প্রধানমন্ত্রীকে সবার আগে টিকা নিতে বললেন মির্জা ফখরুল
jugantor
প্রধানমন্ত্রীকে সবার আগে টিকা নিতে বললেন মির্জা ফখরুল

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:১৭:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সবার আগে টিকা নিতে আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, এই টিকা নিয়ে মানুষের যথেষ্ট রকমের সন্দেহ আছে। এ নিয়ে মানুষ অনেক কথা বলছে। সন্দেহ দূর করতে যুক্তরাজ্যে রানী নিজে প্রথম টিকা নিয়েছেন, রাশিয়াতে পুতিন নিয়েছেন। আমার প্রস্তাব, প্রধানমন্ত্রী আপনি আজকে প্রথম টিকাটা নিন। নিয়ে মানুষকে বলেন যে, এটাতে ভয়ের কিছু নেই। তাহলে দেখবেন যে, সব মানুষের আস্থা ফিরে আসবে।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে নাগরিক ঐক্যের উদ্যোগে ‘গণঅভ্যত্থানে দিবসের ডাক স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক’ শীর্ষ এই আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, আমরা চাই যে, এদেশের সব মানুষ টিকা পাক। আমরা প্রথমেই বলেছি, এদেশের মানুষকে বিনামূল্যে টিকা দিতে হবে। আমরা এই কথা সংবাদ সম্মেলন করে বলেছি। আমরা আবারও বলছি, টিকা এদেশের মানুষ নেবে। তবে এই টিকায় আস্থা আনতে হবে এবং একই সঙ্গে সেটাকে বিনামূল্যে মানুষকে দিতে হবে।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় নেতা শহীদুল্লাহ কায়সারের পরিচালনায় এতে আরও বক্তব্য দেন, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল হক, বিএনপির শওকত মাহমুদ, গণসংহতি জুনায়েদ সাকি, নাগরিক ঐক্যের এসএম আকরাম, জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান প্রমুখ।

সাধারণ মানুষের জন্য টিকা প্রদানে কোনো রোডম্যাপ সরকার প্রণয়ন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিএনপি মহাসচিব। সর্বক্ষেত্রে জনগণের সঙ্গে সরকার প্রতারণা করছে অভিযোগ করে এই সংকট থেকে উত্তরণে সব রাজনৈতিক দলের বৃহত্তর ঐক্যের আহবান জানান মির্জা ফখরুল।

গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, করোনা ভ্যাকসিন বা টিকা আমাদের অধিকার। প্রতিটি জনগণের এই অধিকার রয়েছে। এটা ব্যক্তি বিশেষ ২/৪জনকে নয়, এই টিকা সবাইকে দিতে হবে। রিকশাওয়ালা, কৃষক, আমার ফুটপাতের দোকানদারসহ সবাইকে টিকা দিতে হবে। আজকে এখানে নেতারা আছে, টিকার জন্য আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে- বিনা মূল্যে আমরা টিকা চাই।

ভারতের দেয়া উপহারের টিকার কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ পোষণ করে তিনি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি করোনা টিকার প্রথম ডোজ নেননি বলেই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সবার আগে টিকা নিতে রাজি হলেন না। ব্যাপারটা কী, এটিই সন্দেহ।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, এই সরকার গণতন্ত্র ও মানুষের ভোটের অধিকার দেবে না। যেভাবে পারে সেইভাবেই তারা ক্ষমতায় থাকতে চায়। তাই এ সরকারকে হটাতে আমরা মনে করি আরেকটা অভ্যুত্থান লাগবে।

প্রধানমন্ত্রীকে সবার আগে টিকা নিতে বললেন মির্জা ফখরুল

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০৭:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সবার আগে টিকা নিতে আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।  তিনি বলেন, এই টিকা নিয়ে মানুষের যথেষ্ট রকমের সন্দেহ আছে। এ নিয়ে মানুষ অনেক কথা বলছে। সন্দেহ দূর করতে যুক্তরাজ্যে রানী নিজে প্রথম টিকা নিয়েছেন, রাশিয়াতে পুতিন নিয়েছেন। আমার প্রস্তাব, প্রধানমন্ত্রী আপনি আজকে প্রথম টিকাটা নিন। নিয়ে মানুষকে বলেন যে, এটাতে ভয়ের কিছু নেই। তাহলে দেখবেন যে, সব মানুষের আস্থা ফিরে আসবে।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে নাগরিক ঐক্যের উদ্যোগে ‘গণঅভ্যত্থানে দিবসের ডাক স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক’ শীর্ষ এই আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। 

ফখরুল বলেন, আমরা চাই যে, এদেশের সব মানুষ টিকা পাক। আমরা প্রথমেই বলেছি, এদেশের মানুষকে বিনামূল্যে টিকা দিতে হবে। আমরা এই কথা সংবাদ সম্মেলন করে বলেছি। আমরা আবারও বলছি, টিকা এদেশের মানুষ নেবে। তবে এই টিকায় আস্থা আনতে হবে এবং একই সঙ্গে সেটাকে বিনামূল্যে মানুষকে দিতে হবে।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় নেতা শহীদুল্লাহ কায়সারের পরিচালনায় এতে আরও বক্তব্য দেন, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল হক, বিএনপির শওকত মাহমুদ, গণসংহতি জুনায়েদ সাকি, নাগরিক ঐক্যের এসএম আকরাম, জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান প্রমুখ। 

সাধারণ মানুষের জন্য টিকা প্রদানে কোনো রোডম্যাপ সরকার প্রণয়ন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিএনপি মহাসচিব। সর্বক্ষেত্রে জনগণের সঙ্গে সরকার প্রতারণা করছে অভিযোগ করে এই সংকট থেকে উত্তরণে সব রাজনৈতিক দলের বৃহত্তর ঐক্যের আহবান জানান মির্জা ফখরুল। 

গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, করোনা ভ্যাকসিন বা টিকা আমাদের অধিকার। প্রতিটি জনগণের এই অধিকার রয়েছে। এটা ব্যক্তি বিশেষ ২/৪জনকে নয়, এই টিকা সবাইকে দিতে হবে। রিকশাওয়ালা, কৃষক, আমার ফুটপাতের দোকানদারসহ সবাইকে  টিকা দিতে হবে। আজকে এখানে নেতারা আছে, টিকার জন্য আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে- বিনা মূল্যে আমরা টিকা চাই। 

ভারতের দেয়া উপহারের টিকার কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ পোষণ করে তিনি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি করোনা টিকার প্রথম ডোজ নেননি বলেই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সবার আগে টিকা নিতে রাজি হলেন না। ব্যাপারটা কী, এটিই সন্দেহ।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, এই সরকার গণতন্ত্র ও মানুষের ভোটের অধিকার দেবে না। যেভাবে পারে সেইভাবেই তারা ক্ষমতায় থাকতে চায়। তাই এ সরকারকে হটাতে আমরা মনে করি আরেকটা অভ্যুত্থান লাগবে। 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১