আহমদ শফীর মৃত্যু: পিবিআইয়ের তদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে যা বললেন বাবুনগরী
jugantor
আহমদ শফীর মৃত্যু: পিবিআইয়ের তদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে যা বললেন বাবুনগরী

  হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

১৩ এপ্রিল ২০২১, ১৭:৪৫:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

আহমদ শফীর মৃত্যু: পিবিআইয়ের তদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে যা বললেন বাবুনগরী

হেফাজত ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা আমীর আল্লামা শফীর মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

সোমবার পিবিআই হেফাজতের বর্তমান আমীর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও যুগ্ম মহাসচিব নাসির উদ্দিন মুনিরসহ ৪৩ জনকে দায়ী করে চট্টগ্রাম জুডিশিয়াল তৃতীয় জজ আদালতের কাছে তদন্ত প্রতিবেদনে দাখিল করে।

পিবিআই’র তদন্ত প্রতিবেদনে দাখিলে অভিযুক্ত হেফাজতের বর্তমান আমীর ও হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা পরিচালক এ বিষয়ে প্রথমবারের সাংবাদিকদের কাছে মুখ খুলেছেন।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে আল্লামা বাবুনগরী হাটহাজারী মাদ্রাসায় তার কার্যালয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, আজগর আলী হসপিটালের রিপোর্ট অনুয়ারী হুজুরের মৃত্যু স্বাভাবিক। তদন্তের দায়িত্বে থাকা সরকারি সংস্থা পিবিআই হুজুরে মৃত্যু নিয়ে যে তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছে; তা ডাহা মিথ্যা। তবে বিষয়টি আমরা আইনগতভাবে মোকাবেলা করব।

প্রসঙ্গত, হাটহাজারী মাদ্রাসার সাবেক মহাপরিচালক আল্লামা আহমদ শফী গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় আজগর আলী হসপিটালের চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুর আগের দিন মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে তিনি মহাপরিচালকের পদ ছাড়েন।

পরে গত ১৭ ডিসেম্বর আহমদ শফীর শ্যালক মইন উদ্দিন চট্টগ্রামের আদালতে মামলা করেন। মামলায় ৩৬ জনকে আসামি করা হয়েছিল। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্ত করে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার আদেশ দিয়েছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ৪৩ জনের মধ্যে ৩১ জন এজাহারভুক্ত। তারা হলেন- মাওলানা নাছির উদ্দিন মুনির, মাওলানা মীর ইদরিস, হাবিব উল্লাহ আজাদী, আহসান উল্লাহ, আজিজুল হক ইসলামাবাদী, জাকারিয়া নোমান ফয়েজী, আব্দুল মতিন, মো. শহীদুল্লাহ, রিজওয়ান আরমান, হাসানুজ্জামান, মো. এনামুল হাসান ফারুকী, মীর সাজেদ, জাফর আহমদ, মীর জিয়াউদ্দিন, মাওলানা আহম্মদ, মাওলানা মাহমুদ, আসাদুল্লাহ, জুবাইর মাহমুদ, হাফেজ জুনায়েদ আহমেদ, আনোয়ার শাহ, ছাদেক জামিল কামাল, কামরুল ইসলাম কাসেমি, মো. হাসান, ওবায়েদুল্লা ওবায়েদ, জুবাইর, মাওলানা মোহাম্মদ, আমিনুল হক, সোহেল চৌধুরী, মবিনুল হক, নাইমুল ইসলাম খান ও হাফেজ সায়েম উল্লাহ।

এদিকে পিবিআই’র তদন্তে নতুন করে যে ১২ জনের নাম যুক্ত হলো তারা হলেন- জুনায়েদ বাবুনগরী, মাওলানা শফিউল আলম, শিব্বির আহমেদ, আবু সাঈদ, হোসাইন আহমদ, তাওহীদ, এরফান, মামুন, আমিনুল, মাসুদুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম এবং নুর মোহাম্মদ।

এদিকে মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে বাবুনগরী বলেন, আল্লামা শফীর মৃত্যু নিয়ে পিবিআই যে রিপোর্ট দিয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। বাস্তবতা বিবর্জিত। আমরা মনে করি এ প্রতিবেদন একটি চিহ্নিত চক্রের শেখানো বুলি।এ মিথ্যা রিপোর্টের ভিত্তিতে যাদের নামে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে তা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

আহমদ শফীর মৃত্যু: পিবিআইয়ের তদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে যা বললেন বাবুনগরী

 হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আহমদ শফীর মৃত্যু: পিবিআইয়ের তদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে যা বললেন বাবুনগরী
ছবি: যুগান্তর

হেফাজত ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা আমীর আল্লামা শফীর মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। 

সোমবার পিবিআই হেফাজতের বর্তমান আমীর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও যুগ্ম মহাসচিব নাসির উদ্দিন মুনিরসহ ৪৩ জনকে দায়ী করে চট্টগ্রাম জুডিশিয়াল তৃতীয় জজ আদালতের কাছে তদন্ত প্রতিবেদনে দাখিল করে।

পিবিআই’র তদন্ত প্রতিবেদনে দাখিলে অভিযুক্ত হেফাজতের বর্তমান আমীর ও হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা পরিচালক এ বিষয়ে প্রথমবারের সাংবাদিকদের কাছে মুখ খুলেছেন। 

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে আল্লামা বাবুনগরী হাটহাজারী মাদ্রাসায় তার কার্যালয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, আজগর আলী হসপিটালের রিপোর্ট অনুয়ারী হুজুরের মৃত্যু স্বাভাবিক। তদন্তের দায়িত্বে থাকা সরকারি সংস্থা পিবিআই হুজুরে মৃত্যু নিয়ে যে তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছে; তা ডাহা মিথ্যা। তবে বিষয়টি আমরা আইনগতভাবে মোকাবেলা করব। 

প্রসঙ্গত, হাটহাজারী মাদ্রাসার সাবেক মহাপরিচালক আল্লামা আহমদ শফী গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় আজগর আলী হসপিটালের চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুর আগের দিন মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে তিনি মহাপরিচালকের পদ ছাড়েন। 

পরে গত ১৭ ডিসেম্বর আহমদ শফীর শ্যালক মইন উদ্দিন চট্টগ্রামের আদালতে মামলা করেন। মামলায় ৩৬ জনকে আসামি করা হয়েছিল। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্ত করে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার আদেশ দিয়েছিলেন। 

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ৪৩ জনের মধ্যে ৩১ জন এজাহারভুক্ত। তারা হলেন- মাওলানা নাছির উদ্দিন মুনির, মাওলানা মীর ইদরিস, হাবিব উল্লাহ আজাদী, আহসান উল্লাহ, আজিজুল হক ইসলামাবাদী, জাকারিয়া নোমান ফয়েজী, আব্দুল মতিন, মো. শহীদুল্লাহ, রিজওয়ান আরমান, হাসানুজ্জামান, মো. এনামুল হাসান ফারুকী, মীর সাজেদ, জাফর আহমদ, মীর জিয়াউদ্দিন, মাওলানা আহম্মদ, মাওলানা মাহমুদ, আসাদুল্লাহ, জুবাইর মাহমুদ, হাফেজ জুনায়েদ আহমেদ, আনোয়ার শাহ, ছাদেক জামিল কামাল, কামরুল ইসলাম কাসেমি, মো. হাসান, ওবায়েদুল্লা ওবায়েদ, জুবাইর, মাওলানা মোহাম্মদ, আমিনুল হক, সোহেল চৌধুরী, মবিনুল হক, নাইমুল ইসলাম খান ও হাফেজ সায়েম উল্লাহ।

এদিকে পিবিআই’র তদন্তে নতুন করে যে ১২ জনের নাম যুক্ত হলো তারা হলেন- জুনায়েদ বাবুনগরী, মাওলানা শফিউল আলম, শিব্বির আহমেদ, আবু সাঈদ, হোসাইন আহমদ, তাওহীদ, এরফান, মামুন, আমিনুল, মাসুদুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম এবং নুর মোহাম্মদ।

এদিকে মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে বাবুনগরী বলেন, আল্লামা শফীর মৃত্যু নিয়ে পিবিআই যে রিপোর্ট দিয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। বাস্তবতা বিবর্জিত। আমরা মনে করি এ প্রতিবেদন একটি চিহ্নিত চক্রের শেখানো বুলি। এ মিথ্যা রিপোর্টের ভিত্তিতে যাদের নামে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে তা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আল্লামা শফী আর নেই