মওদুদের মৃত্যুতে নাইকো মামলার শুনানি হয়নি 
jugantor
মওদুদের মৃত্যুতে নাইকো মামলার শুনানি হয়নি 

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ মার্চ ২০২১, ১৬:২৬:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

নাইকো দুর্নীতি মামলায় সদ্যপ্রয়াত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মৃত্যুতে নির্ধারিত দিনে আজ মামলার চার্জগঠন শুনানি হয়নি। মওদুদের মৃত্যুর প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার কেরানীগঞ্জ কারাগারের ২ নম্বর ভবনে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ শেখ হাফিজুর রহমান এ আদেশ দেন।

এদিন মামলাটিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই তার পক্ষে অব্যাহতির (ডিসচার্জ) আবেদন শুনানির দিন ধার্য ছিল। এর আগেই গত ১৬ মার্চ মামলার আরেক আসামি মওদুদ আহমদ সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তাই এদিন তার আইনজীবীরা মওদুদ আহমদের মৃত্যুর বিষয়টি আদালতকে অবহিত করে তার পক্ষে অব্যাহতির আবেদন করেন।

আদালত মওদুদ আহমদের মৃত্যুর বিষয়ে গুলশান থানাকে পুলিশ প্রতিবেদন দিতে ও অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী ২৫ মার্চ দিন ধার্য করেন।
আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জিয়াউদ্দিন টেলিফোনে যুগান্তরকে এ তথ্য জানান।

গত ২ মার্চ এ মামলায় খালেদা জিয়ার পক্ষে ফৌজদারি কার্যবিধির ২০৫ ধারায় আইনজীবীর মাধ্যমে হাজিরা দাখিলের আবেদন করেন মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার। শুনানি শেষে আদালত তা মঞ্জুর করেন। তাই তাকে আপাতত সশরীরে আদালতে যেতে হচ্ছে না।

কানাডার কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের বিপুল আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন— বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী প্রয়াত একেএম মোশাররফ হোসেন, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব কামালউদ্দিন সিদ্দিকী, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব সিএম ইউসুফ হোসাইন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, বাপেক্সের সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান, ব্যবসায়ী গিয়াসউদ্দিন আল মামুন, বাগেরহাটের সাবেক সাংসদ এমএএইচ সেলিম এবং নাইকোর দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ।

মওদুদের মৃত্যুতে নাইকো মামলার শুনানি হয়নি 

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ মার্চ ২০২১, ০৪:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাইকো দুর্নীতি মামলায় সদ্যপ্রয়াত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মৃত্যুতে নির্ধারিত দিনে আজ মামলার চার্জগঠন শুনানি হয়নি।  মওদুদের মৃত্যুর প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার কেরানীগঞ্জ কারাগারের ২ নম্বর ভবনে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ শেখ হাফিজুর রহমান এ আদেশ দেন।

এদিন মামলাটিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই তার পক্ষে অব্যাহতির (ডিসচার্জ) আবেদন শুনানির দিন ধার্য ছিল। এর আগেই গত ১৬ মার্চ মামলার আরেক আসামি মওদুদ আহমদ সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তাই এদিন তার আইনজীবীরা মওদুদ আহমদের মৃত্যুর বিষয়টি আদালতকে অবহিত করে তার পক্ষে অব্যাহতির আবেদন করেন।

আদালত মওদুদ আহমদের মৃত্যুর বিষয়ে গুলশান থানাকে পুলিশ প্রতিবেদন দিতে ও অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী ২৫ মার্চ দিন ধার্য করেন।  
আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জিয়াউদ্দিন টেলিফোনে যুগান্তরকে এ তথ্য জানান। 

গত ২ মার্চ এ মামলায় খালেদা জিয়ার পক্ষে ফৌজদারি কার্যবিধির ২০৫ ধারায় আইনজীবীর মাধ্যমে হাজিরা দাখিলের আবেদন করেন মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার। শুনানি শেষে আদালত তা মঞ্জুর করেন। তাই তাকে আপাতত সশরীরে আদালতে যেতে হচ্ছে না।

কানাডার কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের বিপুল আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন— বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী প্রয়াত একেএম মোশাররফ হোসেন, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব কামালউদ্দিন সিদ্দিকী, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব সিএম ইউসুফ হোসাইন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, বাপেক্সের সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান, ব্যবসায়ী গিয়াসউদ্দিন আল মামুন, বাগেরহাটের সাবেক সাংসদ এমএএইচ সেলিম এবং নাইকোর দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : মওদুদ আহমদ আর নেই