‘যারা রাজপথ পাহারা দেবে, তাদেরই নেতৃত্বে আনা হবে’
jugantor
‘যারা রাজপথ পাহারা দেবে, তাদেরই নেতৃত্বে আনা হবে’

  খুলনা ব্যুরো  

১৮ অক্টোবর ২০২১, ০০:২৬:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

‘বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান লন্ডনে অবস্থান করলেও দল পুনর্গঠনে কাজ করছেন। তৃণমূল থেকে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে তিনি নতুন রূপরেখা দিয়েছেন। সেই রূপরেখা অনুসরণ করে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের কমিটি গঠিত হবে।আগামী দিনে যারা ভোট কেন্দ্র পাহারা দিতে পারবেন, রাজপথ পাহারা দিতে পারবেন, আন্দোলনের সময় রাজপথে দৃঢ় অবস্থান নিতে পারবেন- তাদেরই দলের নেতৃত্বে আনা হবে।’

রোববার নগরীর দৌলতপুরের ওয়ার্ড কমিউনিটি সেন্টারে স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মিসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা ও খুলনা-৩ আসনে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী রকিবুল ইসলাম বকুল এসব কথা বলেন।

থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক মহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে কর্মিসভার উদ্বোধন করেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি একরামুল হক হেলাল। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা শাখার সভাপতি শেখ তৈয়েবুর রহমান। থানা কমিটির সদস্য সচিব আল আমিন সরদার রতনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন এম মুর্শিদ কামাল, আজিজুল হাসান দুলু, মাহবুব হাসান পিয়ারু, এহতেশামুল হক শাওন প্রমুখ।

কর্মিসভায় বকুল আরও বলেন, এ সরকার দিনের চাইতে রাতের বেলায় কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। তারা রাতের বেলায় ভোট করে। রাতের অন্ধকারে শাসক দলের সোনার ছেলেরা হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে। আর পরিকল্পিকভাবে শিল্পনগরী দৌলতপুরের একের পর এক শিল্প-কারখানা বন্ধ হয়ে যায়। কাজের অভাবে শ্রমিকদের রিকশা কিংবা ইজিবাইক চালিয়ে সংসার চালাতে হয়। বন্ধ মিলের জমি দখল করে নেয় শাসক দলের নেতারা। সাংবাদিকরা সত্য বলতে পারেন না।

প্রবাসী সাংবাদিকের বোনকে মিথ্যা অজুহাতে গ্রেফতার করে নির্যাতন করা হয়। সাগর-রুনী হত্যার বিচার হয় না। সরকার উন্নয়নের গল্প শোনালেও রাতের বেলায় বানানো রাস্তা, সকালে উঠে দেখা যায় পিচ উঠে গেছে। এই হচ্ছে লুটপাটের উন্নয়ন।

‘যারা রাজপথ পাহারা দেবে, তাদেরই নেতৃত্বে আনা হবে’

 খুলনা ব্যুরো 
১৮ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

‘বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান লন্ডনে অবস্থান করলেও দল পুনর্গঠনে কাজ করছেন। তৃণমূল থেকে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে তিনি নতুন রূপরেখা দিয়েছেন। সেই রূপরেখা অনুসরণ করে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের কমিটি গঠিত হবে। আগামী দিনে যারা ভোট কেন্দ্র পাহারা দিতে পারবেন, রাজপথ পাহারা দিতে পারবেন, আন্দোলনের সময় রাজপথে দৃঢ় অবস্থান নিতে পারবেন-  তাদেরই দলের নেতৃত্বে আনা হবে।’

রোববার নগরীর দৌলতপুরের ওয়ার্ড কমিউনিটি সেন্টারে স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মিসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা ও খুলনা-৩ আসনে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী রকিবুল ইসলাম বকুল এসব কথা বলেন।

থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক মহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে কর্মিসভার উদ্বোধন করেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি একরামুল হক হেলাল। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা শাখার সভাপতি শেখ তৈয়েবুর রহমান। থানা কমিটির সদস্য সচিব আল আমিন সরদার রতনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন এম মুর্শিদ কামাল, আজিজুল হাসান দুলু, মাহবুব হাসান পিয়ারু, এহতেশামুল হক শাওন প্রমুখ।
 
কর্মিসভায় বকুল আরও বলেন, এ সরকার দিনের চাইতে রাতের বেলায় কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। তারা রাতের বেলায় ভোট করে। রাতের অন্ধকারে শাসক দলের সোনার ছেলেরা হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে। আর পরিকল্পিকভাবে শিল্পনগরী দৌলতপুরের একের পর এক শিল্প-কারখানা বন্ধ হয়ে যায়। কাজের অভাবে শ্রমিকদের রিকশা কিংবা ইজিবাইক চালিয়ে সংসার চালাতে হয়। বন্ধ মিলের জমি দখল করে নেয় শাসক দলের নেতারা। সাংবাদিকরা সত্য বলতে পারেন না।

প্রবাসী সাংবাদিকের বোনকে মিথ্যা অজুহাতে গ্রেফতার করে নির্যাতন করা হয়। সাগর-রুনী হত্যার বিচার হয় না। সরকার উন্নয়নের গল্প শোনালেও রাতের বেলায় বানানো রাস্তা, সকালে উঠে দেখা যায় পিচ উঠে গেছে। এই হচ্ছে লুটপাটের উন্নয়ন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর