাইরুল ইসলামসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ম্যাজিস্ট্রেট রোজলিন শহীদ চৌধুরী জানান, শহরের আকুরটাকুরপাড়া মৌজায় ২৪২ খতিয়ানের ৭৮৮ দাগে ৬৬ শতাংশ ‘ক’ তালিকভুক্ত অর্পিত সম্পত্তি দীর্ঘদিন ধরে সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী দখল করে রেখেছিলেন। বিষয়টি নিয়ে মামলা হলে উচ্চআদালত লতিফ সিদ্দিকীর জাল দলিল বাতিল করে সরকারের পক্ষে রায় দেন।

পরে ওই জমির অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়ে জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে নেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ১৯৭২ সালে আবদুল লতিফ সিদ্দিকী অর্পিত সম্পত্তির তালিকাভুক্ত ওই জমি ইজারা নেন। পরে তিনি জমিটির মালিকানা দাবি করেন। ২০০৮ সালে জমিটির ওপর একটি মার্কেট নির্মাণ করেন। মার্কেটটি নির্মাণ হলেও চালু ছিল না।

টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি জানান, জালিয়াতি করে জমি আত্মসাতের চেষ্টা করা হয়েছিল। অবৈধ দখল উচ্ছেদের নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এ অভিযান চালানো হয়েছে।

গত ছয় মাসে জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রায় ২০০ কোটি টাকা মূল্যের সম্পত্তি অবৈধ দখলমুক্ত করে প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে নেওয়া হয়েছে। উদ্ধার অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

লতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৬৬ শতাংশ সরকারি জমি উদ্ধার

 টাঙ্গাইল প্রতিনিধি 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০১:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
লতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৬৬ শতাংশ সরকারি জমি উদ্ধার
ছবি: যুগান্তর

সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৬৬ শতাংশ সরকারি জমি উদ্ধার করেছে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসন।

রোববার সকালে শহরের জেলা সদর সড়কের আকুরটাকুরপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ জমি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত জমির মূল্য প্রায় ৫০ কোটি টাকা বলে জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে।

জানা যায়, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোজলিন শহীদ চৌধুরীর নেতৃত্বে সকালে ভেকু দিয়ে ওই জমির স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। পরে সেখানে এটি ‘ক’ তালিকাভুক্ত সরকারি সম্পত্তি বলে সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. খাইরুল ইসলামসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ম্যাজিস্ট্রেট রোজলিন শহীদ চৌধুরী জানান, শহরের আকুরটাকুরপাড়া মৌজায় ২৪২ খতিয়ানের ৭৮৮ দাগে ৬৬ শতাংশ ‘ক’ তালিকভুক্ত অর্পিত সম্পত্তি দীর্ঘদিন ধরে সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী দখল করে রেখেছিলেন। বিষয়টি নিয়ে মামলা হলে উচ্চআদালত লতিফ সিদ্দিকীর জাল দলিল বাতিল করে সরকারের পক্ষে রায় দেন।

পরে ওই জমির অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়ে জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে নেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ১৯৭২ সালে আবদুল লতিফ সিদ্দিকী অর্পিত সম্পত্তির তালিকাভুক্ত ওই জমি ইজারা নেন। পরে তিনি জমিটির মালিকানা দাবি করেন। ২০০৮ সালে জমিটির ওপর একটি মার্কেট নির্মাণ করেন। মার্কেটটি নির্মাণ হলেও চালু ছিল না।   

টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি জানান, জালিয়াতি করে জমি আত্মসাতের চেষ্টা করা হয়েছিল। অবৈধ দখল উচ্ছেদের নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এ অভিযান চালানো হয়েছে।

গত ছয় মাসে জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রায় ২০০ কোটি টাকা মূল্যের সম্পত্তি অবৈধ দখলমুক্ত করে প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে নেওয়া হয়েছে। উদ্ধার অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।