এ আ.লীগ পথহারা আ.লীগ, নিয়ন্ত্রণ করে অপরাজনীতির হোতারা: কাদের মির্জা
jugantor
এ আ.লীগ পথহারা আ.লীগ, নিয়ন্ত্রণ করে অপরাজনীতির হোতারা: কাদের মির্জা

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

২১ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৩৩:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের কড়া সমালোচনা করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

তিনি বলেছেন, আজকে শীর্ষপর্যায় থেকে যেসব কথা বলা হচ্ছে, তাতে দুঃখ লাগে, কষ্ট লাগে। আওয়ামী লীগের একটা লোক আমার আহত কর্মীদের দেখতে আসেনি। আমার একটু খোঁজখবর নিতেও আসেনি। সেই আওয়ামী লীগ থেকে আমি এ জন্যই পদত্যাগ করেছি। এ আওয়ামী লীগ এখন পথহারা আওয়ামী লীগ, এ আওয়ামী লীগ অপশক্তির আওয়ামী লীগ, এ আওয়ামী লীগ এখন অস্ত্রবাজদের আ.লীগ। এ আওয়ামী লীগ টেন্ডারবাজ চাকরিবাণিজ্য করে তাদের আওয়ামী লীগ। আমাদের মতো ৪৭ বছরের ত্যাগী কর্মীরা আজকে আওয়ামী লীগে শুধু এখানে নয়, বাংলাদেশের কোথাও আজকে মূল্যায়িত হচ্ছে না। আজকে অপরাজনীতির হোতারা আওয়ামী লীগ নিয়ন্ত্রণ করছে।

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা তার অনুসারী স্বপন মাহমুদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে বুধবার এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অধিকাংশ ঠিকাদার বিএনপির। ২-৪ জন ঠিকাদার আওয়ামী লীগের আছে। তারা কাজ বিক্রি করে দেয় বিএনপির কাছে। সেখান থেকে মাসোহারা তুলে মন্ত্রীর এপিএস। সেটিকে তিন ভাগ করে। সেখান থেকে তারা একভাগ অফিসারদের জন্য রাখে, এক ভাগ তারেক জিয়ার জন্য পাঠায়। এক ভাগ মন্ত্রীর স্ত্রীকে দেয়।

কাদের মির্জা বলেন, সেতুমন্ত্রীর স্ত্রীর দেশে-বিদেশে কত হাজার কোটি টাকার সম্পদ আছে, বাড়ি-গাড়ি আছে— এটির হিসাব আমার কাছে আছে। যথাসময়ে যথাস্থানে পৌঁছাব। আল্লাহর কাছে বলব আর জনতার কাছে বলব— যেহেতু আমাদের কেউ নেই। আর এ জনতাই একদিন সেই সম্পদের কড়ায়গণ্ডায় হিসাব নেবে।

এ আ.লীগ পথহারা আ.লীগ, নিয়ন্ত্রণ করে অপরাজনীতির হোতারা: কাদের মির্জা

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
২১ এপ্রিল ২০২১, ০২:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের কড়া সমালোচনা করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

তিনি বলেছেন, আজকে শীর্ষপর্যায় থেকে যেসব কথা বলা হচ্ছে, তাতে দুঃখ লাগে, কষ্ট লাগে।  আওয়ামী লীগের একটা লোক আমার আহত কর্মীদের দেখতে আসেনি।  আমার একটু খোঁজখবর নিতেও আসেনি। সেই আওয়ামী লীগ থেকে আমি এ জন্যই পদত্যাগ করেছি।  এ আওয়ামী লীগ এখন পথহারা আওয়ামী লীগ, এ আওয়ামী লীগ অপশক্তির আওয়ামী লীগ, এ আওয়ামী লীগ এখন অস্ত্রবাজদের আ.লীগ।  এ আওয়ামী লীগ টেন্ডারবাজ চাকরিবাণিজ্য করে তাদের আওয়ামী লীগ। আমাদের মতো ৪৭ বছরের ত্যাগী কর্মীরা আজকে আওয়ামী লীগে শুধু এখানে নয়, বাংলাদেশের কোথাও আজকে মূল্যায়িত হচ্ছে না।  আজকে অপরাজনীতির হোতারা আওয়ামী লীগ নিয়ন্ত্রণ করছে।

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা তার অনুসারী স্বপন মাহমুদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে বুধবার এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অধিকাংশ ঠিকাদার বিএনপির।  ২-৪ জন ঠিকাদার আওয়ামী লীগের আছে। তারা কাজ বিক্রি করে দেয় বিএনপির কাছে।  সেখান থেকে মাসোহারা তুলে মন্ত্রীর এপিএস।  সেটিকে তিন ভাগ করে। সেখান থেকে তারা একভাগ অফিসারদের জন্য রাখে, এক ভাগ তারেক জিয়ার জন্য পাঠায়।  এক ভাগ মন্ত্রীর স্ত্রীকে দেয়।  

কাদের মির্জা বলেন, সেতুমন্ত্রীর স্ত্রীর দেশে-বিদেশে কত হাজার কোটি টাকার সম্পদ আছে, বাড়ি-গাড়ি আছে— এটির হিসাব আমার কাছে আছে।  যথাসময়ে যথাস্থানে পৌঁছাব।  আল্লাহর কাছে বলব আর জনতার কাছে বলব— যেহেতু আমাদের কেউ নেই। আর এ জনতাই একদিন সেই সম্পদের কড়ায়গণ্ডায় হিসাব নেবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা