স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতায় করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: জিএম কাদের 
jugantor
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতায় করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: জিএম কাদের 

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৫ জুলাই ২০২১, ১৩:৩৪:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, অতিমারী করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আইসিইউয়ের চাহিদা। কিন্তু দেশের ৩৫ জেলায় এখনও আইসিইউ নেই। অথচ এক বছর আগে প্রধানমন্ত্রী সব জেলায় আইসিইউ স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছিলেন। সব জেলায় আইসিইউ স্থাপনে ব্যর্থ হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, গণমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী দেশের আইসিইউয়ের ৭৬ ভাগই ঢাকা বিভাগে। এর মধ্যে রাজধানীতেই ৭৩ ভাগ। আইইডিসিআরের তথ্যমতে, গেল জুন মাসে করোনা শনাক্তের ৭৮ ভাগই ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট। তাই করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য আইসিইউয়ের চাহিদা বেড়েছে। কিন্তু সব জেলায় আইসিইউ না থাকায় কঠোর লকডাউনের মাঝে করোনা রোগী নিয়ে এক জেলা থেকে অন্য জেলায় ছোটাছুটি করছেন স্বজনরা।

তিনি বলেন, রাজধানীর সরকারি হাসপাতালগুলোর আইসিইউ ফাঁকা নেই বলেলেই চলে। দ্রতই বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউগুলো পূর্ণ হয়ে যাচ্ছে। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলেছে, ‘রোগী বাড়লে অক্সিজেন সরবরাহ চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে’। পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে, আইসিইউয়ের জন্য হাহাকার উঠবে। শঙ্কাজনক হারে বেড়ে যেতে পারে মৃত্যুর হার।

বিবৃতিতে জিএম কাদের আরও বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতায় ভয়াবহ ভবিষ্যতের দিকে করোনা পরিস্থিতি। তাই যত দ্রুত সম্ভব সব জেলায় আইসিইউ স্থাপন ও পর্যাপ্ত অক্সিজেন সহায়তা নিশ্চিত করতে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতায় করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: জিএম কাদের 

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৫ জুলাই ২০২১, ০১:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, অতিমারী করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আইসিইউয়ের চাহিদা। কিন্তু দেশের ৩৫ জেলায় এখনও আইসিইউ নেই। অথচ এক বছর আগে প্রধানমন্ত্রী সব জেলায় আইসিইউ স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছিলেন। সব জেলায় আইসিইউ স্থাপনে ব্যর্থ হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, গণমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী দেশের আইসিইউয়ের ৭৬ ভাগই ঢাকা বিভাগে। এর মধ্যে রাজধানীতেই ৭৩ ভাগ। আইইডিসিআরের তথ্যমতে, গেল জুন মাসে করোনা শনাক্তের ৭৮ ভাগই ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট। তাই করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য আইসিইউয়ের চাহিদা বেড়েছে। কিন্তু সব জেলায় আইসিইউ না থাকায় কঠোর লকডাউনের মাঝে করোনা রোগী নিয়ে এক জেলা থেকে অন্য জেলায় ছোটাছুটি করছেন স্বজনরা। 

তিনি বলেন, রাজধানীর সরকারি হাসপাতালগুলোর আইসিইউ ফাঁকা নেই বলেলেই চলে। দ্রতই বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউগুলো পূর্ণ হয়ে যাচ্ছে। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলেছে, ‘রোগী বাড়লে অক্সিজেন সরবরাহ চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে’। পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে, আইসিইউয়ের জন্য হাহাকার উঠবে। শঙ্কাজনক হারে বেড়ে যেতে পারে মৃত্যুর হার।

বিবৃতিতে জিএম কাদের আরও বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতায় ভয়াবহ ভবিষ্যতের দিকে করোনা পরিস্থিতি। তাই যত দ্রুত সম্ভব সব জেলায় আইসিইউ স্থাপন ও পর্যাপ্ত অক্সিজেন সহায়তা নিশ্চিত করতে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস