কার্টুনিস্ট কিশোরকে ‘সাবাস’ জানালেন মির্জা ফখরুল
jugantor
কার্টুনিস্ট কিশোরকে ‘সাবাস’ জানালেন মির্জা ফখরুল

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১১ মার্চ ২০২১, ১৪:০০:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

সাহস করে মামলা করার জন্য কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরকে সাবাস জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে জঘন্য মিথ্যাচার ও তার খেতাব বাতিলের ষড়যন্ত্র, সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কিন এবং লেখক মুশতাক আহমেদের হত্যার প্রতিবাদ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইর বাতিলের দাবিতে’ এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা খুব পরিষ্কার করে বলতে চাই, অবিলম্বে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করতে হবে, এই আইনে গ্রেফতার সব মানুষকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে। আমি কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরকে সাবাস দিতে চাই, কারণ তিনি সাহস করে মামলা করেছেন। এই সাহস নিয়ে সবাইকে বেরিয়ে আসতে হবে। আজকে এই সাহস নিয়ে অন্ধকারকে দূর করার জন্য, এই স্বৈরাচারকে দূর করার জন্য এবং যারা আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকারগুলোকে কেড়ে নিয়েছে তাদেরকে পরাজিত করবার জন্য সাহস নিয়ে গণতান্ত্রিকভাবে রাজপথে সোচ্চার হতে হবে।

সরকারের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই সমাবেশ থেকে পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করুন, ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি ও দলের যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেলের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুন্সী বজলুল বাসিত আঞ্জু, ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ বক্তব্য দেন।

কার্টুনিস্ট কিশোরকে ‘সাবাস’ জানালেন মির্জা ফখরুল

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১১ মার্চ ২০২১, ০২:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাহস করে মামলা করার জন্য কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরকে সাবাস জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে জঘন্য মিথ্যাচার ও তার খেতাব বাতিলের ষড়যন্ত্র, সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কিন এবং লেখক মুশতাক আহমেদের হত্যার প্রতিবাদ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইর বাতিলের দাবিতে’ এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা খুব পরিষ্কার করে বলতে চাই, অবিলম্বে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করতে হবে, এই আইনে গ্রেফতার সব মানুষকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে। আমি কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরকে সাবাস দিতে চাই, কারণ তিনি সাহস করে মামলা করেছেন। এই সাহস নিয়ে সবাইকে বেরিয়ে আসতে হবে। আজকে এই সাহস নিয়ে অন্ধকারকে দূর করার জন্য, এই স্বৈরাচারকে দূর করার জন্য এবং যারা আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকারগুলোকে কেড়ে নিয়েছে তাদেরকে পরাজিত করবার জন্য সাহস নিয়ে গণতান্ত্রিকভাবে রাজপথে সোচ্চার হতে হবে। 

সরকারের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই সমাবেশ থেকে পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করুন, ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি ও দলের যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেলের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুন্সী বজলুল বাসিত আঞ্জু, ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ বক্তব্য দেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন