ইভ্যালির প্রতারণা নিয়ে সংসদে যা বললেন রুমিন ফারহানা
jugantor
ইভ্যালির প্রতারণা নিয়ে সংসদে যা বললেন রুমিন ফারহানা

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৪১:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা

ইভ্যালি ও ই-অরেঞ্জের গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণার বিষয়ে জাতীয় সংসদে বক্তব্য রেখেছেন বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা।

বৃহস্পতিবার সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি বলেন, সরকারের গাফিলতির কারণে ই-ভ্যালি, ই-অরেঞ্জের মতো প্রতিষ্ঠান ব্যবসার নামে প্রতারণা করে হাজার কোটি টাকা লুট করেছে। যারা টাকা দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন, সরকারকে তাদের টাকা ফিরিয়ে দিতে হবে। পরে সরকার সেসব প্রতিষ্ঠান থেকে টাকা আদায় করবে।

তিনি বলেন, ই-ভ্যালি, ই-অরেঞ্জ ব্যবসা শুরু করার সময়ই বোঝা গিয়েছিল তারা প্রতারণা করবে। তারা অর্ধেক দামে পণ্য বিক্রির অফার দিয়েছিল। অনেক মানুষ বিনিয়োগ করেছে। এখন হাজার কোটি টাকা নিয়ে তারা আর পণ্য দিচ্ছে না। শুধু মানুষকে দোষ দিলে হবে না। প্রতিষ্ঠানগুলো গোপনে ব্যবসা করেনি। যে পরিামাণ বিজ্ঞাপন দিয়ে তারা ব্যবসা করেছে, তাতে সরকারের নীতিনির্ধারকদের এটি না জানার কথা নয়। তারা ক্রিকেট দলের স্পনসরও হয়েছিল।

তিনি বলেন, অন্য সবকিছু বাদ দিলেও প্রতিযোগিতা আইন অনুযায়ী, এই ধরনের ব্যবসা চলতে পারে না। কিন্তু সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

ইভ্যালির প্রতারণা নিয়ে সংসদে যা বললেন রুমিন ফারহানা

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা
ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। ফাইল ছবি

ইভ্যালি ও ই-অরেঞ্জের গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণার বিষয়ে জাতীয় সংসদে বক্তব্য রেখেছেন বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা। 

বৃহস্পতিবার সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি বলেন, সরকারের গাফিলতির কারণে ই-ভ্যালি, ই-অরেঞ্জের মতো প্রতিষ্ঠান ব্যবসার নামে প্রতারণা করে হাজার কোটি টাকা লুট করেছে। যারা টাকা দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন, সরকারকে তাদের টাকা ফিরিয়ে দিতে হবে। পরে সরকার সেসব প্রতিষ্ঠান থেকে টাকা আদায় করবে।

তিনি বলেন, ই-ভ্যালি, ই-অরেঞ্জ ব্যবসা শুরু করার সময়ই বোঝা গিয়েছিল তারা প্রতারণা করবে। তারা অর্ধেক দামে পণ্য বিক্রির অফার দিয়েছিল। অনেক মানুষ বিনিয়োগ করেছে। এখন হাজার কোটি টাকা নিয়ে তারা আর পণ্য দিচ্ছে না। শুধু মানুষকে দোষ দিলে হবে না। প্রতিষ্ঠানগুলো গোপনে ব্যবসা করেনি। যে পরিামাণ বিজ্ঞাপন দিয়ে তারা ব্যবসা করেছে, তাতে সরকারের নীতিনির্ধারকদের এটি না জানার কথা নয়। তারা ক্রিকেট দলের স্পনসরও হয়েছিল। 

তিনি বলেন, অন্য সবকিছু বাদ দিলেও প্রতিযোগিতা আইন অনুযায়ী, এই ধরনের ব্যবসা চলতে পারে না। কিন্তু সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন