‘আ.লীগ সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করেছে’
jugantor
‘আ.লীগ সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করেছে’

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০২ মার্চ ২০২১, ২৩:৫১:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

‘আ.লীগ সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করেছে’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘বর্তমান আ.লীগ সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করেছে। এই সরকার দু:খজনকভাবে কর্তৃত্ববাদী সরকার। এ সরকারের আমলে কেউ নিরাপদ নয়, এমনকি সাংবাদিক, লেখক, বুদ্ধিজীবি, মা-বোন কেউ না।’

ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবসের ৫০ বছর উপলক্ষে মঙ্গলবার বিকালে সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিববলেন, ‘মুসতাক একজন লেখক, তাকে হত্যা করা হলো কারাগারের মধ্যে। আমাদের ৩৫ লাখ নেতা-কর্মী গায়েবি মামলার আসামি। তাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই কর্তৃত্ববাদী সরকারকে হঠিয়ে জনগণের সরকার গঠন করতে হবে।’

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এই আলোচনা সভার আয়োজিন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন দলের কার্যকরী সভাপতি সা কা ম আনিছুর রহমান খান।

সভায় উপস্থিত ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি ও স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলনকারী আ স ম আব্দুর রব, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টিবোর্ড সদস্য ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যর আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ।

সভায় বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আজকে দেশ আর দেশ নেই। যদি থাকতো তাহলে আ স ম আব্দুর রবের এই পতাকা উত্তোলন দিবস তাকে পালন করতে হত না। সরকার পালন করতো, সারা বাঙ্গালী জাতি পালন করত।’

সভায় আ স ম আব্দুর রব বলেন, ‘আমার মনে হচ্ছে মা কালীর মতো বর্তমান সরকার রক্তপাত ছাড়া যাবে না। আমরা কে কে রক্ত দেব সেটা এখন সিদ্ধান্ত নিতে হবে। দেশের জন্য সকল আন্দোলন সংগ্রামে রক্ত দিয়েছি, অবারও দিতে চাই। ছাত্র যুবকরা কোথায়? যারা ৫২ সালে ৪৪ ধারা ভেঙ্গেছে, ৬৯ কারফিউ ভঙ্গ করেছে। বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে সরকারকে হটাতে হবে।’

‘আ.লীগ সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করেছে’

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০২ মার্চ ২০২১, ১১:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
‘আ.লীগ সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করেছে’
ফাইল ফটো

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘বর্তমান আ.লীগ সরকার স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করেছে। এই সরকার দু:খজনকভাবে কর্তৃত্ববাদী সরকার। এ সরকারের আমলে কেউ নিরাপদ নয়, এমনকি সাংবাদিক, লেখক, বুদ্ধিজীবি, মা-বোন কেউ না।’

ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবসের ৫০ বছর উপলক্ষে মঙ্গলবার বিকালে সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘মুসতাক একজন লেখক, তাকে হত্যা করা হলো কারাগারের মধ্যে। আমাদের ৩৫ লাখ নেতা-কর্মী গায়েবি মামলার আসামি। তাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই কর্তৃত্ববাদী সরকারকে হঠিয়ে জনগণের সরকার গঠন করতে হবে।’

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এই আলোচনা সভার আয়োজিন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন দলের কার্যকরী সভাপতি সা কা ম আনিছুর রহমান খান। 

সভায় উপস্থিত ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি ও স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলনকারী আ স ম আব্দুর রব, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টিবোর্ড সদস্য ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যর আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ।

সভায় বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আজকে দেশ আর দেশ নেই। যদি থাকতো তাহলে আ স ম আব্দুর রবের এই পতাকা উত্তোলন দিবস তাকে পালন করতে হত না। সরকার পালন করতো, সারা বাঙ্গালী জাতি পালন করত।’

সভায় আ স ম আব্দুর রব বলেন, ‘আমার মনে হচ্ছে মা কালীর মতো বর্তমান সরকার রক্তপাত ছাড়া যাবে না। আমরা কে কে রক্ত দেব সেটা এখন সিদ্ধান্ত নিতে হবে। দেশের জন্য সকল আন্দোলন সংগ্রামে রক্ত দিয়েছি, অবারও দিতে চাই। ছাত্র যুবকরা কোথায়? যারা ৫২ সালে ৪৪ ধারা ভেঙ্গেছে, ৬৯ কারফিউ ভঙ্গ করেছে। বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে সরকারকে হটাতে হবে।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন